Saturday, November 27, 2021
spot_img
Homeআন্তর্জাতিকআমেরিকার ফেলে যাওয়া হাতিয়ার নিয়ে বলীয়ান তালেবান

আমেরিকার ফেলে যাওয়া হাতিয়ার নিয়ে বলীয়ান তালেবান

রবিবার কাবুলে একটি সামরিক কুচকাওয়াজ করে তালেবান বাহিনী। যাতে আমেরিকার তৈরি সাঁজোয়া যান এবং রাশিয়ান হেলিকপ্টার ব্যবহার করতে দেখা গেছে তাদের। তারা যে গেরিলা বাহিনী থেকে পুরোদস্তুর ফৌজ হয়ে উঠেছে সেই বার্তা দিতেই এই পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে বলে মত বিশ্লেষকদের। তালেবানরা দুই দশক ধরে বিদ্রোহী যোদ্ধা হিসাবে কাজ করেছিল। কিন্তু আগস্টে পশ্চিমা-সমর্থিত সরকার পতনের পর নিজেদের বাহিনীকে পুনর্গঠন করার জন্য তালেবানরা আমেরিকার ফেলে যাওয়া অস্ত্র ও সরঞ্জামের বিশাল ভান্ডার ব্যবহার করতে শুরু করেছে । প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র এনায়াতুল্লাহ খাওরাজমি বলেছেন, কুচকাওয়াজটিতে ২৫০ জন সদ্য প্রশিক্ষিত সৈন্যেকে দেখা গেছে। এদিনের কুচকাওয়াজে কয়েক ডজন M117 মার্কিন সাঁজোয়া গাড়ি, M4 রাইফেল ও MI-17 হেলিকপ্টার প্রদর্শন করে তালেবানরা । এনায়াতোল্লা খাওরাজমি জানিয়েছেন, ডিফেন্স অ্যাকাডেমি থেকে ২৫০ জন নতুন সৈন্যর পাসআউট অনুষ্ঠান উপলক্ষে এই কুচকাওয়াজের আয়োজন করা হয়েছিল।তালেবান বাহিনী এখন যে অস্ত্র ও সরঞ্জাম ব্যবহার করছে তার বেশিরভাগই তালেবানের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সক্ষম একটি আফগান জাতীয় বাহিনী গঠনের জন্য কাবুলের আমেরিকান-সমর্থিত সরকারকে সরবরাহ করেছিল ওয়াশিংটন। আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানির পলায়নের সাথে সাথে সেই বাহিনীগুলো ভেঙে যায়, সেই সঙ্গে তালেবানদের হাতে চলে আসে বড় সামরিক সম্পদ। তালেবান কর্মকর্তারা বলেছেন যে প্রাক্তন আফগান ন্যাশনাল আর্মির পাইলট, মেকানিক্স এবং অন্যান্য বিশেষজ্ঞদের একটি নতুন বাহিনীতে অন্তর্ভুক্ত করা হবে, সেই সঙ্গে আফগান যোদ্ধারা যে পোশাক পরতো তার পরিবর্তে তাদের পরতে হবে সামরিক ইউনিফর্ম। স্পেশাল ইন্সপেক্টর জেনারেল ফর আফগানিস্তান- এর একটি রিপোর্ট অনুসারে, ২০০২- ২০১৭ সালের মধ্যে মার্কিন সরকার আফগান সরকারকে অস্ত্র, গোলাবারুদ, যানবাহন, নাইট-ভিশন ডিভাইসসহ ২৮ বিলিয়ন ডলারের বেশি মূল্যের প্রতিরক্ষা সামগ্রী এবং পরিষেবা হস্তান্তর করেছে। কিছু বিমান আফগান বাহিনী থেকে সরিয়ে প্রতিবেশী মধ্য এশিয়ার দেশগুলোতে পাঠানো হয়েছিল, কিন্তু তালেবানরা উত্তরাধিকারসূত্রে অন্যান্য বিমানগুলি পেয়ে গেছে। তবে এর মধ্যে কতগুলিকে তারা ব্যবহার করছে তা এখনও স্পষ্ট নয়। মার্কিন সৈন্যরা আফঘানিস্তান থেকে চলে যাওয়ার সাথে সাথে, কাবুলের হামিদ কারজাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে রাখা ৭০ টিরও বেশি বিমান, কয়েক ডজন সাঁজোয়া যান ধ্বংস করে দিয়ে গিয়েছিলো।

সূত্র : রয়টার্স

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments