Monday, November 28, 2022
spot_img
Homeনির্বাচিত কলামমালয়েশিয়ার শ্রমবাজার: প্রটোকল অনুযায়ী শ্রমিক প্রেরণ নিশ্চিত করুন

মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার: প্রটোকল অনুযায়ী শ্রমিক প্রেরণ নিশ্চিত করুন

মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী দাতুক সেরি এম সারাভানানকে সব ধরনের প্রটোকল বজায় রেখে মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি শ্রমিক পাঠানোর আশ্বাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দেশটিতে জনশক্তি রপ্তানিতে এর ইতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে আমাদের বিশ্বাস।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নেওয়া বন্ধ করে দেয় মালয়েশিয়া। এরপর ২০২১ সালের ১৯ ডিসেম্বর মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠাতে একটি সমঝোতা স্মারক সইয়ের পর এক মাসের মধ্যে কর্মী পাঠানোর কথা থাকলেও সিন্ডিকেট ইস্যুতে গত ছয় মাস ধরে তা ঝুলে ছিল।

মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী অভিবাসন খরচ ‘জিরো’তে রাখা এবং এক্ষেত্রে কোনো রিক্রুটিং এজেন্সি নিয়মভঙ্গ করলে তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বললেও মালয়েশিয়ার জনশক্তি রপ্তানিতে ২৫ এজেন্সির সিন্ডিকেট ২৫ হাজার কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেছে জনশক্তি রপ্তানিকারকদের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্সিজের (বায়রা) সম্মিলিত সমন্বয় ফ্রন্ট। তাদের মতে, এর আগেও সিন্ডিকেটের সদস্যরা অতিরিক্ত ফি আদায় করেছেন। এ কারণে জনশক্তি রপ্তানিতে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

সংগঠনটি কর্মী প্রেরণে সব বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সির জন্য বাজার উন্মুক্ত করার দাবি জানিয়েছে। জানা গেছে, আগামী ১ বছরে মালয়েশিয়ার অর্থনৈতিক খাতে বাংলাদেশ থেকে কমপক্ষে দুই লাখ কর্মী নেওয়া হবে। পাশাপাশি সিকিউরিটি পারসোনাল ও ডোমেস্টিক ওয়ার্কার্স পদেও কর্মী নেওয়া হবে। উল্লেখ্য, এসব খাত এখনো বাংলাদেশের জন্য উন্মুক্ত হয়নি।

অতীতে বৈধভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার সুযোগ না পেয়ে অনেকে অবৈধ পন্থায় ঝুঁকি নিয়ে দেশটিতে যাওয়ার চেষ্টা করেছে। সেসময় মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়া থেকে অনেক অবৈধ অভিবাসীকে উদ্ধার করা হয়। থাইল্যান্ডের গহিন অরণ্যে অবৈধ অভিবাসন প্রত্যাশীদের গণকবরও আবিষ্কৃত হয়েছে। অবৈধভাবে গমনের কারণে বহির্বিশ্বের সম্ভাবনাময় অনেক শ্রমবাজার এদেশীয় শ্রমিকদের জন্য নিষিদ্ধ জোনে পরিণত হয়েছিল। অবশেষে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার উন্মুক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে পরিস্থিতির উন্নতি ঘটবে বলে আমাদের বিশ্বাস।

আমরা জানি, প্রবাসী আয়ের কারণে দেশের অর্থনীতি শক্ত অবস্থানে রয়েছে। তবে এ অবস্থার পরিবর্তন ঘটতে কতক্ষণ? তাই বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নতুন শ্রমবাজার খোঁজার পাশাপাশি চলমান শ্রমবাজারগুলোয় নিজেদের অবস্থান সুদৃঢ় করা জরুরি। অথচ এ ক্ষেত্রে আমরা ব্যর্থতার পরিচয় দিচ্ছি, যা মোটেই কাম্য নয়। বলার অপেক্ষা রাখে না, এতে একদিকে যেমন বিদেশ গমনে আগ্রহীদের মনে ক্ষোভ, হতাশা দানা বাঁধছে, অন্যদিকে দেশ বঞ্চিত হচ্ছে বিপুল অঙ্কের বৈদেশিক মুদ্রা আয়ের সুযোগ থেকে।

তাছাড়া বৈধভাবে বিদেশ যাওয়ার অনেক পথ রুদ্ধ হয়ে যাওয়ায় অনেকেই নানা মাধ্যমে অবৈধ উপায়ে বিদেশে যাওয়ার চেষ্টা করছে। এতে মানুষ নানাভাবে প্রতারণা ও হয়রানির শিকার হচ্ছে। প্রতারকদের কবলে পড়ে বিদেশ গমনেচ্ছুরাই কেবল সর্বস্বান্তই হচ্ছে না, এর ফলে দেশও অপরিমেয় ক্ষতির মুখে পড়ছে।

এ বাস্তবতা সামনে রেখে দক্ষ জনবল গড়ে তোলার পাশাপাশি মালয়েশিয়ায় জনশক্তি রপ্তানির ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী সব ধরনের প্রটোকল বজায় রেখে শ্রমিক পাঠানো নিশ্চিত করা হবে, এটাই প্রত্যাশা।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments