Friday, May 24, 2024
spot_img
Homeকমিউনিটি সংবাদ USAনিউইয়র্কে বাংলাদেশী-আমেরিকান ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক সোসাইটি-ব্যান্ডস এর পথমেলায় সিটি মেয়র এরিক অ্যাডামস, উচ্ছ্বসিত...

নিউইয়র্কে বাংলাদেশী-আমেরিকান ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক সোসাইটি-ব্যান্ডস এর পথমেলায় সিটি মেয়র এরিক অ্যাডামস, উচ্ছ্বসিত প্রবাসী বাংলাদেশীরা

নিউইয়র্ক সিটি মেয়র এরিক অ্যাডামসের উপস্থিতি আর দেশ-প্রবাসের জনপ্রিয় শিল্পীদের মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক পরিবেশনার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল বাংলাদেশী-আমেরিকান ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক সোসাইটি-ব্যান্ডস এর ঈদ পুুনর্মিলনী ও পথমেলা। প্রবাসে বাঙালী সংস্কৃতি, ঐতিহ্য ও দেশীয় পণ্যকে তুলে ধরার প্রয়াসে গত ২৪ জুলাই রোববার বাঙালী অধ্যুষিত নিউইয়র্কে ব্রঙ্কসের পার্ডি স্ট্রিটে বসেছিল দিনব্যাপী এ ঈদ আনন্দমেলা। মেলায় আসা হাজারও দর্শক-শ্রোতা প্রাণভরে উপভোগ করেন এ আনন্দ আয়োজন।

ব্যান্ডস-এর সভাপতি সোলায়মান আলীর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মো. শামীম মিয়ার পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন নিউইয়র্ক সিটি মেয়র এরিক অ্যাডামস।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্রঙ্কস বরো প্রেসিডেন্ট ভেনেসা গিবসন, স্টেট সিনেটের গুস্তাভো রিভেরা, ষ্টেট অ্যাসেম্বলীওম্যান নাতালিয়া ফার্নান্দেজ, কাউন্সিলওম্যান আমান্দা ফারিয়াহ, কংগ্রেসওম্যান ওকাসিও কোর্টেজের কমিউনিউনিট লিয়াজন নীপা, যুক্তরাষ্ট্র সফররত বাংলাদেশ অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশনের সভাপতি ও বাংলাদেশ জাতীয় সংসদে মৎস্য ও প্রাণি সম্পদ মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য এডভোকেট নুর উদ্দীন চৌধুরী নয়ন, বাংলাদেশ অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুর রকিব মন্টু, ঢাকা দক্ষিণ সিটির মতিঝিল থেকে নির্বাচিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর মিনু রহমান ও ঢাকা দক্ষিণ সিটির ধানমন্ডি থেকে নির্বাচিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর শিরিন গাফ্ফার, বাংলাদেশ স্পোর্টস ফাউন্ডেশন অব নর্থ আমেরিকা’র সভাপতি আব্দুর রহিম বাদশা।


বাংলাদেশ ও আমেরিকান জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে মেলার অনুষ্ঠানমালা শুরু হয়। আনন্দঘন ও উৎসবমুখর পরিবেশে রঙিন বেলুন উড়িয়ে মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন বাংলা হোম কেয়ার সার্ভিস’র কর্ণধার আবু জাফর মাহমুদ।
অন্যদের মধ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন টাইটেল স্পন্সর সিপিএ আহাদ আলী, ডাইমন্ড স্পনসর রিয়েল এস্টেট ইনভেস্টর নুরুল আজিম, ডেমোক্রেটিক লীডার অ্যাটর্নী মঈন চৌধুরী, মোহাম্মদ এন মজুমদার মাষ্টার অব ল, প্যারালীগ্যাল স্পন্সর মোঃ আলী ও ট্রাইল অ্যাটর্নী কেভিন পেরেজ, সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডেন্ট আব্দুস শহীদ, বোর্ড অব ট্রাস্টি জুনেদ আহমদ চৌধুরী,ও প্রদীপ মালাকার, সহ সভাপতি জকি উদ্দিন চৌধুরী, সহ সভাপতি মামুন’স টিউটোরিয়ালের সিইও শেখ আল মামুন, সহ সভাপতি কফিল উদ্দিন চৌধুরী, তপন সেন, কোষাধ্যক্ষ শামীম আহমেদ, কার্যকরী সদস্য মো. হারুনুর রশীদ, মোশাহিদ চৌধুরী, শ্যামল কান্তি চন্দ, কাজী জামান বিটু, শাহান মজুমদার ও শফিকুর রহমান, নতুন প্রজন্মের স্পেশালাইজ হাই স্কুল আমেরিকান স্টাডিস এ্যাট লিমেন কলেজ ছাত্রী ছামিহা বিন্তে আলী।
কমিউনিটি এক্টিভিস্ট কাওসারুজ্জামান কয়েছ, খলিলুর রহমান, জামাল হোসেন, আহবাব চৌধুরী, মনজুর চৌধুরী জুগলুল, সামাদ মিয়া জাকের, সাহেদ আহমেদ, মোখলেসুর রহমান, জাহাঙ্গীর কাজী, মহব্বত আকন্দ, জাহাঙ্গীর এ জয়, কাজী সামিরা, ফৌজিয়া ইয়াসমিন, আসমা আক্তার, আবুল কালাম আজাদ, বৃষ্টি রহমান সহ কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

পথমেলায় মেয়রকে স্বাগত জানিয়ে প্রবাসী বাংলাদেশীদের পক্ষে সংগঠনের সভাপতি মোঃ সোলায়মান আলী একটি সম্মাননা ক্রেষ্ট প্রদান করেন।
বিশেষ অবদানের জন্য সংগঠনের পক্ষ থেকে টাইটেল স্পন্সর সিপিএ আহাদ আলী, ডাইমন্ড স্পন্সর রিয়েল এস্টেট ইনভেস্টর নুরুল আজিম, মেলার উদ্বোধক আবু জাফর মাহমুদ, খলিল বিরিয়ানি হাউসের সত্ত্বাধিকারী খলিলুর রহমান ও মূলধারার রাজনীতিক মোহাম্মদ এন মজুমদারকে সম্মাননা ক্রেষ্ট প্রদান করা হয়।

এসময় উচ্ছ্বসিত জনতার ভালোবাসায় অভিভূত মেয়র এরিক অ্যাডামস উপস্থিত প্রবাসী বাঙালীদের উদ্দেশ্যে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য প্রদান করেন। তিনি মূলধারার রাজনীতিতে অংশগ্রহণ সহ নানা ক্ষেত্রে অবদানের জন্য বাঙালীদের ভূয়সী প্রশংসা করেন।
মেয়র এরিক সকলের সহযোগিতা কামনা করে বলেন, আমরা সিটির আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি সহ সার্বিক উন্নয়নে নিরলস কাজ করছি। আমি সবসময় আপনাদের পাশে আছি।
উল্লেখ্য, মেয়র হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর বাঙালীদের আয়োজনে কোন পথমেলায় মেয়র এরিক অ্যাডামস-এর এটিই ছিল প্রথম উপস্থিতি। মেয়রকে পেয়ে আনন্দ-উচ্ছ্বাসে ছিলেন ব্যান্ডস’র কর্মকর্তারা সহ প্রবাসী বাংলাদেশীরা।

ব্যান্ডস-এর কর্মকর্তাদের সার্বিক তত্ত্বাবধানে দেশজ সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্যকে তুলে ধরতে নানা রঙে সাজিয়ে তোলা হয় পুরো মেলা প্রাঙ্গণ। মেলায় বাংলাদেশী নানা ধরণের পোশাক, প্রসাধন, গয়না, টিউটোরিয়াল, রিয়েল এস্টেট, ফার্মেসি, মজাদার খাবার, দেশীয় পিঠাসহ বিভিন্ন পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসে বিক্রেতারা। স্টলগুলোতে দর্শনার্র্থীদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। বেশ বেচা-বিক্রি হয়েছে বলেও জানান বিক্রেতারা। সকাল থেকেই দর্শনার্থীরা আসতে থাকে মেলা আঙিনায়। চমৎকার আবহাওয়ায় বিপুল সংখ্যক প্রবাসীর অংশ গ্রহণে এটি পরিণত হয় স্মরণীয় মেলায়। উপচেপড়া দর্শনার্র্থীর অংশগ্রহণে শেষ হয় দিনব্যাপী এ আনন্দমেলা।

ব্যান্ডস আয়োজিত জমজমাট এ মেলায় সবচেয়ে আকর্ষণীয় ছিল বাংলাদেশের বরেণ্য সঙ্গীত শিল্পী রিজিয়া পারভীনের অনন্য পরিবেশনা। প্রবাসের জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী কামরুজ্জামান বকুল, মরিয়ম মারিয়া, ডা. কামরুল ইসলাম, অনুপ কুমার দাশ ড্যান্স একাডেমি সহ অন্যান্য শিল্পীরা নাচে গানে মাতিয়ে রাখেন আগত দর্শক-শ্রোতাদের। এসব মনোমুগ্ধকর পরিবেশনা প্রাণভরে উপভোগ করেন দর্শক-শ্রোতারা।
মেলায় র‌্যাফেল ড্রতে ছিলো আকর্ষণীয় পুরস্কার। সবশেষে র‌্যাফেল ড্র বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
মেলার বিভিন্ন পর্বে বক্তারা বলেন, নিউইয়র্ক সিটির অন্যতম সমৃদ্ধ এলাকায় পরিণত হয়েছে ব্রঙ্কস। ব্রঙ্কসে রয়েছে সিটি কাউন্সিল অনুমোদিত বাংলা বাজার এভিনিউ। ব্রঙ্কস নানা কারণে প্রবাসী বাংলাদেশীদের কাছে আকর্ষণীয় হয়ে ওঠছে দিন দিন। ব্রঙ্কসকে আরো এগিয়ে নেয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করে দলমত নির্বিশেষে সবাইকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান বক্তারা।

সংগঠনের সভাপতি বিশিষ্ট রিয়েল এস্টেট ব্রোকার, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের প্রবাসী কল্যাণ সম্পাদক মোঃ সোলায়মান আলী বলেন, আনন্দঘন পরিবেশে উপচে পড়া ভিড়ে মেয়রের উপস্থিতিতে আশাতীত সাফল্যে ব্যান্ডস মেলা সম্পন্ন হয়েছে। বাংলাদেশীদের বিশেষ গুরুত্ব প্রদান করে নিউইয়র্ক সিটির মেয়র এরিক এডামস প্রধান অতিথি হিসেবে ব্যান্ডস মেলায় উপস্থিত হয়ে প্রবাসী বাংলাদেশীদের নতুন ইতিহাস, উৎসাহ ও উদ্দীপনার জন্ম দিলেন। আমাদের আয়োজিত পথমেলায় উপস্থিত হওয়ার জন্য বিশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা নিউইয়র্ক সিটি মেয়রকে। ব্যান্ডস আয়োজিত ঈদ পুনর্মিলনী পথ মেলায় সর্ব প্রথম উপস্থিত হয়ে সিটি মেয়র এরিক এডামস নিউইয়র্ক প্রবাসী বাঙ্গালীদের জন্য নতুন ইতিহাস রচনা করলেন।
গ্র্যান্ড স্পনসর রিয়েল এস্টেট ইনভেস্টর আনোয়ার হোসেন সহ সকল স্পন্সর, অতিথি, সাংবাদিক, সংগঠনের কর্মকর্তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে তিনি বলেন, সকলের সার্বিক সহযোগিতার জন্য ব্যান্ডস প্রবাসে এক নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করতে পেরেছে। অত্যন্ত আনন্দঘন পরিবেশে সবার স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে এটি বাঙালিদের মিলন মেলায় পরিণত হয়। খ্যাতনামা শিল্পীদের নাচ, গান ও মূলধারার রাজনীতিবিদদের অংশগ্রহণে বাঙ্গালী সংস্কৃতির সাথে মাল্টি সাংস্কৃতিক বন্ধন রচনার এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। মূলধারার রাজনীতিবিদদের সাথে সেতুবন্ধন রচনায় মেলাটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।
সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মো. শামীম মিয়া বলেন, প্রবাসে বাঙালী সংস্কৃতি, ঐতিহ্য ও দেশীয় পণ্যকে তুলে ধরার প্রয়াসে আয়োজন করা হয় জমজমাট এ ঈদ পুুনর্মিলনী ও পথমেলা। প্রবাসীদের নির্মল আনন্দ দান, নতুন প্রজন্ম ও মূলধারায় বাংলাদেশকে তুলে ধরার প্রয়াসে আমাদের এ যাত্রা অব্যাহত থাকবে। তিনি মেলা আয়োজনে সম্পৃক্ত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, সংগঠনের সদস্যরা মেলাকে সফল করার জন্য দিন-রাত নিরলস শ্রম দিয়েছেন। এজন্য আশাতীত সফল হয়েছে এ মেলা। মেলার স্পন্সর, মিডিয়া, সংগঠনের নের্তৃবৃন্দসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান তিনি।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments