দুই বছর নয়, বললেন অপু, দুই বছর আগে নয়, মাহিও বললেন ‘রিসেন্ট’

না মাহি কোথাও দুই বছর আগে ডিভোর্স হয়েছে এমন স্টেটমেন্ট দেয়নি। যদি দুই বছর আগে ডিভোর্স হতো তাহলে এই দুই বছরের মধ্যে মাহির সঙ্গে আমার সকল সম্পর্ক তো অবৈধ হয়ে যাবে। মাহির সঙ্গে মাত্র কথা হলো- আমরা দুজনই গতকাল আলাপ করেই একসাথে বিবৃতি দিয়েছি। তার আর আমার কথার মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই। আমাদের বক্তব্য আলাদা হতেই পারে না- কালের কণ্ঠের সঙ্গে আলাপকালে কথাগুলো বলছিলেন পারভেজ মাহমুদ অপু।

অপুর কথাকে সমর্থন জানিয়ে একই কথা বললেন মাহি। সোমবার বিকেলে অভিনেত্রীকে কালের কণ্ঠকে বললেন, ‘সম্প্রতি আমাদের বিচ্ছেদ হয়েছে।’ 

আজ সোমবার পালিত হওয়ার কথা ছিল মাহি-অপুর পঞ্চম বিবাহবার্ষির্কী। কিন্তু একদিন আগেই বেজে উঠলো বিচ্ছেদের সুর। ২৩ মে রাতে ফেসবুকে পোস্টের মাধ্যমে পারভেজ মাহমুদ অপুর সঙ্গে বিচ্ছেদের কথা জানান মাহি। লেখেন, ‘এই পৃথিবীর সবচেয়ে ভালো মানুষটার সাথে থাকতে না পারাটা অনেক বড় ব্যর্থতা। পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ শ্বশুর বাড়ির মানুষগুলোকে আর কাছ থেকে না দেখতে পাওয়াটা, বাবার মুখ থেকে মা জননী, বড় বাবার মুখ থেকে সুনামাই শোনার অধিকার হারিয়ে ফেলাটা সবচেয়ে বড় অপারগতা।’

দুই বছর আগে ঘর ভেঙেছে তাদের। এতদিন বিষয়টি প্রকাশ করেননি-এমন কিছু কথা চাউর হয়। যাতে বিরক্তি প্রকাশ করেছেন অপু। অপু বলেন, দুই বছর আগে যদি ডভোর্স হতো তাহলে আমাদের একসাথে দেখলেন কিভাবে? মাঝখানে তো গুঞ্জন উঠেছিল সেটারও জবাব পেয়ে গেছে সবাই। আসলে প্রচুর ফোন আসছে যেটা বিরক্তিকর। আর এই বিরক্তির উদ্রেক ঘটে কিছু মানুষের কারণে, বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়ানোর কারণে। মাহিও আমাকে বললো দুই বছর আগে ডিভোর্স বা বিচ্ছেদ হয়েছে এমন কথা কোথাও বলেনি সে।

তিনি বলেন, মাহির সঙ্গে আমার বিচ্ছেদ হয়েছে কথাটি পুরোপুরি মিথ্যা। দুই বছর আগে যদি আমাদের বিচ্ছেদ হতো তাহলে কী আমরা একদিন একসঙ্গে সংসার করতাম? বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বেড়াতাম?’

অপু আরও বলেন, ‘গত রোজার শুরুতেও আমি আর মাহি বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বেড়ায়েছি। একসঙ্গে খুব ভালো সময় কাটিয়েছি। সত্য কথা বলতে সংসার করতে গেলে দুজনের মধ্যে নানা বিষয়ে মতের অমিল হতে পারে। দুই বছর আগে কিছু বিষয় নিয়ে আমাদের মধ্যে মান-অভিমান হয়েছিল। পরে তা ঠিকও হয়ে যায়। সমাজের অন্য আট-দশটা সংসারেও এমনটা হয়ে থাকে। কোনো পোর্টাল পত্রিকা যদি কাটতির জন্য এমন করে তাহলে দুঃখজনক। 

মাহির সঙ্গে যোগাযোগ এখনো আছে এমন প্রশ্নের জবাবে অপু বলেন, হ্যাঁ তার সঙ্গে আমার যোগাযোগ আছে, কথা হচ্ছে নিয়মিত। 

রবিবার মাহির স্ট্যাটাসে দেশের শোবিজ অঙ্গনে শোরগোল ওঠে। নিজের সোশ্যাল হ্যান্ডেলের মাধ্যমে স্বামীর সঙ্গে আলাদা থাকার বিষয়টি প্রকাশ করেন। পরে কালের কণ্ঠকে মোবাইল মেসেজের মাধ্যমে বিষুয়টি নিশ্চিত করেন। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

English