ক্যারিয়ারের শেষ সময়টা ভালো যায়নি তাপস পালের

টলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা ও সাবেক সাংসদ তাপস পাল আর নেই। ভারতের মুম্বাইয়ের একটি বেসরকারি হাসপাতালে মঙ্গলবার ভোররাতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন এই জনপ্রিয় অভিনেতা। মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৬১ বছর।

ওপার বাংলার ছবির জগতে তার অনেক অবদান। দাদার কীর্তি, গুরুদক্ষিণা, ও সাহেব ছবির জন্য বাঙালির মনে চিরকালের জন্য জায়গা করে নিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ বয়সে যেমন শরীর ভালো ছিল না, তেমনই মানসিক শান্তিও ছিল না। এমনকী, শেষের দিকে ফের অভিনয়ে ফিরতে চেয়ে কাজের ইচ্ছা প্রকাশ করেন তাপস পাল।

পরিচালক অরিন্দম শীল তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে জানান, খুব বড় অভিনেতা ছিলেন। উত্তম কুমারের পরে তারকা হিসেবে তাকে ধরা যায়। কিন্তু মাস দু’য়েক আগে কাজের খোঁজ করে ফোন করেছিলেন। আমি অবাক হয়েছিলাম যে তাপস পালের মতো অভিনেতা আমায় ফোন করে কাজ চাইছেন!’

অভিনেত্রী ইন্দ্রাণী হালদারক বলেন, তাপসদার মতো অভিনেতা চলে যাওয়া বড় ক্ষতি। তিনি একজন ভালো মানুষও ছিলেন। আমাকে বলেছিলেন আবার কাজে ফিরতে চাই। কোনও প্রযোজকের সঙ্গে কথা বলে দেখিস কোনও কাজ আছে কি না। আমি বলেছিলাম, আরে তুমি তাপস পাল। তোমার মতো অভিনেতা দরকার। নন্দিনীদিও ফোন করে বলেছিলেন, দেখ তোর দাদাকে একটু ব্যস্ত করা যায় কি না।

প্রসঙ্গত, অভিনয়ের পাশাপাশি রাজনীতিতেও জায়গা করেছিলেন তিনি। বাংলার রাজনীতিতে দু’বারের বিধায়ক, দু’বারের সাংসদ তিনি। আর কোনও বাঙালি অভিনেতা এতটা সাফল্য এখনও দেখাতে পারেননি নির্বাচনী রাজনীতিতে। কিন্তু তার পর ‘ট্র্যাজেডি নায়ক’ হয়েই থাকলেন তিনি। সূত্র : কলকাতা ২৪X৭।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

English