Tuesday, July 16, 2024
spot_img
Homeখেলাধুলারিয়ালকে হারালেন সেই এমবাপ্পেই

রিয়ালকে হারালেন সেই এমবাপ্পেই

রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দেওয়ার স্বপ্ন তার বহুদিনের, এ কথা নতুন নয়। এই আশাতেই পিএসজির সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করেননি, হয়তো করবেনও না। আগামী জুনে পিএসজির সঙ্গে চুক্তির বেড়াজাল থেকে মুক্ত হয়েই গায়ে চড়াবেন রিয়ালের দুধসাদা জার্সি, এমনটাই ধরে নিয়েছেন মোটামুটি সবাই। কিন্তু তা সেই জুনের কথা। তার আগে এমবাপ্পে তো পিএসজিরই খেলোয়াড়! সেটাই সবাইকে যেন চোখে আঙুল দিয়ে বুঝিয়ে দিলেন কিলিয়ান এমবাপ্পে। বুঝিয়ে দিলেন পেশাদারত্ব কি জিনিস। ম্যাচের একদম শেষ মূহুর্তে এই ফরাসি ফরোয়ার্ডের গোলেই চ্যাম্পিয়নস লিগের রাউন্ড অব সিক্সটিনের প্রথম লেগে রিয়াল মাদ্রিদকে ১-০ গোলে হারিয়েছে পিএসজি।
ম্যাচের শুরুতে সবচেয়ে বড় আলোচনা ছিল নেইমার আর বেনজেমাকে নিয়েই। অক্টোবরের শেষ সপ্তাহে চোট নিয়ে মাঠের বাইরে ছিটকে গিয়েছিলেন পিএসজির ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমার। চোটে পড়া নেইমার পুনর্বাসনের জন্য চলে গিয়েছিলেন ব্রাজিলে। সেখান থেকে প্যারিসে আগেই ফিরেছিলেন। পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে গিয়ে টানা দুই দিন দলের সঙ্গে অনুশীলনও করেছেন। এমবাপ্পে, মেসি আর ডি মারিয়ার সঙ্গে কোচ মরিসিও পচেত্তিনো নেইমারকে শুরু থেকে মাঠে নামিয়ে দেন কি না, আলোচনা ছিল।
একই রকম আলোচনা ছিল রিয়াল মাদ্রিদের ফরাসি তারকা করিম বেনজেমার খেলা, না খেলা নিয়ে। চোটে পড়া বেনজেমা ম্যাচের আগে পুরোপুরি সুস্থ হয়ে ওঠেননি, এমনটাও শোনা যাচ্ছিল রিয়ালের ডাক্তাররা কোচ আনচেলত্তিকে পরামর্শ দিয়েছিলেন দীর্ঘমেয়াদি ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে বেনজেমাকে যেন না খেলানো হয়। কিন্তু কীসের কী! ডাক্তারের পরামর্শ অগ্রাহ্য করেই এই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মাঠে নামবেন বেনজেমা, খবর এসেছিল। সে খবরটাই সত্যি হলো রিয়ালের মূল একাদশ ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে। বেনজেমা শুরু থেকে খেললেও, নেইমার খেলেননি।
অবশ্য মেসি-এমবাপ্পে-ডি মারিয়াময় আক্রমণভাগে তাঁকে শুরু থেকে জোর করে নামানোর কোনো দরকারও ছিল না। মেসিরা বেশ ভালোভাবেই প্রথম থেকে রিয়ালের ওপরে ছড়ি ঘুরিয়েছেন। শুধু গোলটাই আসছিল না। পিএসজির মাথায় চিন্তায় ভাঁজ আরও বাড়িয়ে দেয় ৬২ মিনিটে মেসির পেনাল্টি মিস। পেনাল্টি বক্সে রিয়ালের কারভাহাল এমবাপ্পেকে ফাউল করলে পেনাল্টি পায় পিএসজি। সেখান থেকে গোল করতে পারেননি আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। দুর্দান্তভাবে মেসির পেনাল্টি আটকে দেন থিবো কর্তোয়া। বার্সেলোনার জার্সি গায়ে যে রিয়ালের বিপক্ষে গোল করার ব্যাপারটাকে এক রকম অভ্যাসে পরিণত করেছিলেন, পিএসজির জার্সি গায়ে তেমনটা দেখা গেল কই?
কিন্তু মেসি না পারলে কী হয়েছে? এমবাপ্পে যে ছিলেন! যেন রিয়াল মাদ্রিদ আগে থেকে জানত না তার সামর্থ্যরে ব্যাপারে, যে রিয়ালকে চোখে আঙুল দিয়ে বুঝিয়ে দিলেন তিনি কেমন খেলোয়াড়। নব্বই মিনিটের পর যোগ করা সময়ের খেলা হয়েছে আরও চার মিনিট। ওই চার মিনিটের সাড়ে তিন মিনিটের মাথায় নেইমারের ব্যাকহিল থেকে বল পেয়ে বক্সের বাঁ পাশ দিয়ে বিপজ্জনকভাবে ঢুকে যান এই ফরাসি ফরোয়ার্ড। গতির ঝলকে ছিটকে দেন রিয়ালের দুই খেলোয়াড় লুকাস ভাসকেজ আর এদের মিলিতাওকে। বাকিটা শুধু ডান পায়ের দুর্দান্ত প্লেসমেন্টের ‘কারসাজি’, আর তাতেই পুরো তিন পয়েন্ট পিএসজির!
ওদিকে রাতের আরেক শেষ ষোলর ম্যাচে স্পোর্তিং লিসবনকে ৫-০ গোলে হারিয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। নিজের জন্ম শহরে ফেরার উপলক্ষ জোড়া গোল করে রাঙিয়েছেন বের্নার্দো সিলভা। সঙ্গে ফিল ফোডেন আর রিয়াদ মাহরেজের এক গোল মিলিয়ে ৪-০ গোলে এগিয়ে বিরতিতে যায় ম্যানচেস্টার সিটি। দ্বিতীয়ার্ধে রহিম স্টার্লিংয়ের গোলটা শুরু ব্যবধানই বাড়িয়েছে।
চ্যাম্পিয়নস লিগের ডামাডোলে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগেরও গুরুত্বপূর্ণ এক ম্যাচ ছিল একই রাতে। মেসিরা যেখানে খেলতে নেমেছিলেন, সেই প্যারিস থেকে প্রায় ৮১৬ কিলোমিটার দূরে ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডে ব্রাইটনের বিপক্ষে খেলতে নেমেছিলেন রোনালদোরা। মেসি প্যারিসে পেনাল্টি মিস করলেও ওল্ড ট্রাফোর্ড রেঙেছে রোনালদোর রঙে। রোনালদো আর ব্রæনো ফার্নান্দেসের গোলে ব্রাইটনকে ২-০ গোলে হারিয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। কিন্তু রোনালদো বা মেসি নন। এই রাতটা ফুটবলপ্রেমীদের কাছে ভাস্বর হয়ে থাকবে এক এমবাপ্পের জন্যই! আগামী ৯ মার্চ হবে ফিরতি লেগ।
পিএসজি ১-০ রিয়াল মাদ্রিদ
লিসবন ০-৫ ম্যানসিটি

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments