টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অবশিষ্ট দুই ম্যাচ খেলতে শ্রীলঙ্কায় রয়েছে বাংলাদেশ দল। সেখানে তিন দিনের হোম কোয়ারেন্টিন কাটিয়ে দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচের প্রথম দিন শেষ করলেন তামিম ইকবাল, মুমিনুল হকরা। প্রথম দিনে ব্যাট হাতে ভালোই প্রস্তুতি নিয়েছেন তামিম, সাইফ ও শান্তরা। অন্যদিকে বল হাতে নিজেদের প্রস্তুত করে নিয়েছেন ইবাদত হোসেন, শুভাগত হোমরা। অল্প সময়ে এমন প্রস্তুতি ম্যাচ ক্রিকেটারদের জন্য ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু।

আজ শনিবার শ্রীলঙ্কার কাতুনায়েকেতের সিএমসিজি গ্রাউন্ডে লাল ও সবুজ দলে ভাগ হয়ে প্রস্তুতি ম্যাচ শুরু করে টাইগাররা। প্রথম দিনের খেলা শেষে গণমাধ্যমে কথা বলেন মিনহাজুল আবেদীন নান্নু।

তিনি বলেন, ‘এটা আমাদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিল, কারণ আমরা শ্রীলঙ্কায় আসার পর অনুশীলন ম্যাচের যে আয়োজন এই আয়োজনে আমরা ফ্যাসিলিটিজগুলো পুরোপুরি ব্যবহার করতে পেরেছি। আমাদের খেলোয়াড়েরা দুইদিন অনুশীলনের পরই এই প্র্যাকটিস ম্যাচটা পেয়েছে, এটা আমাদের জন্য যথেষ্ট উপকার হয়েছে। বিশেষ করে ওয়েদার, কন্ডিশন সবকিছুর সঙ্গে মানিয়ে নেয়ার জন্য। উইকেট এবং যে হিউমিড (আবহাওয়া) তার সাথে পুরোপুরি অভ্যস্ত হওয়ার জন্য খেলোয়াড়দের জন্য এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল।’

নান্নু বলেন, ‘আমার মনে হয় খেলোয়াড়েরা যথেষ্ট অভ্যস্ত হয়েছে কন্ডিশন ও উইকেটের সাথে এবং যথেষ্ট ভালো প্র্যাকটিস হয়েছে। আমাদের টপ অর্ডাররা ভালো ব্যাটিং করেছে, বোলাররা যথেষ্ট চেষ্টা করেছে লাইন লেংথ ও ভালো জায়গায় বল করার। সবমিলিয়ে আমি বলবো এটা খুব ভালো প্রস্তুতিতে সহায়তা করছে, আগামীকাল আরও একদিনের খেলা আছে। আমি মনে করি এরপর আমরা টেস্ট ক্রিকেটের জন্য পুরোপুরি প্রস্তুতি নিতে পারব।’

প্রথম দিনে বোলারদের জন্য খুব কঠিন একটা সেশন গিয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘যে উইকেট ও কন্ডিশন…বাউন্স যথেষ্ট ভালো, যেহেতু এটা অনেকটা ফ্ল্যাট ট্র্যাকের মত। হয়তো টেস্টেও এরকম কন্ডিশন হতে পারে, এই গরমের মধ্যে ভালো জায়গায় বল করা, মনযোগ থাকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমার বিশ্বাস যে আমাদের বোলাররা খুব তাড়াতাড়ি অভ্যস্ত হতে পারবে, টেস্ট ক্রিকেটের আগে প্রস্তুতির জন্য যথেষ্ট কাজে লাগবে।’ 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

English