বাহরাইনে বড়সড় জঙ্গি হামলার ছক করেছিল জঙ্গিরা। তবে নিরাপত্তা বাহিনী সক্রিয়তায় তাদের সেই হামলার ছক বানচাল হয়েছে। জঙ্গিদের ঘাঁটিতে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে বেশ কিছু জঙ্গি গ্রেপ্তার হয়েছে। উদ্ধার হয়েছে বিপুল পরিমাণে বিস্ফোরক।
স্থানীয় মিডিয়ার দাবি, বিদেশি কূটনীতিক ও নাগরিকদের হত্যার পরিকল্পনা করেছিল জঙ্গিরা। এর পিছনে ছিল ইরানের মদত। মিডিয়ার রিপোর্ট বলছে, ১৮ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তার মধ্যে নয় জন ইরানে আছেন।
বাহরাইন সরকার এখনো জঙ্গিদের গ্রেপ্তার নিয়ে কোনো মন্তব্য করেনি। সরকারি টিভিতেও কিছু দেখানো হয়নি। কিন্তু সৌদি আরবের সরকারি টিভিতে এর ফুটেজ দেখানো হয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, নিরাপত্তা বাহিনী জঙ্গিদের আস্তায় হানা দিয়েছে। সেখান থেকে অ্যাসল্ট রাইফেল ও বিস্ফোরক উদ্ধার করা হচ্ছে। ইরানের সরকারি মিডিয়াও গ্রেপ্তারের খবর প্রচার করেছে।
সৌদির এক টিভি রিপোর্টারের দাবি, ইরানের জেনারেল কাসেম সোলেইমানি হত্যার প্রতিশোধ নিতে চেয়েছিল জঙ্গিরা। গত জানুয়ারিতে বাগদাদে মার্কিন ড্রোন হামলায় সোলেইমানির মৃত্যু হয়।
মার্কিন নৌবাহিনীও বাহরাইনে আছে। তারা এখান থেকেই মধ্য প্রাচ্যের সমুদ্রে নজরদারি চালায়। অতীতে তাদের উপর আক্রমণ হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন নৌবাহিনীর কর্মকর্তারা।
সম্প্রতি ইসরায়েলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করেছে বাহরাইন। সংযুক্ত আরব আমিরাতও করেছে। ইরান তার তীব্র সমালোচনা করেছে। তা নিয়ে ওই অঞ্চলে উত্তেজনা আছে।
সূত্র : ডয়েচে ভেলে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

English