Sunday, June 16, 2024
spot_img
Homeবিজ্ঞান ও প্রযুক্তিকল্পনার ছবি আঁকে মিডজার্নি

কল্পনার ছবি আঁকে মিডজার্নি

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স বা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাযুক্ত অনেকগুলো ফটো এডিটরই রয়েছে। কিন্তু কয়টি অ্যাপ দেখেছেন, যেগুলো কোনো ছবির বর্ণনা দিলে তা এঁকে দেয়? ‘মিডজার্নি’ হচ্ছে এমনই এক আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স বট, যা কিনা আপনার পছন্দ অনুযায়ী যেকোনো ছবি এঁকে দেবে। এই বট আপনার যেকোনো চিন্তাকে ইমেজে পরিণত করতে সক্ষম। কিছু ক্ষেত্রে আমরা যতটুকু না চিন্তা করতে পারি, তার থেকে বেশি সুন্দর করেই ইমেজ তৈরি করে দেয় এটি।

কিভাবে কাজ করে

মিডজার্নি বট ব্যবহার করে ইমেজ তৈরি করার প্রথমে আমাদের একটি ডিসকর্ড অ্যাকাউন্ট (discord.com) লাগবে। ডিসকর্ড মূলত একটি মেসেজিং প্ল্যাটফরম। ফেসবুক মেজেঞ্জার বা হোয়াটসঅ্যাপের মতোই। ডিসকর্ড আমরা ব্রাউজার, ডেস্কটপ বা মোবাইল থেকে ব্যবহার করতে পারব। চাইলে মোবাইলে ডিসকর্ড অ্যাপ ইনস্টল করে নেওয়া যাবে প্লে স্টোর বা অ্যাপ স্টোর থেকে। এরপর এই ডিসকর্ড অ্যাপ বা ব্রাউজারে মিডজার্নি বট প্রফাইলে যেতে হবে। বট লিংক : https://discord.gg/midjourney। বটের প্রফাইলে গেলে সাইডবারে অনেক লো চ্যানেল দেখা যাবে। এই চ্যানেলগুলোতে মিডজার্নি বট ইনস্টল করা থাকে। যেমন #newbies-112, #newbies-172 ইত্যাদি। এই চ্যানেলগুলোর যেকোনো একটিতে ঢুকলে আমরা চ্যাট করতে পারব বটের সঙ্গে।

মিডজার্নি বটকে যে কমান্ড লিখব, সে অনুযায়ী আমাদের ইমেজ তৈরি করে দেবে। ইমেজ তৈরি করার জন্য প্রথমে লিখতে হবে /imagine এরপর এন্টার প্রেস করলে আমরা যে ইমেজ তৈরি করতে চাই, তার কিওয়ার্ড বা বর্ণনা লিখতে পারব। যেমন: আপনি কিওয়ার্ড হিসেবে লিখলেন—ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। এরপর এন্টার প্রেস করলে আমাদের জন্য ইমেজ তৈরি করা শুরু করবে। কিছুটা সময় নেবে ইমেজ তৈরি করতে। প্রতিটি কমান্ডের জন্য চারটি ইমেজ তৈরি করে দেবে। এসব থেকে পছন্দমতো ছবিটি বড় করে আউটপুট নিতে পারেন। এ ছাড়া চাইলে যেকোনো ইমেজের আরো ভেরিয়েন্ট তৈরি করে নিতে পারবেন। যেমন—প্রথম ইমেজের যদি আরো ভেরিয়েন্ট তৈরি করতে চাই, তাহলে প্রেস করব ‘ভি১’। তাহলে প্রথম ইমেজের আরো চারটি সংস্করণ তৈরি করে দেবে। একইভাবে এই চারটি ইমেজে থেকে চাইলে যেকোনো ইমেজকে আপস্কেল করতে পারব অথবা নতুন ভেরিয়েন্ট তৈরি করতে পারব।

বৃষ্টিস্নাত ঢাকা

আউটপুটের পাশে আরেকটি বাটন দেখব, পুনরায় তৈরি করার জন্য। যদি আউটপুট আমাদের পছন্দ না হয়, তাহলে ওই বাটনে ক্লিক করলে নতুন করে আরো চারটি ইমেজ তৈরি করে দেখাবে।

একটি ইমেজকে আপস্কেল করার পর আমরা চাইলে আরো তিনটি অপারেশন করতে পারি।

♦ Make Variation: ওই ইমেজটির নতুন ভেরিয়েন্ট তৈরি।

♦ Upscale to Max: ইমেজটিকে আরো বড় করে আউটপুট দেওয়া, যা আমাদের ১৬৬৪–১৬৬৪ পিক্সেলের একটি ইমেজ রিটার্ন করবে।

♦ Light Upscale Redo: ইমেজটিকে কিছু পরিবর্তন করে নতুন করে আপস্কেল করবে।

ইমেজ তৈরি করার পর তার ওপর ক্লিক করলে তা সেভ করার অপশন পাব। এরপর চাইলে তা আমাদের ডিভাইসে সেভ করে রাখতে পারি। আমাদের কাজগুলো পরবর্তী সময়েও আমরা অ্যাকসেস করতে পারব মিডজার্নি প্রফাইল থেকে। https://www.midjourney.com/app/ ওয়েবসাইটে গিয়ে সাইনইন করলে আমাদের কাজগুলো দেখাবে।

বৃষ্টিস্নাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্জন হল

পুরোপুরি বিনা মূল্যে নয়

মিডজার্নি বট ব্যবহার করে বিনা মূল্যে ২৫টি কাজ করতে পারব। এর পরও যদি  মিডজার্নি ব্যবহার করে ইমেজ তৈরি করতে চাই, তাহলে আমাদের পে করতে হবে। বেসিক মেম্বারশিপ ১০ ডলার প্রতি মাসে, যেখানে ৯০০টি কাজ করা যাবে। স্ট্যান্ডার্ড মেম্বারশিপ ৩০ ডলার প্রতি মাসে, যেখানে আনলিমিটেড কাজ করা যাবে। এ ছাড়া রয়েছে এন্টারপ্রাইজ মেম্বারশিপ।

এ পর্যন্ত যতগুলো আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্ট ইমেজ জেনারেটর এসেছে তার মধ্যে এই মিডজার্নি সবচেয়ে অগ্রগামী। এত সহজে এত ডিটেইলসযুক্ত ইমেজ তৈরির অ্যাপ বলা যায় আর নেই। ইমেজ জেনারেশন নিয়ে যাঁরা কাজ করেন, তাঁদের নিশ্চিত এই অ্যাপ অনেক ভালো লাগবে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments