Saturday, December 3, 2022
spot_img
Homeআন্তর্জাতিককরোনার মধ্যেই আবির্ভুত 'ফ্লোরোনা', আক্রান্ত ইসরাইলি মহিলা

করোনার মধ্যেই আবির্ভুত ‘ফ্লোরোনা’, আক্রান্ত ইসরাইলি মহিলা

করোনা ভাইরাস, সঙ্গে দোসর ইনফ্লুয়েঞ্জা। দুইয়ে মিলে জন্ম নিল এক নতুন রোগ। নাম ফ্লোরোনা। আক্রান্ত হয়েছেন ইসরাইলের এক অন্তঃসত্ত্বা মহিলা। এই খবর নিশ্চিত করেছে ইসরাইলের সংবাদপত্র ‘ইয়েদিওথ আহরোনোথ’। সংবাদপত্রটি উল্লেখ করেছে যে এই সপ্তাহে রবিন মেডিকেল সেন্টারে প্রসবের জন্য প্রবেশকারী ওই অন্তঃসত্ত্বা মহিলার মধ্যে “দ্বৈত রোগের” সংক্রমণ রেকর্ড করা হয়েছে। “রাশিয়া টুডে” অনুসারে, ওই তরুণীর টিকা নেয়া ছিল না। যদিও তিনি সুস্থ আছেন এবং তাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।ইসরাইলের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মতে, ইসরাইল ইনফ্লুয়েঞ্জা সংক্রমণের একটি তরঙ্গ প্রত্যক্ষ করছে, কারণ ইসরাইলের হাসপাতালগুলি গত সপ্তাহ থেকে এ পর্যন্ত ১,৮৪৯ জন রোগীকে চিকিত্সা করেছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রক দুটি ভাইরাসের সংমিশ্রণের প্রতিক্রিয়া এবং মানবদেহে তাদের প্রভাব উন্মোচনের প্রয়াসে আক্রান্ত ইসরাইলি মহিলার কেসটি অধ্যয়ন করতে শুরু করেছে। চিকিত্সকদের মতে, অনেক লোক দুটি ভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে থাকতে পারেন যা এখনও নির্ণয় করা যায়নি।

ফ্লোরোনা রোগটি কি?

এটি কোভিড-১৯ ভাইরাস এবং ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাসের দ্বৈত সংক্রমণ। ২০২০ সালের মার্চ মাসে মহামারী শুরু হওয়ার পর এই ধরনের রোগ প্রথম সামনে এলো ।ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস কখনো কখনো নিউমোনিয়া, মায়োকার্ডাইটিস এমনকি মৃত্যুর দিকেও ঠেলে দিতে পারে মানুষকে । সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল এবং ইসরাইলের স্বাস্থ্য মন্ত্রকের ডেটা এই সংক্রমণের বিস্তার সম্পর্কে সতর্ক করেছে, বিশেষ করে হাসপাতালগুলি গত সপ্তাহে ১,৮৪৯ জন রোগীভর্তি হবার পর উদ্বিগ্ন প্রশাসন।”ফ্লোরোনা”- থেকে নিউমোনিয়া এবং অন্যান্য শ্বাসযন্ত্রের জটিলতা এবং মায়োকার্ডাইটিস সহ গুরুতর রোগের সৃষ্টি হতে পারে, যদি সঠিক সময়ে চিকিৎসা না শুরু করা হয় তাহলে তা প্রাণঘাতীও হতে পারে। আর তাই ইসরাইলের স্বাস্থ্য মন্ত্রক করোনা ভ্যাকসিনের ৬ মাসের মাথায় ইনফ্লুয়েঞ্জা ভ্যাকসিন নেবার পরামর্শ দিয়েছে।

“ফ্লোরোনা” এর মুখে অনাক্রম্যতার ভূমিকা:

কায়রো ইউনিভার্সিটি হাসপাতালের ব্যাকটেরিয়া ও অনাক্রম্যতা বিষয়ক পরামর্শদাতা ডাঃ নাহলা আবদেল ওয়াহাবের মতে, “ফ্লোরোনা” রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভেঙে দিতে পারে। ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস, কোভিড-১৯ এর সাধারণ লক্ষণগুলির সাথে হৃদপিণ্ডের পেশীর প্রদাহ সৃষ্টি হতে পারে। দুটি ভাইরাস মানুষের শরীরে প্রবেশের অর্থ, সেই ব্যক্তির রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা আস্তে আস্তে কমতে শুরু করেছে । ডাঃ নাহলা আবদেল ওয়াহাবে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা মেনে চলার এবং ভ্যাকসিন গ্রহণের দ্রুততার উপর জোর দিয়েছেন, যারা এখনও পর্যন্ত টিকা পাননি তাঁদের অবিলম্বে টিকা গ্রহণের ওপর জোর দিয়েছেন। দীর্ঘস্থায়ী রোগের সঙ্গে যাঁরা লড়ছেন তাদের শারীরিক অবস্থার দ্রুত ফলো আপ করে দক্ষ ডাক্তারের কাছে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

সূত্র : freepressjournal.in

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments