Sunday, May 19, 2024
spot_img
Homeআন্তর্জাতিকযোগীরাজ্যে মুসলিম ভোটারদের সঙ্গে অভব্যতার অভিযোগে চাঞ্চল্য

যোগীরাজ্যে মুসলিম ভোটারদের সঙ্গে অভব্যতার অভিযোগে চাঞ্চল্য

বোরখা পরিহিতদের ভোটদানে বাধা বিহার ছাড়া প্রতিটি রাজ্যে ৫০ শতাংশের বেশি টার্নআউট

প্রথম দফার লোকসভা ভোটে বিক্ষিপ্তভাবে অশান্তির খবর পাওয়া গেছে উত্তর প্রদেশ থেকে। যোগীরাজ্যে পুলিশ এবং বুথকর্মীদের বিরুদ্ধে মুসলিম ভোটারদের বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। সমাজবাদী পার্টির পক্ষ থেকে উত্তর প্রদেশের একাধিক মুসলিম অধ্যুষিত কেন্দ্রে বিজেপি কর্মী এবং পোলিং এজেন্টদের বিরুদ্ধে মুসলিম ভোটারদের সঙ্গে অভব্যতার অভিযোগ তোলা হয়েছে।

লোকসভা নির্বাচনের ২০২৪-এর প্রথম ধাপের ভোট গতকাল ২১টি রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল জুড়ে ১০২টি সংসদীয় কেন্দ্র জুড়ে শুরু হয়েছে। এতে বিহার (৪৭.৭৪) ছাড়া প্রতিটি রাজ্যে ৫০ শতাংশের ওপর ভোট পড়েছে।
বিক্ষিপ্ত অশান্তির খবর মিলেছে যোগী রাজ্যে। মুসলিম অধ্যুষিত আসন কৈরানা এবং রামপুর লোকসভা কেন্দ্রে অশান্তির অভিযোগ ওঠে। বোরখা পরিহিত মহিলা ভোটারদের হেনস্থা করা হচ্ছে বলে শোরগোল পড়ে যায়। অভিযোগ, বোরখা পরিহিত কয়েকজন মহিলা মুসলিম ভোটারদের সচিত্র পরিচয়পত্র যাচাই করার নাম করে হেনস্থা করা হয়। পোলিং এজেন্টি কয়েকজন মহিলা মুসলিম ভোটারদের ভোটদান প্রক্রিয়া বাধা দেয় বলে অভিযোগ। মহিলা নিরাপত্তারক্ষী মারফত বারবার বোরখা পরিহিতদের পরিচত্র যাচাই করা হয়। কৈরানা লোকসভা আসনে ভোটারদের ভোট দিতে বাধাদান করার অভিযোগ ওঠে। সমাজবাদী পার্টির প্রার্থী ইকরা হুসেন এবং বিজেপি প্রার্থী প্রদীপ চৌধুরীর মধ্যে কথা কাটাকাটি হয় এই মর্মে। সমাজবাদী পার্টির তরফে অভিযোগ, কৈরানা লোকসভার গঙ্গোহের সাত নম্বর বুথে ভোটকর্মীরাই মুসলিম মহিলা ভোটারদের ভোটদানে বাধা দিচ্ছে। এ ছাড়াও শ্যামলীতে ৪৪৭ নম্বর বুথে মুসলিম ভোটারদের সঙ্গে পুলিশ অভদ্র আচরণ করছে বলেও অভিযোগ তোলে সমাজবাদী পার্টি। এই এলাকারই ২৪০ নম্বর বুথে একাধিক মুসলিম ভোটারদের নাম তালিকা থেকে গায়েব বলেও অভিযোগ।

অন্যদিকে, রামপুর লোকসভা আসনে সমাজবাদী পার্টির তরফে বিস্তর অভিযোগ জমা পড়ছে নির্বাচন কমিশনে। আজম খানের গড়ে এবার অখিলেশ যাদবের দলের পক্ষ থেকে প্রার্থী দেওয়ায় সমর্থকদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ রয়েছে। এলাকার একাধিক ভোটে মুসলিম ভোটারদের ভোটদানে বাধা দেওয়ার অভিযোগ তুলেছে সমাজবাদী পার্টি। রামপুর লোকসভা কেন্দ্রের চামরোয়া এলাকার ৮২ নম্বর বুথে পুলিশ সমাজবাদী পার্টির এজেন্টকে জোর করে থানায় তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ তুলেছে। চামরোয়া এলাকার ১৮২, ১৮৩, ১৮৫ নম্বর বুথে পুলিশ মুসলিমদের ভোটদানে বাধা দেয় বলে অভিযোগ।

সমাজবাদী প্রার্থী হরেন্দ্র মালিক মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিককে চিঠি লিখেছেন। বিজেপি প্রার্থী ডা. সঞ্জীব বালিয়ার গ্রাম কুটুম্বিতে বুথ দখলের অভিযোগ তোলা হয়েছে বিজেপি কর্মীদের বিরুদ্ধে। এ ছাড়াও বীজনোর লোকসভা কেন্দ্রে ৯২ নম্বর বুথে ভোটারদের সঙ্গে অভদ্রতার অভিযোগ উঠেছে। মুরাদাবাদ লোকসভা কেন্দ্রের ঠাকুরদ্বারায় ৮৪৭ নম্বর বুথেও মুসলিম ভোটারদের আটকে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ বিজেপি-র বিরুদ্ধে। লোকসভা ভোটে অবাধ ও শান্তিপূর্ণ ভোটের চ্যালেঞ্জ নিয়েছিল নির্বাচন কমিশন। তা সত্ত্বেও দেশের একাধিক এলাকা থেকে প্রথম পর্বের বিক্ষিপ্ত অশান্তির খবর পাওয়া গেল। সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments