Monday, May 29, 2023
spot_img
Homeখেলাধুলাতুর্কমেনিস্তানের জালে ৪ গোল মেয়েদের

তুর্কমেনিস্তানের জালে ৪ গোল মেয়েদের

মাস খানেক আগে কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহি মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে দক্ষিণ এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট পরেছিল বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২০ নারী ফুটবল দল। আসরের সেরা খেলোয়াড় ও সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছিলেন দলটির অধিনায়ক শামসুন্নাহার। শামসুন্নাহারের নেতৃত্বেই এএফসি অনূর্ধ্বÑ২০ নারী এশিয়ান কাপের বাছাই পর্বে মাঠে নামার কথা ছিল স্বাগতিক বাংলাদেশের। কিন্তু চোটের কারণে কাল মাঠেই নামতে পারেননি বাংলাদেশ অধিনায়ক। তুর্কমেনিস্তানের বিপক্ষে অধিনায়কের অনুপস্থিতি প্রথমার্ধে বেশ টের পেয়েছে স্বাগতিক বাংলাদেশ। ম্যাচের প্রথমার্ধে একের এক এক আক্রমণ করে দক্ষ ফিনিশারের অভাবে গোলের দেখা পাচ্ছিলো না গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা। তখনই ত্রাতা হয়ে এলেন আকলিমা খাতুন। করলেন জোড়া গোল। জালের দেখা পেলেন স্বপ্না রানীও। দুই ফরোয়ার্ডের নৈপুণ্যে এএফসি অনূর্ধ্ব-২০ এশিয়ান কাপের বাছাইয়ে শুভ সূচনা পেলো দল।

কাল এদের নৈপুণ্যে তুর্কমেনিস্তানকে ৪-০ গোলে হারায় বাংলাদেশ। ‘এইচ’ গ্রুপে নিজেদের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচে আগামী রোববার ইরানের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ দল। একটি করে জয়ে দুই দলের পয়েন্ট সমান হলেও গোল পার্থক্যে এগিয়ে ইরান।
এদিন শুরু থেকেই বলের নিয়ন্ত্রণে এগিয়ে থাকে বাংলাদেশ। খেলাও হতে থাকলো তুর্কমেনিস্তানের অর্ধে। কিন্তু ইরান ম্যাচে দারুণ কিছু সেভ করা গোলরক্ষক আমানবেরদিয়েভা আয়েশার তেমন কোনো পরীক্ষাই নিতে পারছিলেন না আকলিমা-আইরিনরা। অষ্টাদশ মিনিটে আইরিন খাতুনের দূরপাল্লার শটে গতি ছিল না। বল সোজা যায় গোলরক্ষক বরাবর। দুই মিনিট পর রক্ষণের ভুলে বক্সে বল পেয়ে যান আকলিমা খাতুন। কিন্তু বক্সে ওয়ান-অন-ওয়ান পজিশনে গোলরক্ষককে পেয়েও দুর্বল শটে হতাশা বাড়ান এই ফরোয়ার্ড। ম্যাচের ৩৭তম মিনিটে মাঝমাঠ থেকে একক প্রচেষ্টায় আক্রমণে ওঠেন তাগানোভা শাসেনেম। রক্ষণের বাধা পেরিয়ে তুর্কমেনিস্তানের এই ফরোয়ার্ড পোস্ট ছেড়ে বেরিয়ে আসা রূপনা চাকমাকে একা পেয়ে যান। তার শট আটকে বাংলাদেশের ত্রাতা গোলরক্ষক। বাংলাদেশের চাপ সামলে এটাই ছিল তুর্কমেনিস্তানের প্রথম আক্রমণ। প্রথমার্ধের যোগকরা সময়ে ডেডলক খুলেন আকলিমা। শামসুন্নাহারের (জুনিয়র) অনুপস্থিতি শুরু থেকে টের পাচ্ছিল বাংলাদেশ। অবশেষে প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে স্বস্তির হাসি হাসে দল। স্বপ্না রানীর কর্নার আয়েশা ফিস্ট করলেও পুরোপুরি বিপদমুক্ত করতে পারেননি। বক্সে জটলার ভেতর থেকে নিখুঁত টোকায় দলকে এগিয়ে নেন আকলিমা। ম্যাচের ৭১তম মিনিটে ডান দিক থেকে ইতি খাতুন বক্সে ক্রস বাড়ান, নিখুঁত ফ্লিকে গোলমুখ থেকে জাল খুঁজে নেন আকলিমা। প্রথমার্ধের মতো দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেও বিবর্ণ ফুটবল খেলা বাংলাদেশের ডাগআউট নেচে ওঠে ব্যবধান দ্বিগুণের আনন্দে। বাছাইয়ের প্রথম ধাপে গ্রুপ সেরা দল পাবে দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলার টিকিট। এ কারণে কেবল জয় নয়, গোল ব্যবধানও হয়ে উঠতে পারে গুরুত্বপূর্ণ। সে পাতায় তুর্কমেনিস্তানের বিপক্ষে ইরান ৭-১ গোলে জিতে এগিয়ে ইরান। তুর্কমেনিস্তান ম্যাচে বাংলাদেশের চাওয়াও ছিল বড় ব্যবধানে জেতা। আকলিমা যেখানে থামেন, সেখান থেকেই শুরু করেন স্বপ্না রানী। তার এক মিনিটের মধ্যে জোড়া গোলে সে সম্ভাবনা জাগায় গোলাম রব্বানী ছোটনের দল। ৮০তম মিনিটে ইতি খাতুনের ক্রসে বক্সের ভেতরে হেডে লক্ষ্যভেদ করেন স্বপ্না। পরের মিনিটেই বক্সের বাইরে থেকে স্বপ্নার জোরালো শট তুর্কমেনিস্তানের এক ডিফেন্ডারের পায়ে লেগে কিছুটা দিক পাল্টে লুটোপুটি খায় জালে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments