Tuesday, July 16, 2024
spot_img
Homeধর্মহজ ও ওমরাহর খরচ কমছে

হজ ও ওমরাহর খরচ কমছে

করোনা বিধি-নিষেধের কারণে গত দুই বছর হজ ও ওমরাহ পালনে ব্যয় বেড়েছিল কয়েক গুণ। এ বছর হজে অংশ নিতে সংখ্যা ও বয়সের সীমাবদ্ধতা তুলে নেওয়ার পাশাপাশি ব্যয় কমানোর কথা জানিয়েছে সৌদির হজ ও ওমরাহ বিষয়ক মন্ত্রণালয়। 

হজ ও ওমরাহ যাত্রীদের বীমা খরচও কমানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন সৌদির হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়ের সহকারী সচিব ড. আমর বিন রেদা আল মাদ্দাহ। তিনি জানান, গত বছরের চেয়ে এবারের হজ প্যাকেজ ৩০ শতাংশ সাশ্রয়ী হবে। ইতিমধ্যে ইকোনমিক হজ প্যাকেজের ৯০ ভাগের বেশি বিক্রি হয়ে গেছে। 

সৌদি গেজেট সূত্রে জানা যায়, গত ১০ জানুয়ারি থেকে বিদেশি ওমরাহযাত্রীদের প্রিমিয়াম বীমার ব্যয় ৬৩ শতাংশ কমিয়ে ২৩৫ সৌদি রিয়াল থেকে ৮৮ রিয়াল এবং সাধারণ বীমার ক্ষেত্রে ৭৩ শতাংশ কমিয়ে ১০৯ রিয়াল থেকে ২৯ রিয়াল করা হয়। সৌদির বাইরে থেকে ওমরাহ করতে আসা ব্যক্তিরা বীমার আওতায় জরুরি সেবা, যেমন চিকিৎসা, হাসপাতালে ভর্তি, গর্ভাবস্থা, সন্তান জন্মদান, জরুরি ডেন্টাল কেস, পরিবহন দুর্ঘটনায় আঘাত, ডায়ালিসিস ইস্যু এবং অভ্যন্তরীণ ও বাহ্যিক চিকিৎসা অন্তর্ভুক্ত হবে। তা ছাড়া দুর্ঘটনাজনিত স্থায়ী অক্ষমতা, প্রাকৃতিক দুর্যোগে মৃত্যু, মৃতদেহ দেশে ফেরত পাঠানো, আদালত কর্তৃক নির্ধারিত রক্তের অর্থ এবং ফ্লাইট বিলম্ব বা বাতিলের ক্ষতিপূরণ আদায় করা হয়। 

গত ৯-১২ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক হজ সম্মেলন ও প্রদর্শনীতে বিধি-নিষেধ তুলে নেওয়ার ঘোষণা দিয়ে হজ ও ওমরাহ বিষয়ক মন্ত্রী তাওফিক আল-রাবিয়াহ বলেছেন, ‘ওমরাহ ভিসা নিয়ে সৌদি আরবের যেকোনো স্থানে ভ্রমণ করা যাচ্ছে। পাশাপাশি অন্য ভিসা নিয়েও ওমরাহ পালনের সুযোগ পাচ্ছেন সবাই। ওমরাহ ভিসার মেয়াদ ৩০ দিন থেকে বাড়িয়ে ৯০ দিন করা হয়েছে। অনলাইনে মাত্র ২৪ ঘণ্টার কম সময়ে ভিসা ইস্যু করা যাচ্ছে।’ 

সংশ্লিষ্ট ওয়েবসাইট ও ‘নুসুক’ অ্যাপের মাধ্যমে ১৪৪৪ হিজরির হজযাত্রীদের নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। সৌদিতে অবস্থানরতরা সর্বনিম্ন তিন হাজার ৯৮৪ রিয়াল মূল্যের প্যাকেজে নিবন্ধন করতে পারবেন। নিবন্ধনের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে প্যাকেজের ২০ শতাংশ অর্থ পরিশোধ করতে হবে। পরবর্তী ৪০ শতাংশ অর্থ আগামী ২৯ জানুয়ারির (৭ রজব) মধ্যে পরিশোধ করতে হবে। আর শেষ ৪০ শতাংশ ২৩ এপ্রিলের (৩ শাওয়াল) মধ্যে দিতে হবে। নির্ধারিত সময়ে অর্থ পরিশোধের পর হজ প্যাকেজ নিশ্চিত করা না হলে তা বাতিল করা হবে।

করোনার আগের বছর ২০১৯ সালে প্রায় ২৫ লাখের বেশি মানুষ পবিত্র হজ পালন করেছেন। করোনা মহামারির কারণে ২০২০ ও ২০২১ সালে  কঠোর বিধি-নিষেধ অনুসরণ করে সৌদিতে বসবাসরত সীমিতসংখ্যক লোক হজ পালন করেন। এরপর ২০২২ সালে ১৮ থেকে ৬৫ বছর বয়সী করোনবিধি মেনে বিশ্বের ১০ লাখ লোক হজ পালন করেন। ২০২৩ সালের ২৬ জুন পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হতে পারে। 

সূত্র : সৌদি গেজেট ও গালফ নিউজ

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments