Sunday, June 16, 2024
spot_img
Homeখেলাধুলাএবার নিউ ইয়র্কে ‘প্রোটিয়া মিশন’

এবার নিউ ইয়র্কে ‘প্রোটিয়া মিশন’

অট্টালিকার শহর, ধনীদের শহর, স্বপ্নের শহর! অঙ্গে কতো রূপ, কতো না নাম। হ্যাঁ নিউ ইয়র্কের কথা বলছি। এটি যুক্তরাষ্ট্রের না হলেও সারা বিশ্বের রাজধানী নামেও পরিচিত। তবে এখানে স্বপ্ন পূরণ সহজ নয়। প্রতিটি মুহূর্তে চ্যালেঞ্জ নিয়ে ছুটতে হয়। নানা হাসি উল্লাসের মধ্যে ভাগ্য সহায় না হলে কতো যে চ্যালেঞ্জ তা যেন এই শহরের ইট পাথরেরও জানা। হ্যাঁ, এখানেই বাংলাদেশ দল এসেছে বিশ^কাপে তাদের স্বপ্নের কাছে যাওয়ার চ্যালেঞ্জ নিয়ে। নিউ ইয়র্কে টাইগারদের এবার ‘প্রোটিয়া মিশন’। যেখানে দক্ষিণ আফ্রিকা চেনা জানা প্রতিপক্ষ হলেও নাসাউ কাউন্টি স্টেডিয়ামের রহস্যময় উইকেট চোখ রাঙাচ্ছে। তবে নিজেদের স্বপ্নের শুরুটা জয় দিয়েই করেছে টাইগাররা।

নাজমুল হোসান শান্তর দল শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে ২ পয়েন্ট নিয়ে এক পা দিয়ে রেখেছে যুক্তরাষ্ট্র-ওয়েস্ট ইন্ডিজ টি-টোয়েন্টি বিশ^কাপে সেরা আটে যাওয়ার পথে। এবার  প্রোটিয়াদের হারাতে পারলেই আরও এক পা এগিয়ে যাবে স্বপ্নের কাছে! তবে প্রতিপক্ষ সহজ নয়। ব্যাটিং বোলিং সব দিক থেকেই তারা বাংলাদেশ থেকে অনেক এগিয়ে। সেখানে টাইগারদের জয়ের পরও আছে ব্যাটিং নিয়ে বড় অস্বস্তি। যা কিনা এই লড়াইয়ে চিন্তা আর শঙ্কার কারণ হয়ে ঘুরপাক খেতে পারে। যদিও অধিনায়ক শান্তর ভাবনা ভিন্ন। তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় না চিন্তার খুব বেশি কারণ আছে। কারণ চাপের ম্যাচ ছিল। দিন শেষে আমরা জিততে চেয়েছি। ফলের কথা চিন্তা করলে আমরা দুটি পয়েন্ট পেয়েছি। ব্যাটসম্যানরা সবাই হয়তো জানে, আমরা ভালো খেলিনি। তবে সবাই প্রতিদিন ভালো খেলবে না।’

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে নিউ ইয়র্কের নাসাউ কাউন্টি ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ক্রিকেট খেলার আশা করছে বাংলাদেশ। আজ বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ৮টায় শুরু হবে ম্যাচটি। বিশ^কাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২ উইকেটে রুদ্ধশ্বাস জয় পায় বাংলাদেশ। জয় নিয়ে বিশ^কাপ শুরু করতে পারলেও, ব্যাটিং নিয়ে উদ্বেগ আছে টাইগার শিবিরে। তবে প্রথম ম্যাচ থেকে পাওয়া পূর্ণ দুই পয়েন্ট দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বাড়তি অনুপ্রেরণা যোগাচ্ছে  বাংলাদেশকে। অধিনায়কও মনে করেন লঙ্কার বিপক্ষে জয়টি তাদের বাড়িয়ে দিয়েছে আত্মবিশ্বাস। শান্ত বলেন- ‘এই ধরনের ম্যাচ জিতলে সবাই আত্মবিশ্বাসী থাকে। যেহেতু ম্যাচটা আমরা জিততে পেরেছি সবার বাড়তি আত্মবিশ্বাস থাকবে। এই বাড়তি আত্মবিশ্বাস নিয়ে যদি দ্বিতীয় ম্যাচে যেতে পারি তাহলে কাজে দেবে। আশা করি দ্বিতীয় ম্যাচটাও ভালো হবে।’ টি-টোয়েন্টিতে এ পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আট ম্যাচ খেলে কোনো জয় নেই বাংলাদেশের। কিন্তু এবার হারের বৃত্ত ভাঙতে আত্মবিশ্বাসী টাইগাররা।

গ্রুপ পর্বে ইতিমধ্যে শ্রীলঙ্কা ও নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে জয় পেয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। কিন্তু মন্থর উইকেটের কারণে দুই ম্যাচেই জয় পেতে বেগ পেতে হয়েছে প্রোটিয়াদের। ইতিমধ্যেই নিউ ইয়র্কের উইকেট নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা হয়েছে। উইকেটের উন্নতিতে সর্বাত্মক চেষ্টা করছে আইসিসি। তবে  উইকেট মন্থর হলে সেখান থেকে বেশি সুবিধা পাবে বাংলাদেশই। এই উইকেট এখনো বাংলাদেশ অধিনায়কের কাছে রহস্যময়। তবে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচে রহস্য ভেদ হতে পারে বলে মনে করেন শান্ত। তিনি বলেন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আমাদের ম্যাচের আগে নিউ ইয়র্কে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। তাই উইকেট সম্পর্কে আমরা কিছু ধারণা পাবো। উইকেট যেমনই হোক না কেন, আমরা আমাদের  সামর্থ্য অনুযায়ী খেলতে পারলে আমরা যেকোনো দলকে হারাতে পারি বলেই আমি বিশ্বাস করি।’

বোলারদের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের কারণেই আত্মবিশ্বাস পাচ্ছেন শান্ত। ধারাবাহিকভাবে ভালো পারফরম্যান্স করছেন দলের বোলাররা। কিন্তু ব্যাটিং ব্যর্থতার কারণে বেশির ভাগ সময় ভেস্তে গেছে  বোলারদের অর্জন। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের জন্য বাংলাদেশের বোলারদের কৃতিত্ব দিতে হবে। প্রথমে ব্যাট করা শ্রীলঙ্কাকে ৯ উইকেটে ১২৪ রানের বেশি করতে দেয়নি টাইগার বোলাররা। জবাবে লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে বেগ পেতে হয়েছে বাংলাদেশকে।  বাংলাদেশের ২ উইকেটের জয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখে  মিডল অর্ডার ব্যাটার তাওহিদ হৃদয়ের ২০ বলে ঝড়ো ৪০ রান। ৩৬ বলে ৩৪ রানের ইনিংস খেলেন লিটন দাস। স্ট্রাইক রেট কম থাকলেও ম্যাচের পরিস্থিতি অনুযায়ী লিটনের ধীর গতির ব্যাটিং ম্যাচে বড় ভূমিকা রাখে। শেষদিকে মাহমুদউল্লাহর অভিজ্ঞতায় জয়ের হাসি হাসে বাংলাদেশ।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয়ের পর প্রোটিয়াদের বিপক্ষে কেমন একাদশ হবে বাংলাদেশের তা নিয়ে চলছে আলোচনা। যদিও যতটা জানা গেছে, উইনিং কম্বিনেশন ভাঙার খুব একটা সম্ভাবনা নেই। তবে যেহেতু প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা আর নাসাউয়ে স্পিনাররা রাজত্ব করে সেই ক্ষেত্রে দলে একজন পেসার কমিয়ে আনা হতে পারে। সেই ক্ষেত্রে অফস্পিনার শেখ মেহেদীর খেলার সম্ভাবনা। তার বোলিংয়ের পাশাপাশি ব্যাটিংটাও দলকে আলাদা শক্তি যোগাবে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments