ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার বিষয়ে সুদান সরকার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর দেশটির ক্ষুব্ধ জনগণ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। শুক্রবার সন্ধ্যায় তারা রাজধানী খার্তুমে বিক্ষোভ সমাবেশ করেন। সুদানের কয়েকটি রাজনৈতিক দলও ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার উদ্যোগকে প্রত্যাখ্যান করেছে। তারা বলেছে, ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার বিরুদ্ধে তারা একটি জোট গঠন করবে।

বিক্ষোভকারীরা ইসরায়েলের সঙ্গে যেকোনো রকমের আলোচনা, শান্তি ও সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার বিরোধিতা করে নানা স্লোগান দেন। তারা বলেন, আমরা আত্মসমর্পণ করব না এবং ফিলিস্তিনিদের ছেড়ে যাব না। আমরা তাদের পাশেই আছি।

এদিকে, সুদানের পপুলার কংগ্রেস পার্টির এক বিবৃতিতে বলছে, ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার চুক্তি গ্রহণ করতে বাধ্য নয় সাধারণ জনগণ।

সুদানি বাথ পার্টির মুখপাত্র মুহাম্মাদ ওয়াদা সাঈদ বলেন, ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার বিষয়টি নাকচ করা হয়েছে। ধর্মীয় বৈষম্যমূলক আচরণকারী রাষ্ট্রের সঙ্গে সরকার এ জাতীয় সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য ক্ষমতাপ্রাপ্ত নয়।

এর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প হোয়াইট হাউস থেকে এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ইসরায়েল ও সুদান শান্তি চুক্তির বিষয়ে একমত হয়েছে। এ ছাড়াও অন্তত পাঁচটির বেশি আরব দেশ ইসরায়েলের সঙ্গে শান্তি চুক্তিতে আসতে চায়। খুব শিগগিরই সুদান ও ইসরায়েলের মধ্যে সম্পর্ক স্বাভাবিকের চুক্তি স্বাক্ষর হয়ে যাবে বলেও ইঙ্গিত দিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। 

সূত্র: আল-জাজিরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

English