নিয়ম অনুযায়ী প্রতি বছর দুইবার কাবা শরীফ পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার কাজ করা হয়। জমজমের পানির সঙ্গে গোলাপজল মিশিয়ে ধৌত করা হয় পবিত্র কাবাঘর।
সে হিসেবে বৃহস্পতিবার আরবি ১৪৪২ হিজরি সালের প্রথমবার মুসলিম উম্মাহর সবচেয়ে পবিত্রতম এই স্থাপনা ধৌত করা হবে। এ ব্যাপারে সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজও সম্মতি দিয়েছেন। বাদশার পক্ষে মক্কা নগরীর গভর্নর প্রিন্স খালেদ ফয়সাল ধৌতকার্জের নেতৃত্ব দিবেন।

সৌদি সংবাদমাধ্যম আল আরাবিয়া জানিয়েছে, করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছর অত্যন্ত ভালো করে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। পবিত্র মক্কা মোকাররমা ও মদিনা মুনাওয়ারাহর প্রতি বিশেষ যত্নশীল হওয়ায় বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ ও ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মাদ বিন সালমানকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন আল হারামাইনিশ শারিফাইনের প্রধান তত্ত্বাবধায়ক শায়খ আব্দুর রহমান আস সুদাইস। গত বছর ১৪৪১ হিজরি সালে কাবাঘরের সম্প্রসারণ পরিকল্পনার বাস্তবায়ন চলমান থাকায় এই পবিত্র স্থাপনা ১৫ মুহাররমে শুধু একবার ধৌত করা হয়।প্রসঙ্গত, কাবাঘর গোসলের এই ধারাবাহিকতা মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম থেকেই শুরু হয়েছে। মক্কা বিজয়ের পরে কাবাঘর থেকে মূর্তি অপসারণ শেষে তিনি সর্বপ্রথম তা ধৌত করেন। পরে খোলাফায়ে রাশেদাও এই ধারা অব্যাহত রাখেন।সুন্নতের অনুসরণে বর্তমান শাসকরাও কাবাঘর ধোয়ার ধারাবাহিকতা অব্যাহক রেখেছেন।

আল আরাবিয়া অবলম্বনে– বেলায়েত হুসাইন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

English