বিতর্কিত সমুদ্রাঞ্চল থেকে তুরস্কের জাহাজ সরিয়ে নেয়ার পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়ে আলোচনায় বসার আগ্রহের কথা জানিয়েছে গ্রীস। দেশটি জানিয়েছে, যদি তুরস্ক এভাবে এই সংকট থেকে নিজেকে সরিয়ে নিতে থাকে তাহলে আলোচনায় গ্রীসের কোনো সমস্যা নেই। গ্রীসের প্রধানমন্ত্রী কিরিয়াকোস মিতসোতাকিস বলেছেন, তুরস্কের হাতে এখনো সময় আছে। আগামী ২৪-২৫ তারিখ ইউরোপীয় ইউনিয়নের সম্মেলন বসতে যাচ্ছে। এরমধ্যেই তাদের সংকট থেকে পুরোপুরি বেড়িয়ে যাওয়ার সুযোগ রয়েছে। এ খবর দিয়েছে কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল-জাজিরা।
খবরে জানানো হয়েছে, আসন্ন সম্মেলনের পূর্বেই ইউরোপীয় ইউনিয়ন কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট চার্লস মাইকেলের সঙ্গে বৈঠক করেছেন গ্রীসের প্রধানমন্ত্রী। বৈঠকের জন্য দেশটির রাজধানী এথেন্সে আসেন মাইকেল। গত মাস ধরে দুই ন্যাটো সদস্যের মধ্যে উত্তেজনা তুঙ্গে উঠে আছে।

ভূমধ্যসাগরে গ্রীসের সমুদ্রাঞ্চলে তুরস্কের জাহাজ মোতায়েন নিয়ে এ সংকটের শুরু। তুরস্কের দাবি ওই অঞ্চল তাদের এলাকাভুক্ত। এ নিয়ে গ্রীসের পাশে এসে দাঁড়ায় ফ্রান্স। তুরস্ককে শায়েস্তায় ইউরোপীয় ঐক্যের দাবি তোলেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন। ইউরোপীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠকও করেন তিনি। এর আগে বিতর্কিত সমুদ্রাঞ্চলে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে সঙ্গে নিয়ে নৌমহড়া চালায় গ্রীস। সর্বশেষ নিজ দেশের সেনাবাহিনীকে ঢেলে সাজানোর ঘোষণা দিয়েছে দেশটি। এ জন্য গত ২ দশকের মধ্যে সবথেকে বেশি সামরিক উন্ননের পদক্ষেপ নেয়া হয়। এ ঘোষণার পরদিনই তুরস্ক তার জাহাজ ফিরিয়ে নিয়ে যায়। ফলে পরিস্থিতি আপাতত শান্ত হওয়ার পথে রয়েছে। গ্রীসও তুরস্কের এমন সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে।
তবে এরপরেও তুরস্ককে নিষেধাজ্ঞার মুখে পরতে হতে পারে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। তবে তুর্কি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, তারা চান কূটনৈতিক পথেই সমস্যার সমাধান হোক। তুরস্ক জাহাজ সরিয়ে নেয়ার পর এখন গ্রীক কর্মকর্তারাও পরিস্থিতি স্থিতিশীল রাখার বিষয়ে আগ্রহ দেখাচ্ছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

English