Friday, April 19, 2024
spot_img
Homeজাতীয়পাঠ্য বইয়ে ইসলামবিরোধী ছবি ছাপিয়ে শিক্ষার্থীদের বিপথগামী করার চেষ্টা করছে সরকার: কর্ণেল...

পাঠ্য বইয়ে ইসলামবিরোধী ছবি ছাপিয়ে শিক্ষার্থীদের বিপথগামী করার চেষ্টা করছে সরকার: কর্ণেল অলি

সরকারবিরোধী যুগপৎ আন্দোলনের প্রথম কর্মসূচি গণমিছিলে রাজধানীতে ব্যাপক শোডাউন করেছে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি- এলডিপি। শুক্রবার বেলা আড়াইটায় রাজধানীর এফডিসি সংলগ্ন এলডিপির পার্টি অফিসের সামনে থেকে গণমিছিল শুরু করে দলটির নেতাকর্মীরা। মিছিলটি মগবাজার হয়ে মালিবাগ মোড়ে গিয়ে শেষ হয়। মিছিলে কয়েক হাজার নেতাকর্মী অংশ নেয়। মিছিলে নেতৃত্ব দেন লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি- এলডিপির প্রেসিডেন্ট ড. কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীর বিক্রম। মিছিল পূর্ব সংক্ষিপ্ত সমাবেশে কর্নেল অলি আহমদ বলেন, দেশের অর্থনীতি, স্বাস্থ্য, শিক্ষা খাত প্রায় বিধ্বস্ত। স্কুল-কলেজগুলোতে নিয়মিত পাঠদান হচ্ছে না। অনেক পাঠ্য বই ইসলামবিরোধী ছবি ছাপিয়ে কোমলমতি শিশুদের বিপদগামী করার চেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে বর্তমান সরকার। ফলে কয়েক বছর পর সরকার পরিচালনার জন্য দক্ষ এবং শিক্ষিত লোক পাওয়া যাবে না। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানগুলো যুবলীগ এবং ছাত্রলীগের নিয়ন্ত্রণের ফলে সাধারণ নাগরিক অত্যাচার, নির্যাতন এবং অন্যায় অবিচারের শিকার হচ্ছে।

গণমিছিলে এলডিপির প্রেসিডিয়াম সদস্য নূরুল আলম, ড. নেয়ামূল বশির, ড. আওরঙ্গজেব বেলাল, এড.এসএম মোরশেদ, স্যাকলায়েন, উপদেষ্টা অধ্যক্ষ মাহবুবুর রহমান, অধ্যাপিকা কারিমা খাতুন, যুগ্ম মহাসচিব বিল্লাল হোসেন মিয়াজি, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক সাহাদাত হোসেন মানিক, , আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. হাসেম, আইনজীবী নূরে আলম, যুববিষয়ক সম্পাদক আমান সোবহান, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক জসিম, প্রকাশনা সম্পাদক মেহেদী হাসান মাহবুব, ঢাকা মহানগর পূর্ব এলডিপির সভাপতি সোলায়মান, ঢাকা মহানগর উত্তর এলডিপির সাধারণ সম্পাদক, গণতান্ত্রিক শ্রমিকদলের সভাপতি মামুন প্রমূখ নেতা অংশ নেন।

মিছিল পূর্ব সংক্ষিপ্ত সমাবেশে কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বলেন, বর্তমান নিশিরাতের স্বৈরাচারী সরকার মেট্রোরেলসহ বড় বড় মেগা প্রকল্পের মাধ্যমে লাখ লাখ হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছে। অনেকগুলি ব্যাংক আমদানীর টাকা পরিশোধ করতে পারছে না। জনগণ ব্যাংকের উপর আস্থা হারিয়ে ফেলেছে। তাদের জমাকৃত টাকা ব্যাংক থেকে উত্তোলন করে নিয়ে যাচ্ছে। কাঁচামাল এবং রপ্তানী অর্ডারের অভাবে অনেক শিল্প কল-কারখানা ইতোমধ্যেই বন্ধ হয়েছে। রপ্তানী ব্যাপকভাবে হ্রাস পেয়েছে। অর্থের অভাবে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসসহ অনেক কাঁচামাল আমদানী করা সম্ভব হচ্ছে না।

তিনি বলেন, শুধু অর্থনীতি নয়, স্বাস্থ্যখাতের দুরবস্থা ও আস্থার অভাবে প্রায় অর্ধ কেটির বেশি লোক চিকিৎসার জন্য ভারতে যাচ্ছে।

কর্নেল অলি বলেন, আয়ের তুলনায় জনগণের ব্যয় দ্বিগুন বৃদ্ধি পেয়েছে। মানুষের ব্যয় বাড়লেও সেই তুলনায় বেতন বা আয় বাড়েনি। ফলে সমাজ ভারসাম্যহীনতায় ভুগছে। দরিদ্র ও নি¤œবিত্ত, মধ্যবিত্তরা শহর ছেড়ে গ্রামে ছুটে যাচ্ছে। প্রায় ৯০ শতাংশ মানুষ অসহায় জীবন যাপন করছে। যুবক এবং ছাত্ররা অনিশ্চিত ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। সরকার কোন জিনিসের দিকে ভ্রুক্ষেপ না করে টাকা পাচারে ব্যস্ত। বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোকে ক্ষমতা প্রয়োগের মাধ্যমে দমনে লিপ্ত হয়েছে। বিরোধী নেতাকর্মীদের ওপর পুলিশ বৃষ্টির মতো গুলি করছে। অনেককে বিনা কারণে গ্রেফতার করছে, আতঙ্ক সৃষ্টি করছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাই। অনতিবিলম্বে এই ধরণের কর্মকা- বন্ধ করুন। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, মির্জা আব্বাসসহ বিএনপি এবং বিরোধী দল সমূহের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা তুলে নিতে হবে এবং তাদের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments