Wednesday, June 12, 2024
spot_img
Homeআন্তর্জাতিকআফগানিস্তান ছেড়ে যাওয়ার জন্য পাসপোর্টের অপেক্ষায় শত শত মানুষ

আফগানিস্তান ছেড়ে যাওয়ার জন্য পাসপোর্টের অপেক্ষায় শত শত মানুষ

পুনরায় ট্র‍্যাভেল ডকুমেন্ট ইস্যু করা শুরু হবে- তালেবান সরকার এমন ঘোষণা করার একদিন পর আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের পাসপোর্ট অফিসের বাইরে শত শত মানুষ শূন্য ডিগ্রির চেয়েও কম তাপমাত্রা সহ্য করে সারিবদ্ধ হয়ে অপেক্ষা করছেন।

অনেকে আগের রাত থেকেই অপেক্ষা করতে থাকেন এবং বেশিরভাগই ধৈর্য ধরে দাঁড়িয়েছিলেন। তাদের কেউ চিকিৎসার জন্য দেশ ছেড়ে যেতে মরিয়া। আর, অন্যরা ইসলামপন্থীদের নতুন শাসন থেকে বাঁচতে। উত্তেজনাপূর্ণ তালেবান কর্মীরা সারির সামনে ভীড় করে রাস্তা অবরোধ করে ফেলা মানুষকে ‘চার্জ’ করে।

আজমল তুফান নামে ২২ বছর বয়সী এক তালেবান নিরাপত্তা কর্মী ভীড়ের বিপদ সম্পর্কে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, “আমরা চাই না কোনো আত্মঘাতী হামলা বা বিস্ফোরণ ঘটুক”।

বৃটেনের প্রভাবশালী পত্রিকা দ্য গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য উল্লেখ করে বলা হয়ঃ

তালেবানের প্রধান শত্রু ইসলামিক স্টেট গোষ্ঠীর স্থানীয় শাখা, আগস্টের শেষের দিকে ১৫০ জনেরও বেশি লোককে হত্যা করে যখন দেশটির নাগরিকরা নতুন শাসনের শুরুর দিনগুলোতে দেশ ছেড়ে চলে যাওয়ার মরিয়া প্রচেষ্টায় কাবুল বিমানবন্দরে ভীড় করেছিল।

নিজের বন্দুকটি মাটির দিকে তাক করে তুফান বলেন, “এখানে আমাদের দায়িত্ব মানুষকে রক্ষা করা।কিন্তু, মানুষ সহযোগিতা করছে না।”

তিনি বার্তা সংস্থা এএফপির সাথে কথা বলার সময় তার এক সহকর্মী একজন লোককে ধাক্কা দেন, যার ফলে ওই লোক কাঁটাতারের একটি কুণ্ডলীর সামান্য একটু দূরে গিয়ে পড়েন।

৬০ বছর বয়সী মোহাম্মদ ওসমান আকবরী বলেন, তিনি জরুরিভিত্তিতে পাকিস্তানে পৌঁছানোর চেষ্টা করছেন কারণ দেশের জরাজীর্ণ হাসপাতালগুলোতে তার হার্ট সার্জারি সম্পন্ন করা সম্ভব নয়। একটি ‘স্টেন্ট’ এর কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, চিকিৎসকরা আমার হৃদপিন্ডে ‘স্প্রিংস’ রেখেছেন। সেগুলো সরানো দরকার, যা এখানে করা সম্ভব নয়।

সারিতে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করা সম্ভব নয় এমন ধরনের অসুস্থ ব্যক্তিদের নিয়ে অ্যাম্বুলেন্সগুলো রাস্তার পাশে পার্ক করা ছিল। নিজের গাড়ির ভেতর স্ট্রেচারে শুয়ে থাকা ৪৩ বছর বয়সী এক ব্যক্তির কথা উল্লেখ করে ২১ বছর বয়সী অ্যাম্বুলেন্স চালক মুসলিম ফাখরি বলেন, “রোগীর হার্টের সমস্যা আছে”। তিনি ব্যাখ্যা করে জানান, পাসপোর্ট ইস্যু করা হয়েছে এটা নিশ্চিত করার জন্য আবেদনকারীকে স্বশরীরে উপস্থিত থাকতে হবে।

তালেবানরা প্রাথমিকভাবে তাদের ক্ষমতায় ফিরে আসার পরপরই পাসপোর্ট দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছিল। অক্টোবরে কর্তৃপক্ষ কাবুলে পাসপোর্ট অফিস পুনরায় চালু করে। আবেদনের বন্যা বয়ে যাওয়ার কারণে বায়োমেট্রিক সরঞ্জামগুলোতে না কুলানোয় কয়েক দিন পরই তা স্থগিত করা হয়।

অবশ্য, পাসপোর্ট অফিস শনিবার বলেছে যে সমস্যাটি সমাধান করা হয়েছে এবং যাদের আবেদন ইতিমধ্যেই ‘প্রসেসিং’ করা হচ্ছিল তারা তাদের ‘ডকুমেন্ট’ পেতে পারেন।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments