Saturday, July 20, 2024
spot_img
Homeবিজ্ঞান ও প্রযুক্তিঅপহরণের পর অনলাইনে বিজ্ঞাপন দিয়ে শিশু বিক্রি

অপহরণের পর অনলাইনে বিজ্ঞাপন দিয়ে শিশু বিক্রি

রাজধানীর মোহাম্মদপুরের ঢাকা উদ্যান থেকে ৩ বছর বয়সী শিশু মো. সিদ্দিককে অপহরণের ঘটনায় ৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো- পীযূষ কান্তি পাল (২৯) ও তার স্ত্রী ঋদ্ধিতা পাল (২৫), সুজন সুতার (৩২), পল্লব কান্তি বিশ্বাস (৫২) এবং তার স্ত্রী বেবী সরকার (৪৬)। বৃহস্পতিবার ঢাকা ও গোপালগঞ্জে অভিযান চালিয়ে অপহরণের ২৩ দিন পর ওই শিশুকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব।

রাজধানীর কাওরান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-২ এর অধিনায়ক অতিরিক্ত  উপ-মহাপরিদর্শক আনোয়ার হোসেন খান বলেন, গত ২৬শে এপ্রিল দুপুরে মোহাম্মদপুরের ঢাকা উদ্যান এলাকার বাসার পাশে শিশু সিদ্দিককে নিয়ে খেলছিল তার আট বছর বয়সী বোন হুমায়রা। তাদের সঙ্গে আরও ছয় থেকে সাতটি শিশু ছিল। পীযূষ ওই শিশুদের চকলেট খাওয়ায়। তারপর কৌশলে তিন বছর বয়সী শিশু সিদ্দিককে নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে গোপালগঞ্জের নিঃসন্তান দম্পতি পল্লব কান্তি বিশ্বাস ও বেবী সরকারের কাছে শিশুটিকে দুই লাখ টাকায় বিক্রি করে। সুজন সুতার এক্ষেত্রে মধ্যস্থতা করে। 

সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক বলেন, পীযূষ কান্তি পাল এক সময় স্পা সেন্টারে কাজ করতো। সেখানেই ঋদ্ধিতা পালের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। পরিচয়ের পর তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক হয়।

২০২০ সালে তারা বিয়ে করে। স্পা সেন্টারে কাজ করার সময় মানব পাচারের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ে পীযূষ কান্তি। গত বছর মানব পাচারের অভিযোগে বনানী থানায় তার বিরুদ্ধে মামলা হয়। ওই মামলায় গ্রেপ্তার হওয়ার কিছুদিন পর সে জামিনে মুক্ত হয়। এই দম্পতি ফেসবুকে সনাতনী উদ্যোক্তা ফোরাম (এসইউএফ) নামে একটি গ্রুপে শিশু দত্তকের বিজ্ঞাপন দেয়। সেই গ্রুপে সুজন সুতারের সঙ্গে ঋদ্ধিতা পালের পরিচয় হয় এবং টাকার বিনিময়ে শিশু দত্তক দেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করে। সুজনের স্ত্রীর বড় বোন বেবী সরকার এবং তার স্বামী পল্লব কান্তি বিশ্বাস নিঃসন্তান। তাদের একটি সন্তান প্রয়োজন ছিল। 

র‌্যাব জানায়, পীযূষের স্ত্রী ঋদ্ধিতা পাল একটি শিশুর ছবি সুজন সুতারকে পাঠিয়ে বলে, এই ছেলেকে দত্তক দেয়া হবে, আপনাদের পছন্দ হয় কিনা বলেন। শিশুটিকে ঋদ্ধিতার বাসার গৃহকর্মীর সন্তান বলে পরিচয় দেয়া হয়। ওই গৃহকর্মীকে তার স্বামী ছেড়ে অন্যত্র চলে যাওয়ায় শিশুটিকে টাকার বিনিময়ে দত্তক দেয়া হবে বলেও জানায় ঋদ্ধিতা। দুই পক্ষের মধ্যস্থতার পর ২৬শে এপ্রিল দুপুরে পীযূষ তার বাসা সাভার থেকে ঢাকা উদ্যান এলাকায় আসে। সেখানে কয়েকটি শিশু খেলছিল। তাদের চকলেট খাইয়ে তিন বছরের শিশু সিদ্দিককে অপহরণ করে। বিকালে পীযূষ-ঋদ্ধিতা দম্পতি রাজধানীর আগারগাঁও এলাকায় এসে দুই লাখ টাকার বিনিময়ে সুজনের কাছে শিশুটিকে বিক্রি করে দেয়। 

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments