Sunday, June 23, 2024
spot_img
Homeজাতীয়সরকার পতনে বৃহৎ ঐক্য চায় বিএনপি

সরকার পতনে বৃহৎ ঐক্য চায় বিএনপি

সরকার পতন আন্দোলনে ‘বৃহৎ প্লাটফর্ম’ গড়তে ‘বাম-ডান রাজনৈতিক দলগুলো’র ঐক্য চায় বিএনপি। দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘যারা জোর করে ক্ষমতা দখল করে থাকে তারা কি ক্ষমতা ছেড়ে দেয়। এটা আদায় করতে হবে, সেটা জনগণের শক্তিতেই আদায় করতে হবে। আমাদের তো কোনো শক্তি নেই, শক্তি একটাই সেটা হচ্ছে জনগণ।’

শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে তোফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা) আয়োজিত এক আলোচনা সভায় বিএনপি মহাসচিব এসব কথা জানান।

তিনি বলেন, ‘আসুন, সব রাজনৈতিক দলগুলোকে নিয়ে যে ঐক্য প্রক্রিয়া শুরু করেছি, সেই ঐক্য প্রক্রিয়াকে আমরা সবাই সফল করি। আমরা খুব পরিষ্কার করে বলেছি যে, এটা দেশের সব রাজনৈতিক দলের, বাম-ডান হোক, যেটাই হোক আমরা তাদেরকে একখানে নিয়ে এসে এই ভয়াবহ যে সরকার আমাদের বুকের ওপর চেপে বসে আছে তার থেকে আমরা মুক্তি নেই।’

সরকারবিরোধী আন্দোলন গড়ে তুলতে গত ২৪ মে থেকে বিএনপি বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপ শুরু করেছে। এরমধ্যে মাহমুদুর রহমান মান্নার নাগরিক ঐক্য, জোনায়েদ সাকির গণসংহতি আন্দোলন, সাইফুল হকের বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি, বিশদলীয় জোটের শরিক বাংলাদেশ লেবার পার্টি ও কল্যাণ পার্টির সঙ্গে সংলাপ শেষ করেছে বিএনপি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘তারা (আওয়ামী লীগ) অতীতে বাকশাল প্রতিষ্ঠা করেছিল। আজকে আবার অলিখিত বাকশাল তারা চালাচ্ছে গত ১৫ বছর ধরে এবং এখানে তারা বিচার বিভাগ, প্রশাসন, অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, গণমাধ্যম, ব্যবসা-বাণিজ্য সব কিছু নিয়ন্ত্রণ করে তারা একক কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা করেছে। তারা নির্বাচন ব্যবস্থাকেও ধ্বংস করে দিয়েছে। সেই কারণে আমরা খুব পরিষ্কার করে বলেছি যে, আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে, আওয়ামী লীগের অধীনে আর কোনো নির্বাচন হবে না। এখানে অবশ্যই আওয়ামী লীগকে সরে যেতে হবে। নিরপেক্ষ একটা সরকারের হাতে দায়িত্ব দিতে হবে এবং সেই সরকারের নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন করে নির্বাচনের ব্যবস্থা করবে।’

প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৪১তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাগপার প্রতিষ্ঠাতা শফিউল আলম প্রধানের ৫তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এই আলোচনা সভা হয়।

‘খাদ্যশস্যের দাম বৃদ্ধি সরকার জড়িত’ অভিযোগ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আজকে কী হচ্ছে বাজারে? মন্ত্রী নিজে স্বীকার করেছেন সিন্ডিকেটরা দাম বাড়াচ্ছে। তাহলে আপনি আছেন কেন?…।যারা সিন্ডিকেটকে নিয়ন্ত্রণ করতে পার না, যারা দুর্নীতিবাজদেরকে ধরতে পার না, এই যে, ছোট ছোট আরতদারদেরকে গিয়ে ধরে বেড়াচ্ছ বাজারে গিয়ে।আসল ব্যাপার তো এখানে নয়। আসল ব্যাপার তো পত্রিকায় এসে গেছে। বড় বড় করপোরেটগুলো এত বেশি করে চাল কিনছে, চালের দাম বেড়ে যাচ্ছে। বরাবরই তাই হয়। সরকারের প্রশ্রয় ছাড়া, সরকারের মদদ ছাড়া কখনোই এটা করা সম্ভব হয় না। তাই আমরা বার বার করে বলছি যে, সরকারের কারসাজি শুধু নয়, সরকারের সরাসরি সম্পৃক্ততা আজকে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি করেছে, চালের দাম বৃদ্ধি করেছে।’

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments