Tuesday, May 21, 2024
spot_img
Homeখেলাধুলাবিশ্বকাপে প্রত্যাশার চাপ নিতে চান না শান্ত

বিশ্বকাপে প্রত্যাশার চাপ নিতে চান না শান্ত

দূয়ারে কড়া নাড়ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। বাংলাদেশ দলেরও সব পরিকল্পনাও এগুচ্ছে এই বিশ্বকাপ ঘিরে। তবে বৈশ্বিক এই আসরে গণমাধ্যম ও সমর্থকদের প্রত্যাশা কম রাখার অনুরোধ করেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত। তার মানে, প্রত্যাশার চাপ নিতে চাইছেন না টাইগার দলপতি।

আগামী জুনে যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজে শুরু হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের এবারের আসর। বাংলাদেশ আসর শুরু করবে আগামী ৮ জুন, ডালাসে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে। ‘ডি’ গ্রুপে বাংলাদেশের বাকি তিন প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা, নেদারল্যান্ডস ও নেপাল। সেরা দুই দল যাবে সুপার এইটে।

বিশ্বকাপে বাংলাদেশের লক্ষ্য কী, এমন প্রশ্ন ওঠা খুবই স্বাভাবিক। মঙ্গলবার একটি প্রতিষ্ঠানের ব্র্যান্ড অফিসার হওয়ার অনুষ্ঠানে শান্ত অনুরোধ করলেন এই ধরণের আলোচনা থামাতে, ‘প্রতি বছরই আমি দেখি, বিশ্বকাপের আগে এসব নিয়ে অনেক কথা হয়। প্রত্যাশা… এটা করব, সেটা করব। আমার একটা অনুরোধ থাকবে আপনাদের কাছে, প্রত্যাশাটা খুব একটা করার দরকার নেই। প্রত্যাশাটা সবার মনের ভেতরেই থাক। আপনারাও জানেন, বাংলাদেশ দল কী চায়। আমরা ক্রিকেটাররাও জানি, আমরা দলকে কত দূর নিয়ে যেতে চাই। সবাই চায় যে, আমরা অনেক বড় কিছু করি। তবে এটা নিয়ে যখন অনেক বেশি মাতামাতি হয়, তখন আমার কাছে ব্যক্তিগতভাবে ভালো লাগে না। আসলে দরকার নেই। ফল যখন হবে, তখন এমনিই বোঝা যাবে। আমি একটা জিনিস বলতে পারি, এই দলটা যে খেলবে, এরা প্রত্যেকটা ম্যাচে জেতার জন্য ১২০ শতাংশ দেবে। এই নিশ্চয়তা আমি দিতে পারি এবং প্রত্যেকটা ম্যাচ জেতার জন্যই খেলবে।’

‘ প্রতি বছর আমরা যখন খেলি, প্রত্যেকটা ম্যাচ অনেক আশা নিয়েই খেলি। তো আমরা যেটা পারি, সে জিনিসটা করারই চেষ্টা করব। তবে আগে থেকেই অনেক আশা করছি, এবার অনেক বেশি প্রত্যাশা করছি… একটাই অনুরোধ করব, আমরা যেন এসব নিয়ে বেশি মাতামাতি না করি।’

টি-টোয়েন্টি দলের পারফরম্যান্সে অবশ্য খুশি শান্ত। ঘরে মাঠে সবশেষ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হারলেও তার আগের বছর ইংল্যান্ড, আফগানিস্তানের বিপক্ষে আছে জয়। সেদিক থেকে দলকে বেশ ভালো অবস্থায় দেখছেন তিনি। আগামী মাসের শুরুতে ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের সিরিজ খেলবে দল। এই সিরিজ বেশ ভালো উইকেটে খেলার ইচ্ছা প্রকাশ করেন শান্ত।

‘আমরা যদি সবশেষ ৬-৭টা সিরিজ দেখি, এই দলটা বেশিরভাগ সিরিজ জিতেছে। যেটা বললাম, দলটা ভালো অবস্থায় আছে। অবশ্যই ভালো উইকেটে খেলার ইচ্ছা আছে। শ্রীলঙ্কার সঙ্গে আমরা যে সিরিজটা খেললাম, এই ধরনের উইকেট প্রত্যাশা করছি। তারপরেও চেষ্টা করব,যুক্তরাষ্ট্রে আমরা যখন খেলব, যে ধরনের উইকেটে খেলব, সেই ধরনের উইকেটে খেলা যায় কি না। আমার মনে হয় না, এটা খুব একটা সহজ হবে। তবে ভালো উইকেটই প্রত্যাশা করছি। আর এই সিরিজটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। এই সিরিজটা যদি আমরা ভালোভাবে শেষ করতে পারি, আত্মবিশ্বাস নিয়ে যেতে পারি তাহলে দলের জন্য অনেক ভালো কিছু হবে।’

টি-টোয়েন্টিতে এক সময় ভোগান্তি বেশি হলেও সাম্প্রতিক সময়ে দিন বদলের আভাস মিলছে। এর পেছনে দল হিসেবে খেলার কথা জানান শান্ত,  ‘আমরা দল হিসেবে খেলছি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এবং আমাদের দলে কোনো বিশেষজ্ঞ কোনো ক্রিকেটার নেই। আমরা যখনই দল হিসেবে খেলি, সবার অবদান যখন থাকে, তখনই আমরা বেশি জিতি। আর ওভারল যদি বলি, পেস বিভাগ অনেক উন্নতি করেছে। পাশাপাশি স্পিন ও ব্যাটিংটাও আছে। মূল যে বিষয়টা আমার মনে হয়, দল হিসেবে আমরা যখন খেলি, সবার অবদান যখন থাকে, তখনই আমরা ম্যাচ জিতি।’

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments