‘যে পাখি ঘর বোঝে না’ দিয়ে সংগীতাঙ্গনে পরিচিতি লাভ করেন সংগীতশিল্পী ধ্রুব গুহ। এরপর ধারাবাহিকভাবে বেশকিছু শ্রোতাপ্রিয় গান উপহার দেন। এরইমধ্যে তার হাত ধরেই যাত্রা শুরু হয় অডিও-ভিডিও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ধ্রুব মিউজিক স্টেশনের। অল্প সময়ে সংগীতাঙ্গনে বেশ ভালো গ্রহণযোগ্যতা তৈরি করে প্রতিষ্ঠানটি। সব মিলিয়ে চলতি সময়ে কেমন আছেন? ধ্রুব গুহ উত্তরে বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে কেউই তেমন ভালো নেই। সংগীতাঙ্গনের অবস্থাও ভালো নয়। শিল্পী এবং ধ্রুব মিউজিক স্টেশনের কর্ণধার হিসেবে শ্রোতাদের প্রতি আমার কমিটমেন্ট রয়েছে। শত প্রতিকূলতার মাঝেও কমিটমেন্ট রক্ষা করে চলেছি।

এই ঈদেও আমরা ১২টি গান প্রকাশ করেছি। তাছাড়া এই সময়েও যেন ইন্ডাস্ট্রি চাঙ্গা থাকে সেজন্য আমরা সংগীত প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছি। এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চাই। ধ্রুব গুহ বলেন, এদেশে অনেক প্রতিভা লুকিয়ে আছে, যারা নিজে গান লিখে, নিজে সুর করে এবং নিজেই গায়। কিন্তু সুযোগের অভাবে নিজের সেই প্রতিভার বিকাশ ঘটাতে পারে না। এই অলরাউন্ডারদের জন্য ‘ধ্রুব মিউজিক আমার গান’। প্রতিযোগিতায় সেরা ৩ গান অবলম্বনে নির্মিত হবে নাটক। সেরা দশজনের ১০টি মৌলিক গান প্রযোজনা করবো আমরা। এই সময়ে গানের অবস্থা কেমন দেখছেন? ধ্রুব গুহ বলেন, এখন বিনোদনের মাধ্যম অনেক। তার মাঝে গান একটি। ইউটিউবে এখন অনেক ধরনের কনটেন্ট প্রকাশ হচ্ছে। নাটক, শর্টফিল্ম, ওয়েব সিরিজ, ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান, সংবাদ- কি নেই ইউটিউবে। এর ফলে শ্রোতা-দর্শক এখন ভাগ হয়ে গেছে। আগে যে শ্রোতা গান শুনতেন কিংবা দেখতেন, তিনি এখন অন্য কন্টেন্ট দেখাতেও সময় দিচ্ছেন। তবে আমাদের প্রতিষ্ঠান শুরু থেকে প্রতি সপ্তাহে অন্তত একটি করে গান প্রকাশ করছে। উৎসবগুলোতে বিশেষ আয়োজন তো রয়েছেই। নিজের গানের কি খবর? ধ্রুব গুহ বলেন, নিজের গানও প্রস্তুত হয়ে আছে। হয়তো খুব দ্রুতই ভিডিও করে সেটা প্রকাশ করবো শ্রোতা-দর্শকদের জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

English