Saturday, November 27, 2021
spot_img
Homeবিচিত্রউত্তর মেরুর শেষ অক্ষত বরফ-চাদরে ফাটল

উত্তর মেরুর শেষ অক্ষত বরফ-চাদরে ফাটল

উষ্ণায়নের জেরে ক্রমেই ছোট হচ্ছে উত্তর মেরুর বরফের চাদর। এ নিয়ে বারবার সতর্ক করছেন বিশেষজ্ঞরা। এবার আর্কটিক বা উত্তর মেরুর প্রাচীনতম ও সবচেয়ে পুরু বরফের চাদরেও এক প্রকাণ্ড গর্ত চোখে পড়ল জলবায়ু বিজ্ঞানীদের। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ওই অংশটিকেই সবচেয়ে স্থিতিশীল বলে এত দিন জানতেন তাঁরা। সেখানেও ভাঙন ধরায় এখন ভয় হচ্ছে, এবার কি সেখানেও বরফ গলতে শুরু করবে!

উত্তর মেরুর ওই অংশকে পৃথিবীর লাস্ট আইস বা শেষ অক্ষত বরফ-চাদর বলা হয়। সেই শেষ বরফেও ফাটল ধরে একটি ফাঁকা অংশ তৈরি হয়েছে। তার নিচ দিয়ে বয়ে চলেছে পানি। এই ধরনের ফাটলকে পলিনিয়া বলে। বিজ্ঞানীরা বলছেন, লাস্ট আইস এলাকার অন্তর্ভুক্ত কানাডার এলসমেয়ার আইল্যান্ডে বরফের মাঝে ওই পলিনিয়া চিহ্নিত হয় গত বছরের মে মাসে। দুই সপ্তাহ ধরে বরফের মাঝে গর্ত হয়েছিল। প্রকৃতি বিজ্ঞানীদের অনুমান, উত্তর মেরুর জোরালো অ্যান্টিসাইক্লোনিক হাওয়ার জেরে পলিনিয়াটি তৈরি হয়েছিল। পরে সেটি বুজে গেলেও মেরুর ওই অংশ যে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে রয়েছে তা নিয়ে সন্দেহ নেই বিজ্ঞানীদের।

গত আগস্ট মাসে এ বিষয়ে একটি গবেষণাপত্র প্রকাশিত হয়েছে জিয়োফিজিক্যাল রিসার্চ লেটারসে। সেখানে বিশেষজ্ঞরা লিখেছেন, ১৯৮৮ থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত এমন বেশ কিছু পলিনিয়া তৈরির খবর তাঁদের কাছে রয়েছে। উপগ্রহচিত্রে ধরা পড়েছে সেই ছবি।

এই গবেষণার সঙ্গে যুক্ত প্রধান বিজ্ঞানী কেন্ট মুর জানান, ওই অংশে সমুদ্রের ওপর বরফের চাদর প্রায় ১৩ ফুট পুরু। অন্তত পাঁচ বছরের জমা বরফ। কিন্তু এই অংশও যে বিপন্ন হয়ে উঠছে, তা স্পষ্ট। ২০২১ সালের গবেষণায় দেখা গেছে, গ্রিনল্যান্ডে প্রতিবছর আরো দ্রুত বরফ গলে যাচ্ছে। বিজ্ঞানীদের আশঙ্কা, এভাবে চললে এই শতকের শেষে লাস্ট আইস পুরো নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে।

সূত্র :  ইউএসএটুডে।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments