Tuesday, July 5, 2022
spot_img
Homeধর্মকোরআনে মানুষের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের বর্ণনা

কোরআনে মানুষের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের বর্ণনা

সৃষ্টির সেরা মানুষ আল্লাহর অন্যতম বিস্ময়কর সৃষ্টি। আল্লাহ মানুষকে সুন্দরতম অবয়বে সৃষ্টি করেছেন। ইরশাদ হয়েছে, ‘আমি তো সৃষ্টি করেছি মানুষকে সুন্দরতম গঠনে।’ (সুরা : ত্বীন, আয়াত : ৪)

মানুষের সুন্দরতম অবয়ব গঠনের আলোচনা পবিত্র কোরআনে নানাভাবে এসেছে। এতে যেমন আছে মানুষের দেহ সৃষ্টির প্রক্রিয়া, তেমনি আছে দেহের নানা অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের সাধারণ বিবরণ। এতে যেমন আছে অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের সংযত ব্যবহারের নির্দেশনা, তেমনি আছে অসংযত ব্যবহারের ভয়াবহ পরিণতির কথা। নিম্নে মানবদেহের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সংক্রান্ত কিছু আয়াত তুলে ধরা হলো।

১. হাত : আল্লাহ বলেন, ‘হে মুমিনরা! যখন তোমরা সালাতের জন্য প্রস্তুত হবে, তখন তোমরা তোমাদের মুখমণ্ডল ও হাত কনুই পর্যন্ত ধৌত করবে।’ (সুরা : মায়িদা, আয়াত : ৭)

২. হাতের তালু : আল্লাহ বলেন, ‘তার ফল-সম্পদ বিপর্যয়ে বেষ্টিত হয়ে গেল এবং সে তাতে যা ব্যয় করেছিল তার জন্য হাতের তালু ওল্টাতে (আক্ষেপ করতে) লাগল, যখন তা মাচানসহ ভূমিসাৎ হয়ে গেল।’ (সুরা : কাহফ, আয়াত : ৪২)

৩. হাতের বাহু : আল্লাহ বলেন, ‘আমি তোমার ভাইয়ের দ্বারা তোমার বাহুকে শক্তিশালী করব।’ (সুরা : কাসাস, আয়াত : ৩৫)

৪. হাতের আঙুল : ইরশাদ হয়েছে, ‘আমি যখনই তাদের আহবান করি, যাতে আপনি তাদের ক্ষমা করে দেন তারা কানে আঙুল দেয়।’ (সুরা : নুহ, আয়াত : ৭)

৫. হাতের আঙুলের অগ্রভাগ : আল্লাহ বলেন, ‘কিন্তু তারা যখন একান্তে মিলিত হয়, তখন তোমাদের প্রতি আক্রোশে তারা নিজেদের আঙুলের অগ্রভাগ দাঁতে কাটিয়া থাকে।’ (সুরা : আলে ইমরান, আয়াত : ১১৯)

৬. চেহারা : অজুসংক্রান্ত আয়াতে আল্লাহ বলেন, ‘হে মুমিনরা! যখন তোমরা সালাতের জন্য প্রস্তুত হবে, তখন তোমরা তোমাদের মুখমণ্ডল ও হাত কনুই পর্যন্ত ধৌত করবে।’ (সুরা : মায়িদা, আয়াত : ৭)

৭. দাঁত : কিসাসসংক্রান্ত দীর্ঘ আয়াতে আল্লাহ বলেন, ‘দাঁতের বদলে দাঁত।’ (সুরা : মায়িদা, আয়াত : ৪৫)

৮. চোখ : উক্ত আয়াতেই ইরশাদ হয়েছে, ‘চোখের বদলে চোখ।’ (সুরা : মায়িদা, আয়াত : ৪৫)

৯. নাক : আল্লাহ বলেন, ‘নাকের বদলে নাক।’ (সুরা : মায়িদা, আয়াত : ৪৫)

১০. কান : আরো ইরশাদ হয়েছে, ‘কানের বদলে কান।’ (সুরা : মায়িদা, আয়াত : ৪৫)

১১. গাল : আল্লাহ বলেন, ‘তুমি অহংকারবশে তোমার গাল ফিরিয়ে নিয়ো না (অবজ্ঞা কোরো না)। (সুরা : লুকমান, আয়াত : ১৮)

১২. চিবুক : ইরশাদ হয়েছে, ‘তারা কাঁদতে কাঁদতে চিবুকের ওপর (ভূমিতে) লুটিয়ে পড়ে।’ (সুরা : বনি ইসরাঈল, আয়াত : ১০৯)

১৩. চুল ও দাড়ি : হারুন (আ.)-এর ভাষ্যে ‘হে আমার সহোদর! শ্মশ্রু ও চুল ধোরো না।’ (সুরা : ত্বহা, আয়াত : ৯৪)

১৪. কপাল : আল্লাহ বলেন, ‘যখন তারা উভয়ে আনুগত্য প্রকাশ করল এবং ইবরাহিম তার ছেলেকে কপাল নিচু করল (কাত করে শোয়াল)।’ (সুরা : সাফফাত, আয়াত : ১০৩)

১৫. জিহ্বা ও ঠোঁট : ইরশাদ হয়েছে, ‘(আল্লাহ কি দান করেননি) জিহ্বা ও দুই ঠোঁট।’ (সুরা : বালাদ, আয়াত : ৯)

১৬. মাথা : আল্লাহ বলেন, ‘তোমাদের মাথায় মাসাহ করবে।’ (সুরা : মায়িদা, আয়াত : ৭)

১৭. পা : অজুসংক্রান্ত আয়াতে আল্লাহ বলেন, ‘তোমরা পায়ের টাকনু পর্যন্ত ধৌত করবে।’ (সুরা : মায়িদা, আয়াত : ৭)

১৮. মাথার পেছনের দিক : আল্লাহ বলেন, ‘তোমরা তাতে ঈমান আনো আমি মুখমণ্ডলগুলো বিকৃত করে অতঃপর সেগুলোকে পেছনের দিকে ফিরিয়ে দেওয়ার আগে।’ (সুরা : নিসা, আয়াত : ৪৭)

১৯. মাথার সামনের চুল : আল্লাহ বলেন, ‘অপরাধীদের পরিচয় পাওয়া যাবে তাদের লক্ষণ থেকে, তাদের পাকড়াও করা হবে মাথার ঝুঁটি ও পা ধরে।’ (সুরা : আর-রহমান, আয়াত : ৪১)

২০. কণ্ঠনালি : ইরশাদ হয়েছে, ‘কখনো না, যখন প্রাণ কণ্ঠাগত হবে।’ (সুরা : কিয়ামা, আয়াত : ২৬)

২১. গলা : ইরশাদ হয়েছে, ‘যখন তোমাদের প্রাণ গলায় চলে এসেছিল।’ (সুরা : আহজাব, আয়াত : ১০)

২২. মাংস : আল্লাহ বলেন, ‘অতঃপর আমি হাড়ের গায়ে মাংসে আচ্ছাদন করি।’ (সুরা : মুমিনুন, আয়াত : ১৪)

২৩. হাড় : আল্লাহ বলেন, ‘সে বলে, কে হাড়ে প্রাণ সঞ্চার করবে, যখন তা পচে গলিয়া যাবে?’ (সুরা : ইয়াসিন, আয়াত : ৭৮)

২৪. রক্ত : ইরশাদ হয়েছে, ‘যখন তোমাদের অঙ্গীকার নিয়েছিলাম যে তোমরা পরস্পরের রক্তপাত করবে না।’ (সুরা : বাকারা, আয়াত : ৮৪)

২৫. গায়ের চামড়া : আল্লাহ বলেন, ‘এতে যারা তাদের প্রতিপালককে ভয় করে, তাদের গায়ের চামড়া রোমাঞ্চিত হয়।’ (সুরা : জুমার, আয়াত : ২৩)

২৬. মেরুদণ্ড : আল্লাহ বলেন, ‘এটা নির্গত হয় মেরুদণ্ড ও পঞ্জরাস্থির মধ্য থেকে।’ (সুরা : তারিক, আয়াত : ৭)

২৭. লজ্জাস্থান : আল্লাহ বলেন, ‘(তারাই মুমিন) যারা নিজেদের লজ্জাস্থানকে সংযত রাখে।’ (সুরা : মুমিনুন, আয়াত : ৫)

২৮. ঘাড়ের রগ : ইরশাদ হয়েছে, ‘আমি তার ঘাড়ের রগ অপেক্ষাও নিকটতর।’ (সুরা : কাফ, আয়াত : ১৬)

২৯. চোখের পাতা : আল্লাহ বলেন, ‘আপনি চোখের পাতা ফেলার আগেই আমি তা আপনাকে এনে দেব।’ (সুরা : নামল, আয়াত : ৪০)

আল্লাহ সবাইকে অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের সঠিক ও সংযত ব্যবহারের তাওফিক দান করুন। আমিন।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments