Saturday, December 3, 2022
spot_img
Homeখেলাধুলাশ্রীলঙ্কার জালে ১২ গোল মারিয়াদের

শ্রীলঙ্কার জালে ১২ গোল মারিয়াদের

বাংলাদেশ-ভারত ফাইনাল

সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ নারী ফুটবলের ফাইনালে দেখা যাবে বাংলাদেশ-ভারত দ্বৈরথ। রোববার শ্রীলঙ্কাকে গোল বন্যায় ভাসিয়ে ফাইনালে পৌঁছে বাংলাদেশ। কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে লঙ্কানদের বিপক্ষে বিশাল ১২-০ গোলে জয় পায় মারিয়া-তহুরারা। প্রথমার্ধে স্বাগতিকরা এগিয়েছিল ৫-০ গোলে। পরের অর্ধে আরো ৭ গোল হজম করে শ্রীলঙ্কা। রাউন্ড রবিন লীগ তালিকার শীর্ষে থেকেই ফাইনালের টিকিট কাটলো বাংলাদেশ। আসরে চার ম্যাচে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১০ পয়েন্ট। এদিন বল পায়ে হ্যাটট্রিক করেন শাহেদা আক্তার রিপা ও আফেইদা খন্দকার।দুটি করে গোল করেন ঋতুপর্ণা চাকমা ও আনুচিং মোগিনি। বাংলাদেশের বাকি দুই গোল পান আঁখি খাতুন ও উন্নতি খাতুন। আগামী ২২শে ডিসেম্বর শিরোপার লড়াইয়ে নামবে বাংলাদেশ-ভারত।

টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে নেপালের সঙ্গে গোলশূন্য ড্রতে পয়েন্ট খুইয়ে মিশন শুরু করে অধিনায়ক মারিয়া মান্ডার দল। তবে পরের ম্যাচেই ঘুরে দাঁড়িয়ে ভুটানকে ৬-০ গোলে হারায় তারা। এর পর মারিয়ারা গুরুত্বপূর্ণ জয় দেখে শক্তিধর ভারতের বিপক্ষে (১-০)। আসর থেকে ছিটকে যাওয়ার ভয় ছিল ভারতের। শেষ ম্যাচে ভারতের সঙ্গে ড্র করলেই ফাইনালে পৌঁছে যেতো নেপাল। কিন্তু অতিমাত্রার রক্ষণাত্মক ফুটবল খেলার খেসারত দেয় নেপালিরা।

তিন ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে রোববার দিনের প্রথম ম্যাচে মাঠে নামে ভারত। নেপালের ঝুলিতে ছিল ৭ পয়েন্ট। ফাইনালে যেতে নেপালের প্রয়োজন ছিল ১ পয়েন্টের, ভারতের দরকার ছিল জয়। তবে নেপালকে ১-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালে পৌঁছে যায় ভারত। চার ম্যাচে ভারতের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৯ পয়েন্টে। দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচের একমাত্র গোলটি করেন প্রিয়াঙ্কা দেবী। ২০১৮ সালে অনূর্ধ্ব-১৮ বছর বয়সীদের নিয়ে হওয়া প্রতিযোগিতার সেমিফাইনালে টাইব্রেকারে নেপালের কাছে ৩-১ ব্যবধানে হেরে ছিটকে গিয়েছিল ভারত।

ফাইনালে উঠতে ড্র প্রয়োজন ছিল নেপালের। দলটির খেলায় কিছুটা ড্রয়ের মানসিকতাই ফুটে ওঠে। জয়ের জন্য মরিয়া হতে দেখা যায়নি তাদেরকে। ভারতের ভালো একটি সুযোগ নষ্ট হয় ২৪তম মিনিটে; সুমতি কুমারীর শট সরাসরি যায় গোলরক্ষকের গ্লাভসে। ৬৬তম মিনিটে সতীর্থের ছোট পাসে প্রিয়াঙ্কার বাঁ পায়ের প্লেসিং শটে এগিয়ে যায় ভারত। ৭২তম মিনিটে অপূর্ণা নার্জারির উঁচু শট গোলরক্ষকের গ্লাভস গলে বেরিয়ে যাওয়ার পর গোললাইন থেকে ফিরিয়ে ব্যবধান বাড়তে দেননি বিকে বিমল। শেষদিকে ঘুরে দাঁড়াতে কিছুটা আক্রমণাত্মক খেলেছে নেপাল, কিন্তু এগিয়ে থাকা ভারতের মুঠো থেকে ম্যাচ বের করে নিতে পারেনি তারা।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments