Monday, May 16, 2022
spot_img
Homeজাতীয়‘নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন না হলে আপনাদের অবস্থাও শ্রীলঙ্কার মত হবে’

‘নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন না হলে আপনাদের অবস্থাও শ্রীলঙ্কার মত হবে’

গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে তা না হলে আপনাদের অবস্থাও শ্রীলঙ্কার মত হবে। প্রধানমন্ত্রী আপনি জনগণের কথা শুনুন, আমাদের নিয়ে বসেন।

শুক্রবার বাংলাদেশ যুব অধিকার পরিষদ এর উ্যদোগে, ভোজ্যতেল ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন উর্ধ্বগতির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। 
ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, তেলের দাম তো ২০০ টাকা করে নাই এখনও ২ টাকা কম রয়েছে।

সরকারের উদ্দেশে তিনি বলেন, ভারত আপনাদের রক্ষা করতে পারবে না। ভারত নিজেই খণ্ড-বিখণ্ড। তাই তাদের দিকে না থাকিয়ে নিজের দিকে তাকান। দ্রব্যমূল্যের দাম কমানো কঠিন কিছু নয়,আগে দুর্নীতি কমান তাহলেই হবে। মেগা প্রজেক্ট না করে আগে জনগণকে বাচাঁন। অনেকেই বলছে পদ্মা সেতুর নাম শেখ হাসিনা সেতু করতে,আমার প্রশ্ন-তারা কি শেখ হাসিনাকে ডুবাতে চায়?

গণঅধিকার পরিষদের সদস্য সচিব ও ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুলহক নুর বলেন, এই সরকার গত ১৩ বছের দেশকে মুমূর্ষু অবস্থায় নিয়ে গেছে,দেশ এখন আইসিইউতে রয়েছে। 

জনগণের উদ্দেশে নুর বলেন,আপনারা যদি খেয়াল করেন দেখবেন সব জিনিসপত্রের দাম বাড়ছে। সংসদের ৬২% এমপি ব্যবসায়ী। তারা ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের সঙ্গে জড়িত। আমরা দেখেছি মানুষ যেখানে খেতে পারে না,সেখানে সরকার উন্নয়ন প্রচার করার জন্য জেলায় জেলায় এলইডি বোর্ড স্থাপন করছে। এই সরকার এতদিন ক্ষমতায় থাকায় পরও গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে পারে নাই।
সরকারের এমপি-মন্ত্রীদের উদ্দেশে নুরুল হক নুর বলেন, সময় থাকতে ভালো হয়ে যান। সরকার যদি নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম না কমায় তাহলে আমাদের পরবর্তী কর্মসূচি সচিবালয় ঘেরাও।

গণঅধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক আবু হানিফ বলেন,আমরা চাই না বাংলাদেশের অর্থনীতির অবস্থা শ্রীলঙ্কার মত হোক,তবে এই অবৈধ সরকারের এমপি-মন্ত্রীদের উচিত শ্রীলঙ্কার এমপি-মন্ত্রীদের মত অবস্থা হওয়ার আগেই পদত্যাগ করুক। এই অবৈধ সরকারের বিরুদ্ধে বিরোধী দলগুলো যেভাবে ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে এতে সরকার ভয়ে আছে,ফলে সরকার চাইবে গোয়েন্দা সংস্থার মাধ্যমে বিরোধী ঐক্যকে ভাঙার,সেদিকে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।

বাংলাদেশ যুব অধিকার পরিষদের সভাপতি মুনজুর মোর্শেদ মামুন বলেন, বাংলাদেশের মানুষের যে করুণ দুর্দশা, শুধু  তেলে দাম বাড়ছে তা নয়,নিত্য প্রয়োজনীয় সকল পণ্যে দাম বেড়েছে। এই অবস্থায় সরকার বাজার নিয়ন্ত্রণ করতে সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার আগে বিভিন্ন সময় এই দেশের মানুষকে  রূপকথার গল্প শুনিয়েছিল-১০ টাকায় চাল খাওয়াবে, ঘরে ঘরে চাকরি দিবে,গ্রামকে শহরে রূপান্তর করবে।কিন্তু এখন ১০ টাকা চালে বদলে ঘরে ঘরে হাহাকার ছাড়া কিছু দেয়নি।চাকরি বদলে ঘরে ঘরে  দলীয় ক্যাডার  বাহিনী দিয়ে সন্ত্রাস সৃষ্টি করছে।

বাজার নিয়ন্ত্রণ ও বাজারকে সিন্ডিকেট মুক্ত  করতে বর্তমান বাণিজ্য মন্ত্রী সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হওয়ার অনতিবিলম্বে বাণিজ্যমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবি জানাচ্ছি।

বাংলাদেশ যুব অধিকার পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নাদিম হাসান বলেন, বর্তমান সরকার, সিন্ডিকেটের পাহারাদার হয়ে জনগনের জীবন দুর্বিসহ করে তুলেছে। সরকার যদি জনগণের দুঃখ কষ্ট অনুধাবন করতে না পারে, তবে সরকারকে বিদায় করতে জনগণ বাধ্য হবে। সিদ্ধান্ত সরকারের কাছে, তারা কী চায়। “

বাংলাদেশ যুব অধিকার পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক মুনতাজুল ইসলামের উপস্থাপনায় আরও বক্তব্য রাখেন গণঅধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খান, ফারুক হাসান,মাহফুজুর রহমান,সোহরাব হাসান, সাদ্দাম হোসেন,হানিফ খান সজিব যুগ্ম সদস্যসচিব আতাউল্লাহ, সাইফুল্লাহ হায়দার,মশিউর রহমান,শ্রমিক অধিকার পরিষদ এর সভাপতি আব্দুর রহমান,ছাত্র অধিকার পরিষদ এর সাংগঠনিক সম্পাদক মোল্যা রহমতুল্লাহ, গণঅধিকার পরিষদ ও বাংলাদেশ যুব অধিকার কেন্দ্রীয় নেতারা।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments