Wednesday, July 17, 2024
spot_img
Homeকমিউনিটি সংবাদ USAশীতকালীন ঝড়ে ফ্রস্টবাইটের আশঙ্কা, যুক্তরাষ্ট্রে জরুরি অবস্থা ঘোষণা

শীতকালীন ঝড়ে ফ্রস্টবাইটের আশঙ্কা, যুক্তরাষ্ট্রে জরুরি অবস্থা ঘোষণা

যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডাজুড়ে তাপমাত্রা খুব দ্রুত নামতে থাকায় মাত্র পাঁচ থেকে ১০ মিনিটের মধ্যে অনাবৃত ত্বকে ফ্রস্টবাইট হতে পারে বলে সতর্ক করছেন বিশেষজ্ঞরা। একটি শক্তিশালী আর্কটিক শীতকালীন ঝড়ের কারণে বছরের ব্যস্ততম ছুটির দিনেও আবহাওয়া সতর্কতার মুখে রয়েছে সাড়ে ১৩ কোটির বেশি মানুষ। এ সতর্কতা এক উপকূল থেকে আরেক উপকূল পর্যন্ত, সর্ব দক্ষিণে মার্কিন-মেক্সিকো সীমান্ত এবং সানশাইন রাজ্য ফ্লোরিডা পর্যন্ত জারি করা হয়েছে।

বিবিসি জানিয়েছে, ঝড়ের তীব্রতা বেড়ে যাওয়ায় প্রধান বিমানবন্দরগুলোয় হাজার হাজার ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, এই শৈত্যপ্রবাহের কারণে এবারের বড়দিনে গত কয়েক দশকের মধ্যে সবচেয়ে বেশি তুষার জমতে পারে। ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিস (এনডব্লিউএস) জানিয়েছে যে দেশের কিছু অংশে এই সপ্তাহের শেষ নাগাদ তাপমাত্রা হিমাঙ্কের ৪৫ থেকে ৫৬ ডিগ্রী সেলসিয়াস নিচে পর্যন্ত নেমে আসতে পারে। তারা আরও সতর্ক করেছে যে, আইওয়া অঙ্গরাজ্যের ডেস মোনেসের মতো বড় মেট্রো শহরেরও, ফ্রস্টবাইট বড় বিপদ ডেকে আনতে পারে।

সাধারণত রক্ত প্রবাহ কমে গেলে, প্রায়শই নাক, গাল বা হাত পায়ের আঙ্গুলে ফ্রস্টবাইট হতে পারে। শরীরে উষ্ণ রক্ত প্রবাহের অভাবে ত্বকের টিস্যু জমে গিয়ে ফেটে যেতে পারে এবং কিছু ক্ষেত্রে অঙ্গহানি পর্যন্ত হতে পারে। আবহাওয়াবিদরা বলছেন, শুক্রবারের মধ্যে শীতকালীন ঝড় ‘বোম্ব সাইক্লোন’ হতে পারে। বোম্ব সাইক্লোন বলতে এমন এক ঝড়কে বোঝায় যার প্রকোপ খুব অল্প সময়ের মধ্যে তীব্র থেকে তীব্রতর হয়, এর কেন্দ্রীয় বায়ুচাপ ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কমপক্ষে ২৪ মিলিবার কমে যায়।

বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউসের ব্রিফিংয়ে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, “এটি আপনার ছোটবেলায় দেখা সাধারণ তুষার দিনের মতো নয়, এটি খুবই গুরুতর পরিস্থিতি।” আর্কটিক বায়ু প্রবাহ টেক্সাসের এল পাসোতে তাপমাত্রা মাইনাস ৯.৪ ডিগ্রী সেলসিয়াসে নামিয়ে আনতে পারে, সেইসাথে তীব্র বাতাস বয়ে আনবে বলে ধারণা করা হচ্ছে, যেখানে নতুন আগত অনথিভুক্ত অভিবাসীরা শহরের রাস্তায় যত্রতত্র ঘুমিয়ে আছে।

এল পাসোর প্রধান বাস টার্মিনালের বাইরে ফুটপাতে রাত কাটাচ্ছেন ভেনেজুয়েলার অভিবাসী ডিলান টোরেস রেয়েস। তিনি বিবিসিকে বলেছেন, “এখানে খুব শীত পড়েছে।” ফ্লোরিডায় ৩০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে ঠান্ডা ক্রিসমাস দেখতে যাচ্ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এনডব্লিউএস একে “প্রতি প্রজন্মে একবার” ঘটে, এমন একটি শীতকালীন আবহাওয়ার পরিস্থিতি বলে অভিহিত করেছে। বৃহস্পতিবার তারা জানায় যে শুক্রবার “জীবনের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ এই শীতল বাতাস পূর্ব উপকূলে আঘাত হানতে পারে।”

তুষারপাত এবং প্রবল ঝড়ো বাতাস মধ্য-পশ্চিম এবং কানাডায় বিদ্যুৎ বিভ্রাটের মতো ক্ষতির কারণ হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এনডব্লিউএস সতর্ক করেছে যে আগামী কয়েক দিনের মধ্যে ১০০ দিনের ঠান্ডা তাপমাত্রার সব রেকর্ড ভেঙে ফেলতে পারে। কলোরাডোতে, বৃহস্পতিবার তাপমাত্রা ৫ ডিগ্রী সেলসিয়াস থেকে কমতে কমতে রেকর্ড-ব্রেকিং সর্বনিম্ন মাইনাস ২২ ডিগ্রী সেলসিয়াসে নেমে এসেছে।

ওয়াইওমিং অঙ্গরাজ্যের শায়ান শহর, ৩০ মিনিটের মধ্যে তাপমাত্রা ৬ ডিগ্রী সেলসিয়াস থেকে মাইনাস ১৬ ডিগ্রী সেলসিয়াসে নেমে এসেছে। একে ঘণ্টার ব্যবধানে তাপমাত্রা সবচেয়ে দ্রুত হ্রাসের রেকর্ড বলা হচ্ছে। পশ্চিমের রাজ্যগুলোর অন্যান্য স্থানেও, তাপমাত্রা কমতে কমতে মাইনাস ৩৭ ডিগ্রী সেলসিয়াসে নেমে এসেছে। প্রতিবেশী মন্টেনাতেও কয়েক দফা সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ড গড়েছে।

উত্তর ডাকোটা এবং দক্ষিণ ডাকোটা দুটি স্থানেই ব্যাপক তুষারঝড় আঘাত হেনেছে৷ শিকাগোতে, শীতকালীন ঝড়ের সতর্কতা শনিবার পর্যন্ত কার্যকর রয়েছে, এর সাথে কয়েক ইঞ্চি পুরু তুষারপাত এবং ঘণ্টায় ৮০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ো বাতাস বইছে। কানাডায়, অন্টারিওর বেশিরভাগ অংশ এবং কুইবেকের কিছু অংশেও বড় শীতকালীন ঝড় বয়ে যেতে পারে যা ক্রিসমাসের পুরো ছুটি জুড়ে স্থায়ী হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ফ্লাইট-ট্র্যাকিং সাইট ফ্লাইটএওয়্যার অনুসারে, বৃহস্পতিবার এবং শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রে ৫,৩০০টিরও বেশি ফ্লাইট ইতিমধ্যে বাতিল করা হয়ে গিয়েছে। ভ্রমণে বিঘ্ন ঘটতে পারে এমন আশঙ্কায়, ইউনাইটেড, ডেল্টা এবং আমেরিকানসহ প্রধান এয়ারলাইন্সগুলো তাদের ফ্লাইট রি-শিডিউল বা পুনঃনির্ধারন করতে ইচ্ছুক যাত্রীদের জন্য ফি মওকুফ করার প্রস্তাব দিয়েছে। ভারী কুয়াশার কারণে কিছু দৃশ্যমান না হওয়ায় বুধবার কলোরাডো-ওয়াইওমিং সীমান্তের রাস্তাঘাট বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল।

কেনটাকি, নর্থ ক্যারোলাইনা, ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া, নিউ ইয়র্ক, জর্জিয়া এবং ওকলাহোমা রাজ্যের গভর্নররা নিজ নিজ অঙ্গরাজ্যে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন। আবহাওয়ার কারণে উইসকনসিন অঙ্গরাজ্য “জ্বালানি জরুরি অবস্থা” ঘোষণা করেছে। অন্যান্য রাজ্য, যেমন মেরিল্যান্ডে, ঝড়ের আগেই জরুরি পরিস্থিতি মোকাবিলায় যাবতীয় প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে। অন্যরা ওয়ার্মিং শেল্টার বা উষ্ণায়ন আশ্রয়কেন্দ্র খুলেছে। সূত্র: বিবিসি।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments