Wednesday, June 12, 2024
spot_img
Homeজাতীয়চতুর্দিক থেকে সরকারের বিদায় ঘণ্টা বাজছে : ফখরুল

চতুর্দিক থেকে সরকারের বিদায় ঘণ্টা বাজছে : ফখরুল

দেশের সর্বক্ষেত্রে দুর্নীতি একটা সর্বগ্রাসী ব্যাধিতে পরিণত হয়েছে। এ দুর্নীতির কারণেই দ্রব্যমূল্য বেড়েই চলেছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি।

আজ শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ঢাকা মহানগর বিএনপি উত্তর-দক্ষিণের যৌথ উদ্যোগে ‘তেল, গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির’ প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশে বিএনপি মহাসচিব এ কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, টিসিবির ট্রাকের সামনে মানুষের দীর্ঘ লাইন দেখা যাচ্ছে।

সেখানে মধ্যবিত্তদের সংখ্যাও অনেক। গ্যাস, বিদ্যুৎ ও পানির দাম প্রতিবছর দুই-তিনবার বাড়ানো হচ্ছে। এর কারণ একটাই। সরকার এবং পুরো প্রশাসন দুর্নীতির স্বর্গরাজ্যে পরিণত হয়েছে। ওয়াসার এমডির বেতন কমপক্ষে ৫ থেকে ৬ লাখ টাকা। তাঁকে তিনবার চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দিয়ে দুর্নীতির সুযোগ দেওয়া হয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, প্রতিবছর সরকারকে ৫৭ লক্ষ মেট্রিক টন চাল আমদানি করতে হচ্ছে। কিন্তু সরকার বলছে, খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। কুইক রেন্টাল প্ল্যান্ট এবং বিদ্যুতের সামগ্রী আমদানি করতে এতো বেশি দুর্নীতি হচ্ছে যে দাম বাড়ানো ছাড়া উপায় থাকছে না।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ভুর্তকি দেওয়া আর যাবে না। আমি বলতে চাই, দরকার হবে না তো। চুরি বন্ধ করেন, লুট বন্ধ করেন ভুর্তকি দিতে হবে না। চুরি করছেন, লুট করছেন বলে ভর্তুকি দিতে হয়।

গণ পেনশনের নামে সরকার আরেকটা ‘লুটের কায়দা-কানুন’ করছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।  

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘পত্রিকায় দেখলাম, যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা কাটাতে লবিস্ট নিয়োগ দিয়েছে সরকার। মাসে ২০ হাজার ডলার দিতে হবে। এতদিন তো লম্বা লেকচার মারলেন, অনেক কথা বললেন। এখন কেন লবিস্ট নিয়োগ করছেন? কারণ একটাই -জনগণের ট্যাক্সের টাকা দিয়ে লবিস্ট নিয়োগ করে জনগণের ওপর নির্যাতন করা, গুম করা, খুন করা তাকে হালাল করছেন, তাকে আড়াল করতে চাইছেন। এখন চতুর্দিক থেকে সরকারের বিদায় ঘণ্টা বাজতে শুরু করেছে। আর উপায় নেই। যতই ওলট-পালট করেন, যতই লবিস্ট নিয়োগ করেন আর যতই পাল্টা ডিগবাজি দিতে থাকেন, সুন্দর কথা বলেন লাভ নেই। ’

মহানগর দক্ষিণের আহ্বায়ক আবদুস সালামের সভাপতিত্ব ও উত্তরের আমিনুল হক ও দক্ষিণের ইউনুস মৃধার সঞ্চালনায় সমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, কেন্দ্রীয় নেতা আমান উল্লাহ আমান, হাবিবুর রহমান হাবিব, শ্যামা ওবায়েদ, নাসির উদ্দিন অসীমসহ কেন্দ্রীয় ও অঙ্গসংগঠনের নেতারা বক্তব্য রাখেন।

সকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি কার্যালয়ে বিএনপির উদ্যোগে পিলখানায় নিহত বিডিআর কর্মকর্তাদের স্মরণে আলোচনা সভা হয়। দুপুওে জাতীয় প্রেস ক্লাবে লেবার পার্টির উদ্যোগে পিলখানার ট্র্যাজেডিতে নিহতদের মাগফিরাত কামনায় আয়োজিত আলোচনা সভায় হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, এ ঘটনার যারা পরিকল্পনা করেছে, তারা বিচারের বাইরে রয়ে গেছে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments