Friday, April 19, 2024
spot_img
Homeবিচিত্রঅদ্ভুত খবর!

অদ্ভুত খবর!

বড় এক অদ্ভুত খবর! তাও রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে নিয়ে। খবরটি প্রকাশ করেছে ফক্স নিউজ। বলা হয়েছে পুতিন যখন বিদেশ সফরে যান, তখন তার সঙ্গে একদল বিশেষ বডিগার্ড বা দেহরক্ষী যান। তাদের কাজই হলো পুতিনের মল এবং মূত্র সংগ্রহ করা। এসব অন্য কোথাও ফেলে দেন না তারা। সরাসরি সংরক্ষণ করে নিয়ে যান মস্কোতে। এরপর তা নষ্ট করেন বা ধ্বংস করেন। কেন এসব ব্যবস্থা? উত্তর খুঁজতে গিয়ে পাওয়া গেছে চমকপ্রদ তথ্য। তা হলো দীর্ঘদিন ধরেই শোনা যাচ্ছে পুতিন শারীরিকভাবে অসুস্থ। এমনকি তার ক্যান্সার পর্যন্ত হয়েছে বলে পশ্চিমা মিডিয়ার খবরে বলা হয়।

বলা হয়, তিনি আর মাত্র কিছুদিন বেঁচে থাকবেন। কিন্তু সর্বশেষ এই রিপোর্ট যদি সত্যি হয়, তাহলে সেই সব খবরকে গুজব না বলে খাঁটি বলাই শ্রেয়। কারণ, পুতিন যদি বিদেশ সফরে গিয়ে সেখানেই মল, মূত্র ত্যাগ করেন, তা পরীক্ষা করে সংশ্লিষ্ট দেশ তার অসুস্থতা শনাক্ত করে ফেলবে। ফলে যাতে তার স্বাস্থ্যগত কোনো তথ্য ‘শত্রুদের’ হাতে না যায়, এ জন্য পুতিনের মলমূত্র সংগ্রহ করার জন্য একদল বডিগার্ডকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। 

উদ্ভট এই খবরটি প্রথমে প্রকাশ করে ফ্রান্সের ম্যাগাজিন প্যারিস ম্যাচ। দু’জন বর্ষীয়ান অনুসন্ধান বিষয়ক সাংবাদিকের লেখায় তা বেরিয়ে আসে। এরপর অন্য মিডিয়াগুলো তা লুফে নেয়। তারা এ বিষয়ে বিশেষজ্ঞ অন্যদের সঙ্গে কথা বলে। ডকট্রিন অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজি কনসালটিংয়ের প্রেসিডেন্ট এবং ডিআইএ’র অনুসন্ধানী সাবেক কর্মকর্তা রেবেকা কোফলার বলেন, পুতিনের আশঙ্কা তার স্বাস্থ্যগত বিষয় বিদেশি গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর হাতে চলে যেতে পারে। তিনি মনে করেন যে, অনির্দিষ্টকালের জন্য রাশিয়া শাসন করবেন। ক্ষমতার পরিবর্তন সংক্রান্ত যেকোনো উত্তেজনা তিনি সামাল দেবেন। 

ওদিকে ফরাসি সাপ্তাহিকটি আরও বলেছে, রাশিয়ার ফেডারেল গার্ড সার্ভিসের বিশেষ একজন এইড বা সহায়তাকারী বহন করেন একটি স্যুটকেস। এর মধ্যে থাকে পুতিনের সংগ্রহ করা মল, মূত্র। তা তিনি বহন করে মস্কো নিয়ে যান। ইন্ডিপেন্ডেন্ট বলেছে, শারীরিক এসব বর্জ্য সংগ্রহ করা হয় বিশেষ এক ধরনের প্যাকেটে। সেই প্যাকেট ওই ব্রিফকেসের ভিতর সুন্দর করে সাজিয়ে দেশে নিয়ে যাওয়া হয়। রাশিয়া বিষয়ে দুটি বইয়ের প্রকাশক রেজিস সেন্টার এবং মিখাইল রুবিন এমন মলমূত্র সংগ্রহের উদাহরণ দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ২০১৭ সালের ২৯ শে মে ফ্রান্স সফর করেন পুতিন। সৌদি আরব সফর করেন ২০১৯ সালের অক্টোবরে। এই দুটি সময়েই পুতিনের মলমূত্র সংগ্রহ করা হয়েছে। 

রাশিয়ায় পুতিনের নেতৃত্ব শুরুর পর থেকেই এই রীতি চর্চা করে আসছেন পুতিন। কারণ, তার স্বাস্থ্য সারাবিশ্বে সব সময়ই নজর কেড়েছে। ইউক্রেনে আগ্রাসন চালানোর পর গুজব ছড়িয়ে পড়েছে যে, তিনি মারাত্মক অসুস্থ। রাশিয়ার একজন অলিগার্চ বা শাসনক্ষমতার কাছাকাছি ব্যক্তি গত মাসে বলেছেন, পুতিন ব্লাড ক্যান্সারে মারাত্মক অসুস্থ। তার রেকর্ড করা কথায় এ দাবি করা হয়েছে। তিনি পশ্চিমা একজন পুঁজিবাদের সঙ্গে আলোচনা করছিলেন। তবে এসব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন রাশিয়ার কর্মকর্তারা। 

RELATED ARTICLES
- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments