Saturday, July 20, 2024
spot_img
Homeআন্তর্জাতিকইউক্রেনের ইইউর সদস্য হওয়ার স্বপ্ন কি পূরণ হবে?

ইউক্রেনের ইইউর সদস্য হওয়ার স্বপ্ন কি পূরণ হবে?

ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সদস্য হওবার স্বপ্ন দেখছে ইউক্রেন। কিন্তু ইউক্রেনের জন্য মানবিক, আর্থিক, অর্থনৈতিক ও সামরিক সহায়তা দিয়ে এলেও দেশটিকে অনতিবিলম্বে পূর্ণ সদস্য করার কথা এখনো ভাবতে পারছে না ইইউ৷

প্রায় এক বছর ধরে ইউক্রেনের ওপর রাশিয়ার হামলা চলছে৷ ২০১৪ সাল থেকেই দেশের ঐক্য ও অখণ্ডতা হুমকির মুখে৷ হামলার মুখে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা বারবার ব্যাহত হচ্ছে৷

ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন ডেয়ার লাইয়েন ও ইউরোপীয় সরকার পরিষদের প্রধান শার্ল মিশেল ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির সঙ্গে শুক্রবার ফের বৈঠকে বসছেন৷ বৃহস্পতিবারই ফন ডেয়ার লাইয়েন ট্রেনে করে কিয়েভে পৌঁছেন৷

ইইউ প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তারা ইউক্রেনের শীর্ষ সরকারি প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা করেছেন৷ বৃহস্পতিবারের আলোচনার পর জেলেনস্কি জানান, একমাত্র শক্তিশালী ইউক্রেন ও শক্তিশালী ইউরোপীয় ইউনিয়ন মিলে ও আরও সমন্বয়ের মাধ্যমে কাঙ্ক্ষিত জীবনযাত্রা অর্জন করা সম্ভব৷ এভাবেই বাধা ও হুমকি সত্ত্বেও মানুষ শক্তি ও প্রেরণা নিয়ে এগিয়ে যেতে পারবে৷

রাশিয়ার বিরুদ্ধে আরও কড়া নিষেধাজ্ঞার দাবি করছেন জেলেনস্কি৷ ইউক্রেনের ওপর রাশিয়ার হামলার বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে ইইউ নতুন দফার শাস্তিমূলক পদক্ষেপের যে প্রস্তুতি নিচ্ছে, তা যথেষ্ট জোরালো নয় বলে তিনি হতাশা প্রকাশ করেন৷ 
ইইউর সদস্যপদের কঠিন শর্ত পূরণ করতে একাধিক দেশ অনেক বছর বা দশক ধরে যেখানে অপেক্ষা করে রয়েছে, সেখানে রাজনৈতিক সংহতি সত্ত্বেও ইউক্রেনের জন্য ব্যতিক্রম নজির গড়তে নারাজ ইউরোপের রাষ্ট্রজোট। আবেদনের ঠিক পরেই ইউক্রেনকে প্রার্থী দেশ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে ইইউ ইতোমধ্যেই প্রথা ভেঙেছে৷

এমনই প্রেক্ষাপটে শুক্রবার কিয়েভে বসছে ইইউ-ইউক্রেন শীর্ষ সম্মেলন৷ ইউক্রেনের গণতান্ত্রিক ও অর্থনৈতিক সংস্কারের প্রতি জোরালো সমর্থন জানালেও যুদ্ধের মধ্যে ‘ফাস্ট ট্র্যাক’প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সেই দেশকে দ্রুত সদস্য করার পথে অগ্রসর হতে নারাজ ব্রাসেলস৷ সম্প্রতি ইউক্রেনে দুর্নীতি দমন অভিযানের প্রশংসা করেছে ইইউ৷

রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতার পাশাপাশি বিভিন্ন ক্ষেত্রে ইইউ আইন প্রণয়নের প্রক্রিয়া শেষ করতে অনেক বছর সময় লাগবে বলে কিয়েভকে মনে করিয়ে দিয়েছেন ব্রাসেলসের কর্মকর্তারা৷

ইউক্রেনের সরকার দ্রুত সব শর্ত মেনে চলতি বছরের শেষেই আনুষ্ঠানিকভাবে যোগদান সংক্রান্ত আলোচনা শুরু করতে চান৷ গত বছরের গ্রীষ্মকাল থেকে ইউক্রেনের অগ্রগতির প্রশংসা করেন ফন ডেয়ার লাইয়েন৷

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments