Friday, April 19, 2024
spot_img
Homeআন্তর্জাতিকজার্মানিতে ইসরাইলি রাষ্ট্রদূতকে হয়রানির অভিযোগ

জার্মানিতে ইসরাইলি রাষ্ট্রদূতকে হয়রানির অভিযোগ

জার্মানির রাজধানী বার্লিনে ফিলিস্তিনপন্থি একদল ব্যক্তি দেশটিতে নিযুক্ত ইসরাইলি রাষ্ট্রদূত রন প্রসোরকে হয়রানি করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। গাজা সংঘাতের রক্ত প্রসোরের হাতে লেগে আছে বলে চিৎকার করেন তারা।

বুধবার পুলিশের এক মুখপাত্র জানান, তারা ঘটনার তদন্ত করছেন। তবে ঘটনার খুব বেশি বিস্তারিত জানাননি তারা। স্থানীয় পত্রিকাগুলোর খবরে জানা গেছে, প্রসোরের একটি ব্যক্তিগত সাক্ষাতের সময় এক দল ব্যক্তি তাকে বাধা দেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এক্স-এ প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা যায়, ফিলিস্তিনপন্থি ঐ আন্দোলনকারীরা প্রসোরের উদ্দেশ্যে চিৎকার করছে।

প্রসোরের সঙ্গে এ সময় একাধিক দেহরক্ষী ছিলেন। তারা বিক্ষোভকারীদের প্রসোরের কাছে আসতে দেননি। প্রসোরের হাতে গাজার রক্ত লেগে আছে বলে অভিযোগ করেন তারা। সেখানে বলতে শোনা যায়, ‘‘লুকাতে পারবেন না রন প্রসোর। আমরা আপনাকে গণহত্যার অভিযোগে অভযুক্ত করছি।”

বার্লিন মেয়র কাই ভেগনার ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন। রাষ্ট্রদূত অক্ষত ছিলেন বলে তিনি স্বস্তি প্রকাশ করেন। ‘ইসরাইলের লোকজনকে এভাবে ব্যক্তিগতভাবে হয়রানি ও হুমকি দেয়া কোনো ভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়,’ বলেন ভেগনার। তিনি যোগ করেন, ‘বার্লিন কোনো রকমের বিদ্বেষ ও উস্কানি মেনে নেবে না এবং এখানকার সমাজ, বিদ্যাপীঠ বা কোথাও ইহুদিবিদ্বেষের ঘটনা ঘটলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

ইসরাইলের সমালোচকরা দেশটি গাজায় হামাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে ফিলিস্তিনের ওপর গণহত্যা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন। এমনকি আন্তর্জাতিক আদালত আইসিজেতে দেশটির বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। ইসরাইল অবশ্য এসব অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে।

হামাস নিয়ন্ত্রিত গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হিসেবে, ইসরাইল সেনা অভিযান শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ৩০ হাজার ফিলিস্তিনি মারা গেছেন। তারা অবশ্য হামাস যোদ্ধা ও সাধারণ মানুষের মধ্যে কোনো পার্থক্য দেখায়নি। অন্যদিকে, ইসরাইল বলছে, ১০ হাজার জঙ্গি হত্যা করা হয়েছে, যদিও স্বপক্ষে কোনো প্রমাণ হাজির করেনি।

ইসরাইল বলছে, ইসরাইলের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় মাসাকারের পর আত্মরক্ষায় গাজায় তাদের অভিযানে কোনো ভুল নেই। গত ৭ অক্টোবর হামাস ও অন্য সন্ত্রাসী সংগঠনের সদস্যরা ইসরাইলে হামলা চালিয়ে এক হাজার ২০০ জনকে হত্যা করেন এবং ২৫০ জনকে তুলে নিয়ে যান। হামাসকে ইসরাইল, জার্মানি, যুক্তরাষ্ট্র ও আরো কয়েকটি দেশ সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে চিহ্নিত করেছে। সূত্র: ডয়চে ভেলে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments