Wednesday, June 12, 2024
spot_img
Homeজাতীয়আগে নির্বাচনকালীন সরকার, পরে ইসি

আগে নির্বাচনকালীন সরকার, পরে ইসি

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠন করা হয়েছে। আমরা আগেই বলেছি ইসি নিয়ে আমাদের মাথাব্যথা নেই। আমাদের মাথাব্যথা একটি বিষয়ে, সেটা হচ্ছে নির্বাচনকালীন সময়ে সরকারটা কার হবে। গতকাল ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির নসরুল হামিদ মিলনায়তনে এক প্রতিবাদ সমাবেশে এসব কথা বলেন তিনি। বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান কল্যাণ ফ্রন্ট এই প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে।
মির্জা ফখরুল বলেন, নির্বাচনকালীন সময়ে যদি আওয়ামী লীগ সরকারে থাকে তাহলে নিশ্চিত থাকতে পারেন যে, নির্বাচন হবে না। কারণ, তারা একই কায়দায় নির্বাচন করার চেষ্টা করবে, আর আমরা বসে বসে দেখবো, সেই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো না।
তিনি বলেন, আমাদের একমাত্র দাবি তত্ত্বাবধায়ক সরকার অথবা নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন। এই সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে এবং নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে ইসি গঠন করে জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে।
ইসি সম্পর্কে প্রশ্ন রেখে মির্জা ফখরুল বলেন, এই সরকার রাষ্ট্রযন্ত্রকে দখল করে নিয়েছে। ইসি একটি সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান।তাদের দায়িত্ব জনগণের ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠা করা। জনগণের প্রতিনিধিত্ব করে এমন একটি সরকার গঠন করা। অথচ আমরা আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর থেকেই দেখেছি, তারা এই ব্যবস্থাটা ধ্বংস করে দিয়েছে।
তিনি বলেন, সাম্প্রদায়িকতা, কর্তৃত্ববাদীরা আজ সারা বিশ্বে মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে। ইউক্রেনে যে আজকে রাশিয়া আক্রমণ করেছে এটা কি মানবতার দিক থেকে সমর্থন করা যায়? আমরা দেখছি শিশু ও নারীরা কীভাবে দেশ ছেড়ে চলে যাচ্ছে। প্যালেস্টাইন বা কাশ্মীরে যা দেখছি আমরা, ভারতবর্ষে ছাত্রী হিজাব পরার কারণে ক্লাসে প্রবেশ করতে দেয়া হয় না। সারা বিশ্বের শুভবুদ্ধির মানুষ, গণতন্ত্রকামী মানুষ এটার প্রতিবাদ করছে।
আয়োজক সংগঠনের আহ্বায়ক এডভোকেট গৌতম চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন- বিএনপি’র সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, তথ্য বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক জয়ন্ত কুমার কুণ্ডু, দেবাশীষ রায় প্রমুখ।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments