Tuesday, July 16, 2024
spot_img
Homeবিচিত্রচুল খেয়ে পেট ভরেছে চীনা কিশোরী! বের হলো অস্ত্রোপচারে

চুল খেয়ে পেট ভরেছে চীনা কিশোরী! বের হলো অস্ত্রোপচারে

সারা বিশ্বের মানুষের অদ্ভুত সব নেশার কথা প্রায়ই শোনা যায়। কিন্তু নিজের অতিরিক্ত চুল খেয়ে এবার তাক লাগিয়েছে ১৪ বছর বয়সী এক চীনা কিশোরী। অতিরিক্ত চুল চিবানো এবং খাওয়ার অদ্ভুত অভ্যাস রয়েছে তার।

সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট (এসসিএমপি) অনুসারে, বছরের পর বছর ধরে সে এত চুল চিবিয়েছে যে তার পেটে তিন কেজি ওজনের একটি চুলের বল তৈরি হয়েছে।

শুধু তা-ই নয়, সে তার চুল এতটাই টেনেছে যে সে প্রায় টাক হয়ে গেছে।

একসময় মেয়েটি খুব অসুস্থ হয়ে পড়লে এবং খাবার খেতে না পারায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। দুই ঘণ্টার অস্ত্রোপচারের পর চিকিৎসকরা তার পেট এবং অন্ত্র থেকে ইটের ওজনের চুলের বলটি বের করে আনেন।

এসসিএমপির প্রতিবেদন অনুসারে, চীনের শানসি প্রদেশের ওই মেয়ে পিকা নামের রোগে ভুগছিল। এ রোগে আক্রান্তরা বাধ্যতামূলকভাবে ময়লা, কাগজ, কাদামাটি এবং অন্যান্য অখাদ্য বস্তু খায়। তাকে তার দাদা-দাদি বড় করেছেন। কারণ তার মা-বাবা কাজের জন্য দূরে থাকতেন। তার দাদা-দাদি রোগটি খুব গুরুতর না হওয়া পর্যন্ত লক্ষ করেননি।

ওই কিশোরীর চিকিৎসার দায়িত্বে থাকা জিয়ান ডেক্সিং হাসপাতালের গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজিস্ট শি হাই বলেছেন, ‘সে আমাদের কাছে এসেছিল, কারণ সে খেতে পারত না। তখন আমরা দেখতে পেলাম যে তার পেট এত পরিমাণ চুলে ভরা যে খাবারের আর জায়গা নেই, তার অন্ত্রও বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। ’

শি আরো বলেন, ‘সে তার দাদা-দাদির সঙ্গে থাকে, যারা তার আচরণের প্রতি যথেষ্ট মনোযোগ দেননি। সে হয়তো অনেক বছর ধরে মানসিক সমস্যায় ভুগছে। তাই আমি আশা করি, বাবা-মায়েরা সাধারণভাবে দূরে থাকা শিশুদের সঙ্গে আরো বেশি সময় কাটাতে পারে। ’

এর আগেও এমন ঘটনা ঘটেছে, যেখানে মারাত্মক পরিমাণে চুল খাওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছিল। নিউ ইয়র্ক পোস্ট জানিয়েছে, ২০১৭ সালে যুক্তরাজ্যে ১৬ বছর বয়সী এক শিক্ষার্থী তার পেটে চুলের বল থেকে সৃষ্ট সংক্রমণের কারণে হঠাৎ মারা গিয়েছিল।

যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট অনুসারে, যেসব রোগী তাদের নিজের চুল গিলে ফেলে তাদের প্রায়ই রাপুঞ্জেল সিনড্রোম ধরা পড়ে। এটি ট্রাইকোফ্যাগিয়া নামক মানসিক রোগের কারণে হয়ে থাকে।

সূত্র : এনডিটিভি

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments