Thursday, July 18, 2024
spot_img
Homeধর্মবিশ্বব্যাপী ইসলাম প্রচারক প্রফেসর স্টিফেন লেকা

বিশ্বব্যাপী ইসলাম প্রচারক প্রফেসর স্টিফেন লেকা

স্টিফেন হকিংকে সবাই চেনে। কিন্তু স্টিফেন মুহাম্মদ লেকার নাম কতজন জানে? স্টিফেন লেকা রোমানিয়ার বাকু (ভ্যাসিলে আলেকজান্ডারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বনামধন্য অধ্যাপক। এই নওমুসলিম ১৫০ দেশে ঘুরে ঘুরে ইসলাম প্রচার করেছেন। ৪০ দেশে হেঁটে ২৯ হাজার কিলোমিটার সফর করেছেন। রোমানিয়ার একটি কট্টর খ্রিস্টান পরিবারে তাঁর জন্ম। ইসলাম গ্রহণ করার ‘অপরাধে’ পিতা বাড়ি থেকে বের করে দেন। মা কথা বলা বন্ধ করে দেন। কিন্তু মুহাম্মদ লেকা সাহস হারাননি। ধারাবাহিকভাবে বাবা-মাসহ পরিবারের সদস্যদের কাছে ইসলামের দাওয়াত পৌঁছেছেন। তাঁর অব্যাহত প্রচেষ্টায় প্রথমে মা, এরপর ভাই, একে একে পরিবারের সবাই ইসলাম গ্রহণ করেছেন। এরপর এলাকার লোকদের কাছে ইসলামের সত্য বাণী পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করেছেন। আস্তে আস্তে পুরো দেশ, পরবর্তী সময়ে পুরো বিশ্বে ইসলাম প্রচারের লক্ষ্যে পদব্রজে সফর করেছেন। তাঁর একটিই মিশন, ইসলাম প্রচার। বার্ধক্যের কারণে এখন হেঁটে বেশি সফর করতে পারেন না। এ জন্য বিশেষ পদ্ধতির শক্তিশালী গাড়ি বানিয়েছেন। গাড়িটি সমতল, জঙ্গল ও পাহাড়ি, সব ধরনের রাস্তায় চলতে সক্ষম। পুরো গাড়িতে আল্লাহর পরিচয়সংবলিত বিভিন্ন বাণী অঙ্কন করে অবশিষ্ট দেশ সফর করার ইচ্ছা তাঁর। ২৭ বছর ধরে তিনি দাওয়াতের কাজ করছেন।

তিনি বলেন, আল্লাহর অনুগ্রহে বিপুলসংখ্যক মানুষ আমার হাতে ইসলাম গ্রহণ করেছেন। দাওয়াতের কাজে উদ্বুদ্ধ করতে আমি আরব দেশেও গিয়েছি। সৌদি আরব, ওমান, কাতার, আমিরাতে সফর করেছি। শিগগিরই অন্যান্য মুসলিম দেশে যাব। স্টিফেন মুহাম্মদ লেকার দাওয়াত পদ্ধতি হৃদয়গ্রাহী ও আকর্ষণীয়। এই পথে তিনি নিজের স্বর্বস্ব বিলিয়ে দিয়েছেন। ঘরবাড়ি বিক্রি করে অভিনব পদ্ধতি গ্রহণ করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে চুক্তি করেছেন, তিন মাস শিক্ষকতা করবেন। এই তিন মাসের বেতন নিয়ে পরবর্তী তিন মাস সফর করবেন! এভাবেই রুটিন করে নিয়েছেন। তিনি বলেন, খ্রিস্টানদের দাওয়াত দেওয়ার জন্য অন্য কিছুর প্রয়োজন নেই। সুরা মারয়ামই যথেষ্ট! অধিকাংশ খ্রিস্টান জানেই না, পবিত্র কোরআনে সুরা মারয়াম নামে সুরা আছে! এই সুরায় তাদের কথা অত্যন্ত স্পষ্ট ভাষায় উল্লেখ আছে। ইউরোপের গ্রাম-গঞ্জে খ্রিস্টানদের সামনে সুরা মারয়ামের তরজমা শোনালে তারা কান্নায় ভেঙে পড়েছে।

তিনি আরো বলেন, এখন গাড়িতে সফর করি। আল্লাহ আমাকে হিদায়াত দান করেছেন। মুসলমান হওয়ার তাওফিক দিয়েছেন। এখন আমার ওপর আবশ্যক, ইসলামবঞ্চিতদের নিকট ইসলামের মহা নিয়ামত পৌঁছে দেওয়া। রোমানিয়ায় এক হাজার মানুষকে কলেমা পাঠ কারানোর সময় বলেছিলাম, মেহনতের কিছু কিছু ফল হাতে আসা শুরু করেছে। আলহামদুলিল্লাহ, নিজ শহরেই এখন মুসলমানদের সংখ্যা ৮০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে! পুরো দেশে এর পরিমাণ অর্ধ মিলিয়ন! স্টিফেন মুহাম্মদ লেকার ইসলাম গ্রহণের ঘটনাও চিত্তাকর্ষক। তিনি বলেন, স্ত্রীসহ তুরস্কে সফরে গিয়েছিলাম। একদিন প্রত্যন্ত অঞ্চলের সফরে রাত হয়ে যায়। একজন বৃদ্ধ অত্যন্ত সুন্দরভাবে সালাম নিবেদন করেন। এর আগেও অসংখ্যবার মুসলমানদের সালাম পেয়েছি। কিন্তু এই বৃদ্ধের সালামের ভেতর ভিন্ন কিছু ছিল। চেহারা থেকে নুর ঝরছিল। তাঁর কাছে আমরা রাত কাটানোর জন্য হোটেলের সন্ধান করলাম। তিনি জানালেন, এখানে বহুদূর পর্যন্ত কোনো হোটেল পাবেন না। আপনারা মেহমান মানুষ। আমার বাড়িতে রাত কাটিয়ে সকালে চলে যাবেন। আমি খুশি হব। তিনি বারবার আবেদন করতে লাগলেন। কিন্তু আমার অন্তর সায় দিচ্ছিল না।  বিদেশের প্রত্যন্ত গ্রামের একজন অচেনা মানুষের ওপর কিভাবে ভরসা করা যায়! কিন্তু বৃদ্ধের উজ্জ্বল চেহারার প্রভাবে আমরা মেহমান হয়ে গেলাম! তিনি খুব খুশি হলেন। তাঁর বাড়িটি পুরনো ও কাঁচা। চারদিকে দরিদ্রতার ছাপ থাকলেও প্রশান্তময় পরিবেশ ছিল। তাঁর স্ত্রী-সন্তানও আমাদের অভ্যর্থনা জানালেন। তিনি সামর্থ্যের বাইরে গিয়ে উন্নত আপ্যায়নের ব্যবস্থা করলেন। ক্লান্ত থাকায় আমরা দ্রুত ঘুমিয়ে গেলাম। সকালে জাগ্রত হয়ে বাড়ির কাউকে পেলাম না। আমরা ঘাবড়ে গেলাম। দ্রুত বাইরে বের হয়ে দেখা দৃশ্য আমাদের খুব অবাক করল। দেখি, বাড়ির সবাই একটি গাছের নিচে ঘুমিয়ে রয়েছেন! বৃদ্ধকে জিজ্ঞাসা করলাম, বাইরে ঘুমিয়েছেন কেন? তাঁর উত্তর শুনে আমার চোখে অশ্রু গড়াতে লাগল। আপনি মেহমান, দূর থেকে এসেছেন। আরামের প্রয়োজন। আমার মাত্র একটি ঘর। এ জন্য বাইরে ঘুমিয়েছি। আপনারা কষ্ট পান, ইসলাম ধর্ম আমাদের এটা শেখায়নি!

একটি কুয়েতি চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় স্টিফেন লেকা বলেন, এটাই আমাদের ইসলামের শিক্ষা-শক্তি। এই ঘটনায় ভীষণ প্রভাবিত হই। আমার জীবন পরিবর্তন করে দেয়।

সূত্র : অ্যাবাউট ইসলাম, ইউটিউব, আল-আনবা ও আন-নাহার

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments