‘কেপা বড় ভুল করেছে ঠিক; কিন্তু ক্রিস্টিনসেনের লাল কার্ডটাই পাল্টে দিয়েছে সব’- ম্যাচের পর এসব বলেন চেলসি কোচ ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ড। রোববার স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে লিভারপুলের বিপক্ষে প্রিমিয়ার লীগের ‘বিগ’ ম্যাচে রক্ষণের ভুলের মাশুল দেয় অল ব্লুরা। অল রেডদের কাছে ২-০ গোলে হার দেখে চেলসি। লিভারপুলের হয়ে দুটি গোলই করেন সেনেগালিজ ফরোয়ার্ড সাদিও মানে।
নিজেদের শুরুর দুই ম্যাচেই জয় দেখলো ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল। মৌসুমের প্রথম ম্যাচে লিডস ইউনাইটেডকে ৪-৩ গোলে হারায় ইয়ুর্গেন ক্লপের শিষ্যরা। ২০০২ সালে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের পর তারাই প্রথম দল, যারা ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন হিসেবে চেলসির মাঠে খেলতে গিয়ে জয় দেখলো। আর নিজেদের ইতিহাসে মাত্র তৃতীয়বারের মতো মৌসুমের প্রথম হোম ম্যাচে হারলো চেলসি।

গত সপ্তাহে ব্রাইটনের মাঠে ৩-১ গোলে জিতেছিল ল্যাম্পার্ডের শিষ্যরা।
স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে মানেকে ফাউল করে লাল কার্ড দেখেন চেলসির ডেনিশ ডিফেন্ডার আন্দ্রেস ক্রিস্টেনসেন। রেফারি প্রথমে হলুদ কার্ড বের করেন। পরে ভিএআর পর্যালোচনায় মার্চিং অর্ডার দেন সেন্টারব্যাক ক্রিস্টেনসেনকে। ১০ জনের দলে পরিণত হওয়া চেলসি দ্বিতীয়ার্ধে মাত্র ৪ মিনিটের ব্যবধানে হজম করে ২ গোল। ৫০তম মিনিটে রবার্তো ফিরমিনোর অ্যাসিস্টে প্রথম গোল করেন মানে। ৫৪তম মিনিটে মানের করা দ্বিতীয় গোলে সহায়তাকারী চেলসির স্প্যানিয়ার্ড গোলরক্ষক কেপা আরিসাবালাগা! ডিবক্স থেকে সতীর্থকে পাস দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু পা বাড়িয়ে বলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেন মানে। এরপর ৬ গজ দূর থেকে বল জড়ান জালে। ৭৫তম মিনিটে পেনাল্টি থেকে চেলসির ব্যবধান কমানোর সুযোগ পেয়েছিলেন জর্জিনহো। তবে পরাস্ত করতে পারেননি লিভারপুলের ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক অ্যালিসনকে।
ম্যাচের পর হার নিয়ে ক্রিস্টিনসেন ও কেপার ওপর ক্ষোভ ঝারেন চেলসির ইংলিশ কোচ ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ড। কাগজে কলমে বিশ্বের সবচেয়ে দামী গোলরক্ষক কেপা। তবে ২৫ বছর বয়সী এই স্প্যানিয়ার্ড মাঠে নিজেকে প্রমাণে বারবার ব্যর্থ হচ্ছেন। ব্রাইটনের বিপক্ষে মৌসুমের প্রথম ম্যাচে ডিবক্সের বাইরে থেকে আসা দুর্বল শট ঠেকাতে ব্যর্থ হন কেপা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে চেলসি সমর্থকরাও ধুয়ে দিয়েছেন এই গোলরক্ষককে। ম্যাচের পর চেলসি কোচ ল্যাম্পার্ড বলেন, ‘কেপাকে মেনে নিতেই হবে সে ভুল করেছে। তবে আমার কাজ হলো তার আত্মবিশ্বাস ফিরিয়ে আনা।’
অভিষেকেই পাসের রেকর্ড আলকানতারার
এদিন লিভারপুলের জার্সিতে অভিষেক হয় থিয়াগো আলকানতারার। বায়ার্ন মিউনিখ থেকে সদ্যই এই স্প্যানিয়ার্ড মিডফিল্ডারকে অ্যানফিল্ডে উড়িয়ে এনেছে লিভারপুল। ২০ মিলিয়ন পাউন্ডের আলকানতারাকে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে জর্ডান হেন্ডারসনের বদলি হিসেবে মাঠে নামান ক্লপ। প্রথম দিনেই গুরুকে মুগ্ধ করেছেন আলকানতারা। ৪৫ মিনিটে ৭৫টি সফল পাস দিতে পেরেছেন ২৯ বছর বয়সী মিডফিল্ডার। তাতে ম্যাচে ৪৫ মিনিট খেলা ফুটবলারদের মধ্যে গত ১৬ বছরে সর্বোচ্চ সফল পাসের রেকর্ড গড়েছেন তিনি। আর ক্লপ বলেন, ‘ওটা ছিল তার জন্য একবারে যথার্থ শুরু।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

English