Monday, April 15, 2024
spot_img
Homeআন্তর্জাতিককিয়েভের রাজপথে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি

কিয়েভের রাজপথে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনস্কিকে গতকাল শুক্রবার দিবাগত রাতে রাজধানীর কিয়েভের রাজপথে দেখা গেছে। তার নিজের করা ওই ভিডিও ফুটেজে তাকে কিয়েভের রাজপথে হাঁটতে দেখা যায়। তিনি বলেন, ‘আমি কিয়েভেই আছি। আমরা অস্ত্র সমর্পণ করিনি।

বিবিসির খবরে বলা হয়, ওই ভিডিওতে জেলেনস্কি ইউক্রেনের বাহিনীকে অস্ত্র সমর্পণের নির্দেশ দেওয়ার কথা অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, রাশিয়ার আগ্রাসনের বিরুদ্ধে ইউক্রেন প্রতিরোধ যুদ্ধ চালিয়ে যাবে।

‘মিথ্যাকে বিশ্বাস করবেন না’ শিরোনামের ওই ভিডিও ফুটেজ জেলেনস্কি টুইটারে প্রকাশ করেন বলে জানিয়েছে সিএনএন। এতে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘আমি এখানেই আছি। আমরা অস্ত্র সমর্পণ করিনি। আমরা আমাদের দেশকে রক্ষা করব। কারণ আমাদের অস্ত্র হলো সত্য, এই সত্য হলো এটা আমাদের মাতৃভূমি, আমাদের দেশ ও আমাদের সন্তান; আমরা এই সব কিছুকে রক্ষা করব। ’

জেলেনস্কি বলেন, ‘আমি এটা আপনাদের উদ্দেশে বলতে চেয়েছিলাম। ইউক্রেনের জয় হবে। ’

এদিকে নিউ ইয়র্ক টাইমসের খবরে বলা হয়, রুশ হামলার দ্বিতীয় দিনে রাশিয়ার সেনাবাহিনী যখন ইউক্রেনের কাছাকাছি চলে আসে, তখন থেকে জেলেনস্কির সাড়া পাওয়া যাচ্ছিল না। এর মধ্যেই ইতালির প্রধানমন্ত্রী মারিও দ্রাগি নিজ পার্লামেন্টে বলেন, প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কির সঙ্গে তার নির্ধারিত টেলিফোন সংলাপ ছিল। ওই সময় জেলেনস্কির পক্ষ থেকে সাড়া মেলেনি। তাই জেলেনস্কির অবস্থান নিয়ে ধোঁয়াশা শুরু হয়। এরপর ওই ভিডিওতে দেখা যায় জেলেনস্কিকে।

ওই ভিডিওর বরাত দিয়ে নিউ ইয়র্ক টাইমস বলেছে, কিয়েভে প্রেসিডেন্ট ভবনের সামনে নিজ হাতে ক্যামেরা ধরে ভিডিও রেকর্ড করেন জেলেনস্কি। এ সময় আশপাশে তার প্রশাসনের ঘনিষ্ঠজনদেরও দেখা গেছে।

এর আগে ইউক্রেনের সাবেক প্রেসিডেন্ট পেত্রো পোরোশেঙ্কোকে অস্ত্র হাতে কিয়েভের সড়কে দেখা যায়। গতকাল সিএনএনের খবরে এ কথা জানানো হয়। কালাশনিকভ রাইফেল হাতে নিয়ে কিয়েভের রাজপথে দাঁড়িয়ে সিএনএনকে সাক্ষাৎকার দেন তিনি। এ সময় পোরোশেঙ্কো দৃঢ়ভাবে বলেন, পুতিন কখনোই রাজধানী কিয়েভ দখল করতে পারবেন না।

তিনি বলেন, ‘রুশ হামলায় কতজন সেনা নিহত হলো সেটা কোনো বিষয় নয়, পুতিনের কত ক্ষেপণাস্ত্র রয়েছে, কত পারমাণবিক বোমা রয়েছে সেটাও কোনো বিষয় নয়; কারণ আমরা স্বাধীন ইউক্রেনের জনগণ। ’

৫৬ বছর বয়সী পেত্রো পোরোশেঙ্কো ২০১৪ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments