Saturday, July 20, 2024
spot_img
Homeজাতীয়'বিশ্বাসে মিলায় বস্তু', দুই পুলিশের মিলল মৃত্যু!

‘বিশ্বাসে মিলায় বস্তু’, দুই পুলিশের মিলল মৃত্যু!

তিন পুলিশের কেউই গাড়ি চালাতে পারেন না, ফলে আসামিকে দিয়েই চালানো হচ্ছিল পুলিশের গাড়িটি। এ সময় আসামি পালিয়ে যাওয়ার জন্য গাড়িটি খাদে ফেলে কৌশলে লাফ দেন। এতে দুই এসআই মারা যান এবং এএসআই গুরুতর আহত হন। তবে আসামি পালিয়ে যান।

মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) সকালে গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মোস্তাফিজুর রহমান। তবে পালিয়ে যাওয়া আসামিকে এখনো গ্রেপ্তার করা যায়নি বলে জানান তিনি।

এর আগে সোমবার সন্ধ্যা ৭টায় নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ পৌরসভার দত্তপাড়া এলাকায় এ ঘটনায় ঘটে। নিহতরা হলেন ফরিদপুরের ভাঙ্গা থানার মুনসুরাবাদ গ্রামের কাজী নুরুল ইসলামের ছেলে কাজী সালেহ আহম্মেদ ও গোপালগঞ্জের চরভাটপাড়া গ্রামের ইউনুস আলীর ছেলে এস এম শরীফুল ইসলাম। তাঁরা সোনারগাঁ থানায় কর্মরত ছিলেন। স্থানীয়রা উদ্ধার করে সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাঁদের মৃত ঘোষণা করেন।

এ দুর্ঘটনায় রফিকুল ইসলাম নামের একজন সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) আহত হয়েছেন। তাঁকে মুমূর্ষু অবস্থায় ঢাকার রাজারবাগ পুলিশ লাইনস হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে, সোনারগাঁর মেঘনা টোল প্লাজায় তল্লাশিচৌকিতে একটি গাড়িকে থামার জন্য সংকেত দেওয়া হয়। সেটি এক কনস্টেবলকে চাপা দিয়ে দ্রুত পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। পরে ধাওয়া করে ওই গাড়িটি ধরা হয় এবং ইয়াবাসহ গাড়ির চালক আলমগীর হোসেনকে আটক করা হয়। গাড়িতে ৪২ হাজার ইয়াবা ট্যাবলেট পাওয়া যায়। কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে ঢাকার উদ্দেশে ইয়াবার চালান নিয়ে আসা হচ্ছিল জানতে পারে পুলিশ।

চালক আলমগীর হোসেনকে আটক এবং গাড়িটি জব্দ করা হয়। পরে আলমগীরকে জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে আনা হয়। এ সময় আলমগীর নিজেই গাড়ি চালান। এসপি কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন শেষে তাঁকে নিয়ে আবার থানায় যাওয়ার জন্য রওনা দেন এসআই শরীফুল ইসলাম ও কাজী সালেহ এবং এএসআই রফিকুল ইসলাম। তবে তাঁদের তিনজনের কেউই গাড়ি চালাতে পারতেন না। ফলে তাঁরা আলমগীরকে আবারও গাড়ি চালানোর দায়িত্ব দেন। সোনারগাঁ পৌরসভার দত্তপাড়া এলাকায় আসার পর গাড়িটি রাস্তার পাশের পুকুরে ফেলে লাফ দিয়ে নেমে পালিয়ে যান আলমগীর। এতে দুই এসআই শরীফুল ইসলাম ও কাজী সালেহ নিহত হন। গুরুতর আহত হন এএসআই রফিকুল।

সোনারগাঁ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এস এম শফিকুল ইসলাম জানান, চালক আলমগীরকে গ্রেপ্তার করা যায়নি। তবে তাঁকে গ্রেপ্তারের জন্য বিশেষ অভিযান চলছে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments