Monday, May 16, 2022
spot_img
Homeনির্বাচিত কলামমহাসড়কের পাশে হাটবাজার

মহাসড়কের পাশে হাটবাজার

যানবাহনের বাধাহীন চলাচল নিশ্চিত করতে হবে

মহাসড়ক বা হাইওয়ে হওয়ার কথা নির্বিঘ্ন যোগাযোগের ধমনির মতো। কিন্তু দেশে অনেক মহাসড়কের পাশে হাটবাজারের মতো প্রতিবন্ধক তৈরি হয়েছে।

দেখা যাচ্ছে, দুর্ঘটনা কমানো এবং যানবাহনের নির্বিঘ্ন চলাচল নিশ্চিত করতে বাজার এড়িয়ে বাইপাস তৈরি করা হলে সেই বাইপাস ঘিরেও গড়ে উঠছে হাটবাজার।

বাস্তবসম্মত ও কার্যকর পদক্ষেপের অভাবে মহাসড়কগুলো কার্যত মহাসড়ক হয়ে উঠতে পারছে না। বর্তমানে সারা দেশের জাতীয় ও আঞ্চলিক মহাসড়কের পাশে ছোট-বড় হাজার হাজার দোকান নিয়ে কয়েকশ স্থায়ী, অস্থায়ী ও অবৈধ হাটবাজার গড়ে উঠেছে, যা মহাসড়কের ‘বিষফোড়ায়’ রূপ নিয়েছে।

এসব হাটবাজারকেন্দ্রিক বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের কারণে যানবাহনের গতি কমে যাচ্ছে। এছাড়া যত্রতত্র মানুষের রাস্তা পারাপারের কারণে ঘটছে দুর্ঘটনা, বাড়ছে যানজট। এতে একদিকে আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে, অন্যদিকে হচ্ছে সময়ের অপচয়। কাজেই এ অবস্থার পরিবর্তন জরুরি।

বিভিন্ন সময়ে মহাসড়কসংলগ্ন দোকানপাট উচ্ছেদ করা হলেও কিছুদিন পরই তা আগের অবস্থায় ফিরে গেছে। এ ধরনের নিষ্ফল অভিযানের কারণে দখলদাররা আরও বেশি উৎসাহিত হয়। মহাসড়কের পাশে যে কোনো ধরনের স্থাপনা নির্মাণ আইন ও নৈতিকতার পরিপন্থী। কিন্তু তারপরও থেমে নেই স্থাপনা নির্মাণের প্রবণতা। মহাসড়কগুলো যাতে স্থানীয় সড়কের মতো হয়ে না যায়, সেজন্য যথাযথ পদক্ষেপ নিতে হবে। তা না হলে দেশের টেকসই উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হবে। স্থানীয় লোকেরা মহাসড়কে যানবাহনের চলাচলকে কাজে লাগিয়ে নানারকম অবৈধ বাণিজ্যও করতে চায়। এসব সমস্যার সমাধানে স্থানীয় প্রশাসনকে যথাযথ পদক্ষেপ নিতে হবে। এক্ষেত্রে লক্ষ রাখতে হবে, স্থানীয় প্রভাবশালী কোনো ব্যক্তি যেন অবৈধ দখলদারদের পক্ষে কাজ করতে না পারে।

বস্তুত মহাসড়কের উপর বা পাশে হাটবাজার বসানোর কোনো সুযোগ নেই। বাধাহীনভাবে গাড়ি চলার ক্ষেত্রে অন্তরায় সৃষ্টি হলে সেই সড়ককে মহাসড়ক বলা যায় না। মহাসড়কে চাইলেই যে কোনো যানবাহনের প্রবেশের সুযোগ থাকার কথা নয়। যেহেতু এ সড়কে গাড়ি চলে উচ্চগতিতে ও বাধাহীনভাবে, সেহেতু সেখানে অযান্ত্রিক যানবাহন প্রবেশেরও সুযোগ থাকা উচিত নয়।

কিন্তু বাস্তবে লক্ষ করা য়ায়, মহাসড়কের যত্রতত্র অযান্ত্রিক যানবাহন চলাচল করছে। এসব বন্ধ করা জরুরি। সম্প্রতি মহাসড়ক নিয়ে একটি আইন হয়েছে। সেই আইন বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট সবাই দায়িত্বশীলতার পরিচয় না দিলে এ সমস্যা থেকে সহজে পরিত্রাণ মিলবে কিনা, সে বিষয়ে সন্দেহ থেকেই যায়।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments