করোনা ভাইরাসের প্রভাবে চীন এখন ভয়াবহ পরিস্থিতির সম্মুখীন। চীনের মানুষ যখন এই ভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত, ঠিক তখনই দাড়ি রাখা, বোরকা পরা ও ইন্টারনেট ব্যবহারের দায়ে দেশটির সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলিমদের বন্দি করতে নেমেছে বেইজিং প্রশাসন। সম্প্রতি উইঘুর মুসলিমদের ওপর নিপীড়ন ও নির্যাতনের নতুন ফাঁস হওয়া দলিলে এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশিত হয়েছে।

ব্রিটিশ এক সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে, সদ্য ফাঁস হওয়া দলিলে চীনের পশ্চিমাঞ্চলীয় শিনজিয়াং প্রদেশের তিন হাজারের অধিক মুসলিমের দৈনন্দিন জীবনের যাবতীয় খুঁটিনাটিসহ ব্যক্তিগত তথ্য সংরক্ষণের প্রমাণ পাওয়া গেছে। ১৩৭ পাতার নথিটির বিভিন্ন কলামে ছক কেটে সেখানকার লোকজন দৈনিক কতবার নামাজ পড়েন, কী পোশাক পরেন এবং কাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন, এমনকি তাদের পরিবারের সদস্যদের আচার-আচরণের বিস্তারিত লিপিবদ্ধ করা হয়। যদিও বেইজিং সরকার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে বলেছে, এগুলো দেশটির সন্ত্রাসবাদ এবং ধর্মীয় উগ্রপন্থা মোকাবিলায় নেওয়া পদক্ষেপের অংশ। বিশ্লেষকদের মতে, সরকারি দলিলগুলো অত্যধিক ব্যক্তিগত ঝুঁকি নিয়ে সংগ্রহ করা হয়েছে। এখানে সংখ্যালঘু গোষ্ঠীটির লোকজনকে বন্দি ও নির্যাতনের বিভিন্ন আলামত পাওয়া গেছে। উল্লেখ্য, গত বছর নির্যাতিত উইঘুর মুসলিম অধ্যুষিত প্রদেশটির যে সূত্রের মাধ্যমে বিপুল পরিমাণ সরকারি নথি পাওয়া গিয়েছিল, এবারও সেই সূত্রের মাধ্যমেই নতুন দলিলপত্র সংগ্রহ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

English