Sunday, June 16, 2024
spot_img
Homeজাতীয়রণক্ষেত্র রাবি, গুলিবিদ্ধ ১৫ শিক্ষার্থী, আইসিইউতে একজন, রেললাইন অবরোধ, বিজিবি মোতায়েন

রণক্ষেত্র রাবি, গুলিবিদ্ধ ১৫ শিক্ষার্থী, আইসিইউতে একজন, রেললাইন অবরোধ, বিজিবি মোতায়েন

রাজশাহী বিশ্বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে স্থানীয়দের সংঘর্ষে রণক্ষেত্রে পরিণত হয় বিনোদপুর বাজার এলাকা। সংঘর্ষ চলাকালে পুলিশের এলাপাতাড়ি রাবার বুলেটে আহত হয়েছেন ১৫ জন শিক্ষার্থী। তাদেরকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এরমধ্যে এক শিক্ষার্থীর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে আইসিইউতে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে রেললাইন অবরোধ করে আন্দোলন করছে শিক্ষার্থীরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ক্যাম্পাস এলাকায় বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে।

শনিবার (১১ মার্চ) সন্ধ্যার দিকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বাস ড্রাইভারের সঙ্গে কথা কাটাকাটি ও স্থানীয়দের সঙ্গে হাতাহাতির ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঘটনার সূত্রপাত হয়। রাত ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বিনোদপুর বাজারে অগ্নিসংযোগের সময় এই গুলির ঘটনা ঘটে।

পরিস্থিতি শান্ত করতে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে এলোপাতাড়ি রাবার বুলেট ও টিয়ার শেষ নিক্ষেপ করতে থাকে। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের প্রায় প্রায় ১৫ জন শিক্ষার্থীর গায়ে গুলি লাগে। গুরুতর অবস্থায় তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ প্রশাসক অধ্যাপক ড. প্রদীপ কুমার পাণ্ডে। 

তিনি বলেন, আহত শিক্ষার্থীদের মধ্যে আছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

তাদেরকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের জরুরি বিভাগে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আশঙ্কাজনক এক শিক্ষার্থী আইসিইউতে ভর্তি আছেন।

এদিকে পুলিশের শিক্ষার্থীদের ওপর গুলি করার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলায় সংলগ্ন রেললাইন অবরোধ করে আন্দোলন করছে। যার ফলে ঢাকাগামী ধুমকেতু এক্সপ্রেস ট্রেনটি ১১টা ২০ মিনিটে ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত তা ছেড়ে যায়নি। 

এদিকে সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান সিটি মেয়র এ.এইচ.এম. খায়রুজ্জামান লিটন, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যসহ কর্মকর্তারা। উপাচার্য গোলাম সাব্বির সাত্তার মাইক নিয়ে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘তোমাদের প্রতি অনুরোধ তোমরা হলে ফিরে যাও। তোমাদের জন্য প্রশাসন সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করছে। রুমে যাও তোমরা। এ ঘটনায় প্রশাসন ব্যবস্থা নিচ্ছে। এদিকে অনিবার্য কারণ দেখিয়ে আগামী ১২ ও ১৩ মার্চ সকল ক্লাস-পরীক্ষা স্থগিত করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তবে ক্লাস পরীক্ষা চলমান রাখতে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করছেন প্রশাসনের বিরুদ্ধে।

ঘটনার সূত্রপাত যেভাবে
বগুড়া থেকে একটি বাসে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে আসছিলেন সমাজবিজ্ঞান বিভাগের মোহাম্মদ নামের এক ছাত্র। যাত্রাপথে ভাড়া নিয়ে তার সঙ্গে বাসের সুপারভাইজার ও হেলপারের বাগবিতণ্ডা হয়। গতকাল সন্ধ্যার দিকে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিনোদপুর গেটে বাস থেকে কাউন্টারে এসে বিষয়টি নিয়ে কথা বললে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা-কাটাকাটিতে জড়িয়ে পড়েন। পরে তা সংঘর্ষে রূপ নেয়।

শিক্ষার্থীদের সঙ্গে স্থানীয়দের সংঘর্ষ শুরু হলে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বিনোদপুর বাজার রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা অন্তত ২৫-৩০টি দোকানে অগ্নিসংযোগ করে।

সংঘর্ষের ঘটনায় পাঁচ সাংবাদিকসহ তিন শতাধিক শিক্ষার্থী আহত হন। তাদেরকে বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

সংঘর্ষের একপর্যায়ে মহাসড়কের দুপাশ থেকে স্থানীয় এবং শিক্ষার্থীদের মধ্যে ইটপাটকেল নিক্ষেপ চলতে থাকে। এ ঘটনায় বহু শিক্ষার্থী হতাহত হয়েছে। এরপর পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে এলেও রাত সাড়ে ১০টার দিকে শিক্ষার্থীরা ফের দোকান ভাঙচুর করলে পুলিশ টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করলে শিক্ষার্থীরা পিছু হটে। তবে ১৫ জন শিক্ষার্থীর শরীরের বিভিন্ন জায়গায় গুলি লেগে গুরুতর আহত হয়। তাদেরকে অ্যাম্বুলেন্সে করে রামেকে ভর্তি করা হয়।

বিজিবি মোতায়েন
ওদিকে রাবির বিনোদপুর জামতলা গেটে স্থানীয় ও রাবি শিক্ষার্থীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় সাত প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। রাত ১১টার দিকে রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল গণমাধ্যমকর্মীদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত বিজিবি মোতায়েন থাকবে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments