Sunday, August 14, 2022
spot_img
Homeধর্মবাগদাদ যখন স্বপ্নপুরী ছিল

বাগদাদ যখন স্বপ্নপুরী ছিল

মুসলিমদের বৈজ্ঞানিক উন্নতি ও প্রযুক্তিগত দক্ষতার ইতিহাসের অন্যতম অংশ বাগদাদ নগরী। আব্বাসীয় আমলে এখানে ব্যাপক উন্নয়ন ও জ্ঞান-বিজ্ঞানের চর্চা হওয়ায় তৎকালে এই শহরকে স্বপ্নপুরী বিবেচনা করা হতো। আব্বাসীয় শাসক আল মনসুর এ নগরের গোড়াপত্তন করেন এবং হারুন অর রশিদ এখানে ব্যাপক উন্নয়নমূলক কাজ করে একে তৎকালীন যুগে বিশ্বের শ্রেষ্ঠতম নগরে পরিণত করেন। সিরিয়া, মেসোপটিয়া প্রভৃতি অঞ্চল থেকে আনীত প্রায় লক্ষাধিক শ্রমিক ও শিল্পী সুদীর্ঘ চার বছর পরিশ্রম করে প্রায় অর্ধকোটি দিরহাম ব্যয়ে এর নির্মাণকাজ শেষ করেন।

তাঁদের নগর পরিকল্পনার ধারণাটি ছিল ভিন্নধর্মী, যা তাঁদের নগরের সৌন্দর্য ও যোগাযোগব্যবস্থা উন্নত করতে সহযোগিতা করেছিল। তাঁরা নগরটিকে বৃত্তাকার ও দুই প্রাচীরবিশিষ্ট করেছিলেন, যার কেন্দ্রস্থলে ছিল রাজপ্রাসাদ। জুমা মসজিদ, প্রধান প্রধান কর্মচারীদের অট্টালিকাসমূহ, মনোমুগ্ধকর উদ্যান, কৃত্রিম ফোয়ারা, সুসজ্জিত তোরণ, সুবিন্যস্ত রাজপথ দিয়ে তাঁরা তাঁদের শহরকে আকর্ষণীয় করে তুলেছিলেন।

বাজার-ঘাট নির্মাণ করা হয়েছিল প্রাচীরের বাইরে। নদীর তীর ঘেঁষে নির্মাণ করা হয় সেনানিবাস। শহরের শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষায় সড়কে সড়কে মোতায়েন করা হয় রাজকীয় পুলিশ। দাবি করা হয়, মধ্যযুগে এই শহরের মতো সুপরিকল্পিত আর কোনো শহর ছিল না। তৎকালীন যুগ ও পরবর্তী সময়েও দীর্ঘ সময় শহরটি রূপকথার স্বপ্নপুরী হিসেবে বিখ্যাত হয়ে উঠেছিল।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments