ইউনাইটেডে হাসপাতালে বেশ কয়েকদিন চিকিৎসা শেষেও তার শারীরিক অবস্থার কোনো উন্নতি হয়নি অভিনেতা ও সংসদ সদস্য ফারুকের। এরপর তাকে গত ৫ সেপ্টেম্বর এভারকেয়ার হাসপাতালে ( সাবেক অ্যাপোলো) স্থানান্তর করা হয়েছে। এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন নায়ক ফারুকের স্ত্রী ফারহানা ফারুক।
তিনি জানান,এখানে এসেও তার করোনা টেস্ট করা হয়েছে। কোথাও তেমন খারাপ কিছু নেই। কিন্তু তার শারীরিক অবস্থার কোনো উন্নতি হচ্ছে না। জ্বর সারছেই না। ১০১ ডিগ্রির নিচে নামছে না তাপমাত্র। স্বাভাবিকভাবেই দুশ্চিন্তা বাড়ছে।
চিকিৎসকরা বলছেন, ফারুকের রক্তে সংক্রমণের জটিলতা দেখা দিয়েছে। ইউনাইটেড হাসপাতালের চিকিৎসকরাও সংক্রমণের ব্যাপারে নিশ্চিত করেছিলেন ফারুকের স্ত্রীকে। সংক্রমণ থেকে খারাপ কিছু হতে পারে। সেজন্য দ্রুত তার উন্নত চিকিৎসা নিশ্চিত করতে হবে।
ফারহানা ফারুক বলেন, খুব দ্রুতই তাকে বিদেশে নিয়ে যাবার কথা ভাবছি আমরা। সিঙ্গাপুরে মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের সঙ্গে যোগাযোগও হচ্ছে। করোনার কারণে বর্তমানে বিদেশে যাতায়াতে অনেক জটিলতা আছে। এসব সামলে উনাকে দ্রুত সিঙ্গাপুরে নেয়ার চেষ্টা করা হবে।
সার্বি বিষয়ে ফারহানা জানান, এভারকেয়ার হাসপাতালের চিকিৎসক কিডনি বিশেষজ্ঞ এবাদুর রহমান ও মেডিসিন বিশেষজ্ঞ নিকাশ শায়লার তত্ত্বাবধানে ফারুকের চিকিৎসা চলছে। চিকিৎসক এবাদুর রহমান এরইমধ্যে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের চিকিৎসক লাইয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন। আগামীকাল ৯ সেপ্টেম্বর অভিনেতা ফারুকের চিকিৎসা সংক্রান্ত যাবতীয় বিষয় নিয়ে এভারকেয়ার (অ্যাপোলো) হাসপাতালে বোর্ড মিটিং হবে বলেও জানা গেল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

English