Sunday, August 14, 2022
spot_img
Homeখেলাধুলাসমুদ্রে ‘ভয়ংকর’ ফেরিযাত্রায় অসুস্থ ক্রিকেটাররা, যা বলল বিসিবি

সমুদ্রে ‘ভয়ংকর’ ফেরিযাত্রায় অসুস্থ ক্রিকেটাররা, যা বলল বিসিবি

ওয়েস্ট ইন্ডিজে টাইগারদের এবারের সফরটা চিরস্মরণীয় হয়েই থাকবে। সেন্ট লুসিয়ায় টেস্ট খেলা শেষে সীমিত ওভারের ম্যাচ খেলার জন্য ফেরিতে আটলান্টিক পাড়ি দিতে গিয়ে ভয়ংকর অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয় বাংলাদেশ দল। 

সমুদ্রযাত্রার মাঝপথেই অসুস্থ হয়ে পড়েন পেসার শরিফুল ইসলাম, উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান সোহানসহ তারকা ক্রিকেটাররা। এ সময় বাংলাদেশ দলের প্রত্যেক ক্রিকেটার আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। 

সমুদ্রে বিশাল ঢেউয়ের আতঙ্কে অসুস্থ হয়ে বমি করতে দেখা যায় শরিফুলকে। পাঁচ ঘণ্টার সমুদ্রযাত্রা শেষে ডমিনিকায় কোনো ধরনের দুর্ঘটনা ছাড়াই পৌঁছেছে বাংলাদেশ দল। শনিবার সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টির আগেই এমন ধকলে পড়ে বাংলাদেশ দল। 

বাংলাদেশ দলের এই ভয়ংকর সমুদ্রযাত্রা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সমালোচনার ঝড় বইছে। 

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজাম উদ্দীন চৌধুরীর সুজন বলেন, ভয় পাওয়ার মতোই বিষয়। আবহাওয়া খারাপ থাকার কারণে এটা হয়েছে। ফেরি ছাড়ার পর যখন এমন আবহাওয়ার মধ্যে পড়েছে, তখন আর কিছু করার ছিল না। তাছাড়া আমাদের অনেক খেলোয়াড় এ ধরনের ভ্রমণে অভ্যস্ত নয়। ওদের খেলোয়াড়রা অভ্যস্ত বলে তাদের তেমন সমস্যা হয়নি। 

সুজন আরও বলেন, দলের ফিজিওর সঙ্গে কথা বলেছি, যে তিন-চারজন অসুস্থ হয়েছে তাদের অনেকেই এরই মধ্যে সুস্থ হয়ে গেছে। শুনলাম একটু বিশ্রাম নিলেই ঠিক হয়ে যাবে। আসলে রওনা দিতে হয়েছে ভোর রাতে। রাতের ঘুম না হওয়ায় একটু খারাপ লাগা কাজ করেই। এর সঙ্গে যোগ হয়েছে খারাপ আবহাওয়া।
 
বিসিবির প্রধান নির্বাহী আরও বলেন, এমনটি শোনার পরই ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রধান নির্বাহীর সঙ্গে যোগাযোগ করে তাকে বলেছি, আমাদের খেলোয়াড়দের যেন (মধ্যবর্তী দ্বীপ) মার্টিনেকে নামিয়ে রাখা হয়। সে বলল, ওখানে রাখা যাবে না। ওটা ফ্রেঞ্চ উপনিবেশ। ওখানে নামতে হলে ফ্রান্সের ভিসা লাগবে। সেটা তোমাদের নেই। তখন বুঝলাম এছাড়া আমাদের কোনো উপায় নেই। দল পৌঁছানোর পর আমাকে সে ভিডিও পাঠিয়ে জানাল দল নিরাপদে পৌঁছেছে। 

সুজন আরও বলেন, ওরা ফেরিতে ভ্রমণ করার প্রস্তাব দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে যে আমরা রাজি হয়েছি, তা নয়। ওরা যখন জানাল আর বিকল্প নেই, তখন তাদের (ব্যবস্থার) ওপর নির্ভর করতে হবে। এই ফেরিতে প্রায় ২৫০ জনের বহর গেছে। কোভিডের কারণে বড় ফ্লাইট বন্ধ হয়ে গেছে ওখানে। অনেক এয়ারলাইনস বন্ধ হয়ে গেছে। ফ্লাইট কমে গেছে। বড় বিমান ভাড়া করা যাচ্ছে না। ওরা যখন আমাদের জানিয়েছিল যেহেতু দুই দল একসঙ্গে যাবে, ম্যাচ অফিশিয়ালসহ সম্প্রচারের দায়িত্বে থাকা সবাই একসঙ্গে এভাবে ভ্রমণ করবে, তখন আমরা এটা নিয়ে আপত্তি করিনি। 

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments