Friday, April 19, 2024
spot_img
Homeকমিউনিটি সংবাদ USAমৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা পেলেন সিরিয়াল কিলার

মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা পেলেন সিরিয়াল কিলার

মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের টেবিলে শুইয়ে ফিতা দিয়ে আটকে দেয়া হয়েছে সিরিয়াল কিলার হিসেবে অভিযুক্ত থমাস ক্রিচ’কে। এরপরই চলতে থাকে তার শরীরে প্রাণঘাতী ওষুধ প্রবেশ করানোর জন্য আইভি লাইন স্থাপন। কিন্তু তার কোনো শিরা খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। ফলে বার বার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু কোনোভাবেই সফল হচ্ছিলেন না সংশ্লিষ্টরা। ফলে ইঞ্জেকশন প্রয়োগের মাধ্যমে তার মৃত্যুদণ্ড শেষ পর্যন্ত স্থগিত করা হয়। বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের ইডাহো রাজ্যে এ ঘটনা ঘটে। জেল কর্তৃপক্ষ বলেছে, বুধবার ৭৩ বছর বয়সী থমাসের শরীরে শিরা খুঁজে পেতে এক ঘণ্টা চেষ্টা করা হয়। ইডাহো ডিপার্টমেন্ট অব কারেকশন্স (আইডিওসি) পরিচালক হোশ তেওয়াল্ট বলেন, থমাস ক্রিচের বাহুতে এবং পায়ে আটবার চেষ্টা করা হয় ইঞ্জেকশন দেয়ার জন্য শিরা খুঁজে পেতে। কিন্তু প্রতিবারই ব্যর্থ হয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

ইডাহো ম্যাক্সিমাম সিকিউরিটি ইনস্টিটিউশনের দক্ষিণে রাজ্যের রাজধানী বোইসে’তে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, সময়সীমা বা পরবর্তী করণীয় কি হবে সে সম্পর্কে আমাদের কোনো ধারণা নেই।

সামনের দিনগুলোতে এসব নিয়ে আলোচনা করবো। স্থানীয় কেটিভিবি টিভি স্টেশনের সাংবাদিক ব্রেন্ডা রড্রিগুয়েজ বলেছেন, এ প্রক্রিয়া চালানোর কোনো পর্যায়ে গুরুতর বেদনা বোধ করেননি থমাস ক্রিচ। তবে তিনি প্রক্রিয়া চালানোর এক পর্যায়ে চিকিৎসকদের বলেছিলেন, তার পায়ে বেশ ব্যথা করছে। একদম শেষ মুহূর্তে মৃত্যুদণ্ড যখন স্থগিত হলো, তখন থমাস ক্রিচ উপরের দিকে তাকিয়ে ছিলেন। মৃত্যুদণ্ড কার্যকর প্রত্যক্ষ করতে চারজন প্রত্যক্ষদর্শীকে নেয়া হয়েছিল। তার মধ্যে ব্রেন্ডা রড্রিগুয়েজ অন্যতম। তিনি বলেন, থমাস ক্রিচ মুখে কিছু শব্দ করছিলেন। তবে তা তার মুখ থেকে বেরিয়ে আসছিল না। তাকে দেখে মনে হয়েছে, তিনি স্বস্তিতে আছেন। অভিযুক্ত থমাস ক্রিচ কমপক্ষে ৪০ বছর ধরে মৃত্যুদণ্ড মাথায় নিয়ে আছেন। ইডাহোতে গত ১২ বছরের মধ্যে তাকেই প্রথম ইঞ্জেকশন প্রয়োগ করে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হচ্ছিল। ১৯৮১ সালে নিজের সেলমেটকে হত্যার দায়ে তাকে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়। অন্য ৫টি মামলায় তাকে অভিযুক্ত করার সময় তিনি ছিলেন জেলবন্দি। এ ছাড়া তার বিরুদ্ধে আছে কয়েক ডজন হত্যা মামলা।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments