Saturday, March 2, 2024
spot_img
Homeআন্তর্জাতিক'মন্দির ভাঙতে বলেছিলেন জাভেদ আখতারের পূর্বপুরুষ'!

‘মন্দির ভাঙতে বলেছিলেন জাভেদ আখতারের পূর্বপুরুষ’!

তীব্র প্রতিবাদ জাভেদ-শাবানার

সরকারবিরোধী অবস্থানের জন্য সব সময়ই বিতর্কে নাম জড়ায় জাভেদ আখতার ও তাঁর পরিবারের। আবার একবার কাঠগড়ায় এই বর্ষীয়ান কবি ও গীতিকার। সোশ্যাল মিডিয়া ট্রোলিংয়ের কড়া জবাবও দিলেন জাভেদ-শাবানা। ঘটনার সূত্রপাত্র বর্তমানে ভারতের আলোচিত ইস্যু, ‘বুল্লিবাই’ অ্যাপ বিতর্ক।

‘বুল্লিবাই’ ইস্যুতে তোলপাড় দেশ। এই অ্যাপে প্রচুর মুসলিম নারীকে ‘নিলামের’ জন্য নথিভুক্ত করা হয়। ব্যবহার করা হয় তাঁদের ছবি। এই বিষয় নিয়ে প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে টার্গেট করেন জাভেদ আখতার। এক বছরের মধ্যে দুবার এ ধরনের ঘটনা ঘটল বলে উল্লেখ করেন জাভেদ আখতার। এর পরও চুপ কেন প্রধানমন্ত্রী? প্রশ্ন আখতারের। 

এ ব্যাপারে গত মাসে হরিদ্বারে অনুষ্ঠিত ‘ধর্ম সংসদ’ প্রসঙ্গও টেনে আনেন ৭৬ বছর বয়সী গীতিকার। সেখানে মুসলিমবিরোধী মন্তব্য করেছিলেন সাধুরা। যার জেরে সোশ্যাল মিডিয়ায় রোষের মুখে পড়েন জাভেদ। অহেতুক হরিদ্বারের ‘ধর্ম সংসদ’ বিতর্ক এখানে টেনে আনছেন জাভেদ আখতার—দাবি তোলে নেটিজেনদের একাংশ। কেউ কেউ আবার জাভেদ আখতারকে তুলোধুনা করতেও ছাড়েনি।

এক ব্যক্তি দাবি করেন, জাভেদ আখতারের প্রপিতামহ মন্দির ভাঙার নির্দেশ দিয়েছিলেন। হু হু করে ছড়িয়ে পড়ে সেই টুইট। সেখানে বলা হয়, জাভেদ আখতারের প্রপিতামহ মৌলানা ফজলে হক খৈরাবাদী ১৮৫৫ সালে ফতোয়া জারি করেন হনুমান গারি মন্দির ভেঙে ফেলতে এবং ব্রিটিশরা সেই মন্দির রক্ষা করে।

টুইটের জবাবে শাবানা সোমবার গভীর রাতে লেখেন, এটা পুরোপুরি মিথ্যা। ফজলে হক একজন স্বাধীনতাসংগ্রামী ছিলেন, তাঁর কালাপানির সাজা হয়েছিল। উনি আন্দামানেই মৃত্যুবরণ করেন। ওখানে আজও তাঁর সমাধি রয়েছে, যেখানে উল্লেখ করা রয়েছে উনি ‘নায়ক’ ছিলেন। ওনার সম্পর্কে আরো বেশি জানতে ‘বাগি হিন্দুস্তান’ পড়ে দেখতে পারেন।

চুপ থাকেননি জাভেদ আখতারও। তাঁর পূর্বপুরুষের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ নস্যাৎ করে বর্ষীয়ান কবি জানান, ‘আমি যখনই সুর চড়ালাম অনলাইনে মেয়েদের নিলাম করার বিরুদ্ধে, যাঁরা গডসেকে গৌরবান্বিত করেন, গণহত্যা নিয়ে উল্লাস করেন, তেমনই ধর্মান্ধ এক আমাদের মহান প্রপিতামহকে গালিগালাজ করা শুরু করেছে। যিনি স্বাধীনতাসংগ্রামী ছিলেন এবং ১৮৬৪ সালে কালাপানির সাজা খাটতে গিয়ে মৃত্যুবরণ করেন। এই ইডিয়টদের কী বলা উচিত?’

এর মধ্যেই সরকারের তরফে ‘বুল্লিবাই’ অ্যাপ ব্লক করা হলেও থামছে না বিতর্কের আঁচ। শুধু জাভেদ আখতারই নন, এই ন্যক্কারজনক ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছেন তাঁর পুত্র ফারহান আখতার, স্বরা ভাস্কর, রিচা চড্ডা, শ্রুতি শেঠের মতো বলিউড ব্যক্তিত্বরাও।
সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments