Sunday, June 23, 2024
spot_img
Homeনির্বাচিত কলামতদন্ত করে ব্যবস্থা নিন

তদন্ত করে ব্যবস্থা নিন

সিদ্দিকবাজারে ভয়াবহ বিস্ফোরণ

রাজধানীর সিদ্দিকবাজারে ভয়াবহ বিস্ফোরণের পর এক মর্মান্তিক অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। গত ৭ মার্চ মঙ্গলবার বিকেল পৌনে ৫টার দিকে সিদ্দিকবাজারের নর্থ সাউথ রোডের একটি সাততলা ভবনে বিস্ফোরণ ঘটে। এর পাশের একটি পাঁচতলা ভবনও এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এই দুর্ঘটনায় নিহত ১৭ জনের মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে ২১ জন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে এবং ১০ জন শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি রয়েছেন।

একের পর এক এ ধরনের ঘটনা ঘটছে রাজধানী ঢাকায়। গত ১৯ ফেব্রুয়ারি গুলশানে বহুতল একটি আবাসিক ভবনে বিস্ফোরণের পর আগুন ধরে যায়। গত রবিবার সায়েন্স ল্যাবরেটরি এলাকায় মিরপুর রোডে তিনতলা একটি ভবন বিস্ফোরণে আংশিক ধসে পড়ে। ওই ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে তিনজনের; আহত হয়েছেন অন্তত ৩০ জন। দুই বছর আগে মগবাজারে একটি চারতলা ভবন ধসে পড়েছিল বিস্ফোরণে। নিহত হয়েছিলেন ১২ জন। এর বাইরেও ছোটখাটো বেশ কয়েকটি বিস্ফোরণ ঘটেছে ঢাকায় দুই বছরে।

অপরিকল্পিতভাবে গড়ে তোলা এ শহরে ভূগর্ভস্থ পয়োবর্জ্য লাইন, বিদ্যুৎ লাইন, গ্যাসের লাইন—কোনটা কোন দিক দিয়ে গেছে তা কি কারো জানা আছে? বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, যেকোনো সময় যেকোনো স্থানে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। এটার মূল কারণ ‘ম্যাপিং’ নেই। বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, বড় ভূমিকম্প হলে রাজধানীর অর্ধেক মানুষই পুড়ে মারা যাবে। তাহলে রাজধানী ঢাকা কি বিস্ফোরণের মুখে দাঁড়িয়ে আছে? ঘনবসতিপূর্ণ ঢাকায় বিস্ফোরণের কারণ হিসেবে কখনো কখনো জমে থাকা গ্যাসকে চিহ্নিত করা হয়েছে। কিন্তু এর প্রতিকার কিভাবে হবে। অনেকে এসব ঘটনার পেছনে নাশকতারও আশঙ্কা করছেন।

এমনিতেই রাজধানী ঢাকাসহ বাংলাদেশের বেশির ভাগ এলাকায় ভূমিকম্পের ঝুঁকি প্রবলভাবে রয়েছে। কোনো ধরনের ঝড়ঝঞ্ঝা বা প্রাকৃতিক দুর্যোগ ছাড়াই যেখানে এভাবে ভবন ধসে পড়ে, সেখানে সাত বা আট মাত্রার ভূমিকম্প হলে কী অবস্থা হবে? সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কি বিষয়টি ভেবে দেখেছে? বুয়েটের এক গবেষণায় দেখা গেছে, রিখটার স্কেলে সাত মাত্রার একটি ভূমিকম্প হলে ৩৫ শতাংশ এবং আট মাত্রার ভূমিকম্প হলে ৪৩ শতাংশ বাড়িঘর ধসে পড়বে।

এই মৃত্যুপুরীকে জীবনের স্পন্দনে ভরিয়ে তোলার দায়িত্ব কার? যদি সেই দায়িত্ব কারো থেকেই থাকে, তারা কি তা পালন করছে?

আমরা আশা করব, এসব ঘটনার যথাযথ তদন্ত হবে। এগুলো আসলে দুর্যোগ, নাকি মনুষ্যসৃষ্ট—সে বিষয়ে নিশ্চিত হতে হবে। আমরা মনে করি বিশেষজ্ঞদের নিয়ে একটি কমিটি করে এসব ঘটনার মূল কারণ খুঁজে বের করা দরকার।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments