ঝিনুক কিংবা শামুক খাওয়ার প্রচলন আছে অনেক দেশেই। বিশেষ করে চীন-থাইল্যান্ডে সামুদ্রিক ঝিনুক অনেকেরই প্রিয় খাবার। তবে এই ঝিনুক খেতে গিয়ে কোটি টাকার মালিক বনে গেলেন থাইল্যান্ডের এক নারী। নাম তার কোদচাকর্ন তান্তিইউওয়াটকুল। থাইল্যান্ডের সাতুন প্রদেশের বাসিন্দা তিনি। জানা গেছে, মাত্র ৭০ ভাট বা বাংলাদেশী মুদ্রায় ১৯০ টাকা খরচ করে খাওয়ার জন্য সামুদ্রিক ঝিনুক অর্ডার করেছিলেন তিনি। সেটি খাওয়ার সময় তার মধ্যে কয়েক কোটি টাকার মুক্তো দেখতে পান ওই দরিদ্র নারী। অবাক ব্যাপার হলেও ঘটনা সত্যি। ঝিনুকটি বাড়িতে নিয়ে খাওয়ার জন্য টুকরো করেন তিনি। তখনই দেখতে পান সেটির ভেতরে কমলা রংয়ের একটি পিন্ড। প্রথমে ভেবেছিলেন পাথর হবে। পরে বুঝতে পারেন সেটি আসলে মুক্তো। তাও আবার যে সে নয়, দামি মেলো পার্ল। জানা গেছে, ১.৫ সেন্টিমিটার ব্যাসের ওই মুক্তোর ওজন ৬ গ্রাম। অর্থাৎ আন্তর্জাতিক বাজারে যার দাম ৩ কোটি টাকার বেশি। প্রথমে ওই মহিলা এবং তার পরিবার গোটা বিষয়টি গোপন করেন। কারণ তারা ভেবেছিলেন, জানতে পারলে যে দোকানী ওই খাবার বিক্রি করেছেন, তিনি হয়তো সেটি ফেরত চাইবেন। তবে পরবর্তীতে তারা সেটি বিক্রির ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেন। কোদচাকর্নের বাবা নিওয়াত জানান, তার স্ত্রী অর্থাৎ কোদচাকর্নের মা ক্যান্সারে আক্রান্ত। মুক্তোটি বিক্রির অর্থ তারই চিকিৎসায় খরচ করতে চান তিনি। ডেইলি মেইল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

English