Saturday, January 28, 2023
spot_img
Homeবিজ্ঞান ও প্রযুক্তিকলেজে শুরু হয়েছে ই-স্পোর্টসের কোর্স

কলেজে শুরু হয়েছে ই-স্পোর্টসের কোর্স

১৯ বছর বয়সী জোশ ডনেলি ই-স্পোর্টসের কোর্সটি শুরু করার আগে এটির সম্ভাব্য ক্যারিয়ারের সুযোগগুলো কেমন হতে পারে সে সম্পর্কে কোনো ধারণাই ছিল না। তিনি বলেন, ‘তখন আমি ভাবতাম ভিডিও স্ট্রিমিং বা ইভেন্টগুলো থেকে উপার্জন করতে পারব। এই কোর্সটি করে যে ই-স্পোর্টসে অনেক ভালো হতে পারব এমনটি নয়, বরং এতে অনেক কিছু শেখার আছে। কোর্সটি গভীর এবং এখানে এলে কিছু শিখতে পারবেন।

কোর্স কো-অর্ডিনেটর মাইকেল স্মিথ গ্রীষ্মে কমনওয়েলথ ই-স্পোর্টস চ্যাম্পিয়নশিপে উত্তর আয়ারল্যান্ডের দল পরিচালনা করেছিলেন। স্মিথ বলেন, ‘ই-স্পোর্টস ম্যানেজমেন্টকে বলেছিলাম, দেখুন, ই-স্পোর্টসে দক্ষতার চাহিদা বেড়েছে, কারণ এটি বিশ্বের দ্রুততম ক্রমবর্ধমান শিল্পগুলোর মধ্যে একটি। ’

বেলফাস্ট মেট্রোপলিটন কলেজ বলছে, ফাউন্ডেশন ডিগ্রিটি ই-স্পোর্টস নিয়ে একটি নতুন ধারণা তৈরি করবে। ২০২০ সাল থেকে কলেজটি ই-স্পোর্টসে ‘এ’ লেভেলের সমমান পদ্ধতি অনুসরণ করছে। প্রথম থেকেই এই প্রজেক্টে যুক্ত থাকা গ্রাহাম নরি বলেন, ‘মানুষজন মনে করে আমরা সারা দিন গেম খেলেই কাটিয়ে দিই। বিষয়টি আসলে তা নয়। আমরা মূলত এই শিল্পের বিকাশে যা যা প্রয়োজন তা নিয়ে কোর্সটিতে কাজ করেছি। আমার মা-বাবা এই কোর্স সম্পর্কে সন্দিহান ছিলেন, যেমনটি প্রথমে আমিও ছিলাম। কিন্তু পরবর্তী সময়ে তাঁরা বিষয়টি বুঝতে পেরেছেন। এ জন্য তাঁদের সমর্থনও পাচ্ছি। ’

কোর্সটিতে প্রথম বছরে ভর্তি হন ২০ জন শিক্ষার্থী। পরবর্তী বছরে তা ৪০ জনে গিয়ে দাঁড়ায়। কোর্স সমন্বয়ক মাইকেল স্মিথ কিন্তু স্বীকার করেছেন যে অভিভাবকদের কাছ থেকে কিছুটা বাধা কিংবা চাপে ছিলেন। অভিভাবকরা তখন বলতে শুরু করেছেন কোর্সটি করে তারা কী শিখবে? তারা কি দুই বছর ধরে শুধু গেমই খেলবে? মাইকেল তখন অভিভাবকদের বোঝাতে সক্ষম হন কোর্সটি সব কিছুর একটি মিশ্রিত রূপ। এতে পাঠ্যক্রমের সব কিছুই শেখানো হয়। তবে এমনভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে যাতে শিক্ষার্থীরা উপভোগ করে। মাইকেল আরো বলেন, ‘আমাদের ছাত্রদের বিভিন্ন জিনিস করতে হয়েছে। আমাদের খেলাধুলায় ও ই-স্পোর্টসে তাদের কোচিং করতে হয়েছে, ব্যবস্থাপনাটা শেখাতে হয়েছে। ফলে এখান থেকে বের হয়ে তারা নেটফ্লিক্স এবং টিভি সম্প্রচারের মতো কাজগুলো করতে পারছে। ’

ক্রিস কেভস ১৯ বছর বয়সী তরুণ। তিনি কোর্সটি দেখার আগে ছয় মাস ধরে একটি আধাপেশাদার ই-স্পোর্টস দলকে প্রশিক্ষণ দিয়েছিলেন। তিনি জানান, কোর্সটিতে ঐতিহ্যবাহী বিষয়গুলো শিখতে পারছেন। তবে কোর্সটিকে ই-স্পোর্টস শিল্পের ওপর ফোকাস করে আকর্ষণীয়ভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। কোর্সটিতে জিমও শেখানো হয়, কারণ স্বাস্থ্য ও সুস্থতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তবে এটা নিয়ে তাঁর বাবা ক্রমাগত রসিকতা করেন বলেও জানান তিনি। ’

সিলেবাসে কী থাকছে?

কোর্সের বিষয়বস্তু

প্রথম বর্ষ

ক্রীড়াশিল্প

ই-স্পোর্টসে স্বাস্থ্য ও সুস্থতা

ই-স্পোর্টসের বিষয়বস্তু তৈরি

ই-স্পোর্টসে নতুন সব প্রযুক্তি

গেম ডিজাইন

ই-স্পোর্টস ইভেন্টস উপস্থাপনা

দ্বিতীয় বর্ষ

ই-স্পোর্টসে ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট

 সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট

ই-স্পোর্টস লাইভ ইভেন্ট

লাইভ ই-স্পোর্টস ব্রডকাস্ট প্রডাকশন

কাজভিত্তিক শিক্ষা

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments