Sunday, May 19, 2024
spot_img
Homeকমিউনিটি সংবাদ USAজাতিসংঘে ফিলিস্তিনের সদস্যপদ আটকে দিলো যুক্তরাষ্ট্র

জাতিসংঘে ফিলিস্তিনের সদস্যপদ আটকে দিলো যুক্তরাষ্ট্র

ফিলিস্তিন নিয়ে জাতিসংঘের প্রস্তাবে ভেটো দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। প্রস্তাবে ফিলিস্তিনকে জাতিসংঘে ‘সম্পূর্ণ সদস্য পদ’  দেয়ার কথা বলা হয়েছিল। আমেরিকা তাতে রাজি হয়নি। বৃহস্পতিবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে এই প্রস্তাব আনা হয়। ১৫ সদস্যের নিরাপত্তা পরিষদে আলজেরিয়া প্রস্তাবটির খসড়া তৈরি করেছিল। সেখানে বলা হয়েছিল, ফিলিস্তিনকে পূর্ণ সদস্য হিসেবে গ্রহণ করা হোক। ১২টি দেশ প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দেয়। দুইটি দেশ ভোট  দেয়া থেকে বিরত থাকে। আমেরিকা প্রস্তাবের বিপক্ষে ভোট দেয়। অর্থাৎ, নিজেদের ভেটো ক্ষমতা ব্যবহার করে তারা।

নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য আমেরিকা, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, রাশিয়া এবং চীন। কোনও প্রস্তাব পাস করাতে হলে নিরাপত্তা পরিষদের অন্তত নয়টি সদস্য দেশকে প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দিতে হয়। স্থায়ী সমস্ত দেশকে প্রস্তাবের পক্ষে থাকতে হয়। একটি দেশ ভেটো দিলে প্রস্তাব পাস হয় না। শুধু তা-ই নয়, নিরাপত্তা পরিষদে প্রস্তাব পাস হলে জাতিসংঘের সাধারণ সভায় দুই-তৃতীয়াংশ ভোট পেলে তবেই ফিলিস্তিন জাতিসংঘের সদস্য হতে পারবে। এখন তারা কেবলই অবজারভার হিসেবে সেখানে আছে।  ভোটের পর জাতিসংঘের মুখপাত্র সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ‘ভাবনা ভালো ছিল। কিন্তু এদিনের প্রস্তাব সময়ের আগেই নেয়া হয়েছে।

এভাবে ফিলিস্তিনকে সদস্য করা সম্ভব নয়। ভোটের আগে আমেরিকার মুখপাত্র জানিয়েছিলেন, আমেরিকা চায় ফিলিস্তিন আলাদা রাষ্ট্রের সম্মান পাক। কিন্তু সেই আলোচনা সরাসরি ফিলিস্তিন এবং ইসরাইলের সদস্যদের একসঙ্গে বসে করতে হবে। আমেরিকা সেখানে মধ্যস্থতা করতে পারে মাত্র। উল্লেখ্য, ১৯৯৩ সালের সেপ্টেম্বরে অসলো চুক্তিতে ফিলিস্তিনকে নিজস্ব প্রশাসন ও সরকার গঠনের সুযোগ দেয়া হয়। কিন্তু তাদের রাষ্ট্রের সম্মান দেয়া হয়নি। তবে ভবিষ্যতে যাতে তারা রাষ্ট্রের সম্মান পেতে পারে, সেই রাস্তা তৈরি করে রাখা হয়েছিল। এদিকে মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনা অব্যাহত রয়েছে। বৃহস্পতিবার ইরানের মদতপুষ্ট ইয়েমেনের হুতি গোষ্ঠী জানিয়েছে, ইসরাইল গাজা আক্রমণ করার পর থেকে লাগাতার তারা  লোহিত সাগরে জাহাজের ওপর আক্রমণ চালাচ্ছে। এই নিয়ে মোট ১০০টি জাহাজে হামলা চালানো হয়েছে। হুতিদের মুখপাত্র একটি  টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, ভারত মহাসাগরে তারা অভিযান শুরু করেছে। অর্থাৎ, জলপথে ইসরাইলের দক্ষিণে পৌঁছানোর চেষ্টা করছে তারা। মুখপাত্র জানিয়েছেন, ইসরায়েলের বিরুদ্ধে আক্রমণ আরও  জোরদার হবে। ইসরাইল গাজা উপত্যকায় আক্রমণ শুরু করার পর  থেকেই হুতি বিদ্রোহীরা লোহিত সাগরে জাহাজের ওপর আক্রমণ শুরু করে। এদিকে গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ইসরাইলের আক্রমণে গাজা ভূখণ্ডে এখনও পর্যন্ত ৩৪ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে অসংখ্য নারী এবং শিশু আছে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments